শিরোনাম
১৪ জানুয়ারি, ২০২৪ ০৯:০৪

আলুর ফলনে খুশি কৃষক

লালমনিরহাট প্রতিনিধি

আলুর ফলনে খুশি কৃষক

ফাইল ছবি

আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এ বছর আগাম জাতের আলুর বাম্পার ফলন হয়েছে। লালমনিরহাট সদর, আদিতমারি, কালীগঞ্জসহ বিভিন্ন এলাকায় চলছে আগাম জাতের আলু তোলার ধুম। ফলন ভালো এবং বাজারে আলুর দাম বেশি থাকায় কৃষকরা খুশি। আলু খেত থেকে পাইকাররা ৪৫ টাকা কেজি দরে আলু কিনে নিয়ে যাচ্ছে।

জেলার আদিতমারি উপজেলার কমলাবাড়ির কৃষক আজিজুল বলেন, এবার দেড় বিঘা জমিতে আগাম জাতের আলু লাগিয়েছি। ৫৫ দিন পর খেত থেকে তা তুলতে শুরু করেছি। আলুর ফলন ভালো হয়েছে। এবার আবহাওয়া ভালো থাকায় কীটনাশক স্প্রে করতে হয়নি। দেড় বিঘা জমিতে আলু উৎপাদনে খরচ হয়েছে ৩০ হাজার টাকা। তাছাড়া আলু বিক্রি করার জন্য হাটে নিয়ে যেতে হচ্ছে না। পাইকাররা জমি থেকে ৪৫ টাকা কেজি দরে তা কিনে নিয়ে যাচ্ছে। উৎপাদন খরচ বাদ দিয়ে প্রায় দুই লাখ টাকা লাভ হবে আশা করছি।

সদরের বড়বাড়ি গ্রামের মো. শরিফুল ইসলাম ৩০ শতক জমিতে আলু চাষ করেন। আলু বিক্রি করেছেন তিনি ৮০ হাজার টাকায়। খরচ বাদ দিয়ে তার লাভ হয়েছে ৪০ হাজার টাকা।
আলু চাষি সুকুমার রায় জানান, তার এক বিঘা জমিতে আলু চাষ করে ৫৫ হাজার টাকা লাভ হয়েছে। প্রতি কেজি আলু জমি থেকে ৪৩ টাকা থেকে ৪৪ টাকা দরে পাইকারি বিক্রি করছেন বলে জানান তিনি।

আদিতমারি উপজেলা কৃষি অফিস জানায়, চাষিরা ৫৫ থেকে ৬০ দিনে আলু তোলার পর ওই জমিতে ভুট্টা ও বোরো ধান লাগাবে। লালমনিরহাট জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক হামিদুর রহমান জানান, জেলায় ২০ হাজার ৫৯০ হেক্টর জমিতে আলু চাষ হচ্ছে। এর মধ্যে আগাম জাতের আলু চাষ হয়েছে ১১ হাজার হেক্টর জমিতে। এবার হেক্টরপ্রতি এর ফলন হয়েছে ১৭ মেট্রিক টন।


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ

এই রকম আরও টপিক

সর্বশেষ খবর