শিরোনাম
প্রকাশ : ১১ জুলাই, ২০২০ ২০:৫৪

সিলেটে শ্রমিক নেতা খুন, প্রতিবাদে দফায় দফায় সড়ক অবরোধ

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট

সিলেটে শ্রমিক নেতা খুন, প্রতিবাদে দফায় দফায় সড়ক অবরোধ

সিলেটে ছুরিকাঘাতে খুন হয়েছেন সিলেট বিভাগীয় ট্যাংক লরি শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন রিপন (৪০)। গতকাল শুক্রবার (১০ জুলাই) রাত সোয়া ১০টার দিকে দক্ষিণ সুরমার বাবনা পয়েন্টে সন্ত্রাসীরা তাকে ছুরিকাঘাতে খুন করে। এসময় বাবলা মিয়া নামের আরেক ব্যক্তি গুরুতর আহত হন। 

হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে শুক্রবার রাত থেকে আজ শনিবার বিকেল পর্যন্ত শ্রমিকরা দফায় দফায় দক্ষিণ সুরমার বিভিন্ন স্থানে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে। পরে শ্রমিকনেতাদের সাথে বৈঠক করে পুলিশ অবরোধ প্রত্যাহার করায়। এ ঘটনায় পুলিশ দুইজনকে গ্রেফতার করেছে। 

নিহত ইকবাল হোসেন রিপন দক্ষিণ সুরমার খোজারখলার আবিল হোসেনের ছেলে। গ্রেফতারকৃতরা হলেণ দক্ষিণ সুরমার বরইকান্দি এলাকার নোমান আহমদ (৩৫) ও আতাউর রহমান সাদ্দাম (৩০)।

পরিবহন শ্রমিক নেতারা জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শুক্রবার রাত সোয়া ১০টার দিকে বাবনা পয়েন্টে ইকবাল হোসেন রিপনের উপর হামলা চালায় এজাজুল, রিমু ও মুন্নার নেতৃত্বে ১০-১২ জন সন্ত্রাসী। যমুনা ওয়েলের ডিপো সংলগ্ন দোকান বন্ধ করে বাসায় ফেরার পথে তাকে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে তারা। এসময় তার সাথে থাকা বাবলা মিয়াকেও সন্ত্রাসীরা ছুরিকাঘাত করে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় রিপনকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। 

রিপনের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন পরিবহন শ্রমিকরা। তারা রাতে দক্ষিণ সুরমার চন্ডিপুলে সিলেট-ঢাকা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন। এছাড়া রাতে দক্ষিণ সুরমার বাবনা পয়েন্ট ও হুমায়ূন রশিদ চত্বরে টায়ার জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করে রাত ২টা পর্যন্ত বিক্ষোভ করেন শ্রমিকরা। 

এদিকে, আজ শনিবার সকাল থেকে শ্রমিকরা ফের হুমায়ূন রশিদ চত্বর ও চন্ডিপুলে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন। পরে পুলিশ কর্মকর্তারা গিয়ে শ্রমিক নেতাদের সাথে বৈঠক করে পরিস্থিতি শান্ত করলে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে তারা অবরোধ তুলে নেন। 

হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় নিহত রিপনের স্ত্রী ফারজানা আক্তার তমা বাদি হয়ে ১৩ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে দক্ষিণ সুরমা থানায় মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ অভিযান চালিয়ে দুইজনকে গ্রেফতার করেছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতারেও পুলিশ তৎপর রয়েছে বলে জানিয়েছেন দক্ষিণ সুরমা থানার ওসি খায়রুল ফজল। 


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ তাফসীর


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর