শিরোনাম
প্রকাশ : ২২ মে, ২০২০ ১৬:৪১

নিম্ন আয়ের মানুষের ‘পানসে’ ঈদ প্রস্তুতি

মুহাম্মদ সেলিম, চট্টগ্রাম:

নিম্ন আয়ের মানুষের ‘পানসে’ ঈদ প্রস্তুতি

করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাব পাল্টে দিয়েছে চট্টগ্রাম নগরীর ১৩ লাখ নিম্ন আয়ের মানুষের ঈদ প্রস্তুতি। তাদের মধ্যে নেই ছেলে সন্তান ও নিজের জন্য নতুন কাপড় কেনা হিড়িক। নেই সেমাই জর্দাসহ হরেক রকম খাবার তৈরির প্রস্তুতি। রাজনৈতিক নেতা কিংবা বিত্তবানরাও তাদের জন্য পাঠাচ্ছে না ঈদ উপহার হিসেবে কাপড়, সেমাইসহ নানান পদের উপহার সামগ্রী। সব মিলিয়ে ‘পানসে’ ঈদ উদযাপনের প্রস্তুতি চলছে খেটে খাওয়া এ মানুষগুলো।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেন, ‘প্রত্যেক বছর ঈদের আগে শ্রমজীবি ও নিম্ন আয়ের মানুয়ের জন্য ঈদের আগে নানান উপহার পাঠানো হতো। করোনার কারণে এবার প্রেক্ষপট একেবারের পরিবর্তন হয়ে গেছে। এবার নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য ঈদ উপহার না পাঠিয়ে ত্রাণ সামগ্রী পাঠানো হচ্ছে। প্রতিদিনই সিটি কর্পোরেশন ও ব্যক্তিগত উদ্যোগে শত শত মানুষের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হচ্ছে।’

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, ‘ঈদে সাধারণ মানুষের জন্য কাপড় ও সেমাইয়ের পরিবর্ত ত্রাণ সামগ্রী পাঠানো হচ্ছে। এ মহামারির মধ্যে মানুষের খেয়ে বেঁচে থাকাটাই মুখ্য। তাই এবার ঈদে নেতা কর্মী ও সাধারণ মানুষের জন্য নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী পাঠানো হচ্ছে।’

বিভিন্ন সূত্রে পাওয়া তথ্য মতে, প্রায় ৭০ লাখ নগরবাসীর চট্টগ্রাম শহরে প্রায় ১৩ লাখ মানুষই হচ্ছে নিম্ন আয়ের। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলরদের করা তালিকা অনুযায়ী নগরে নিম্ন আয়ের পরিবার আছে ৫ লাখ ৯৪ হাজার। চট্টগ্রামের নিম্ন আয়ের মানুষের মধ্যে সিংহভাগ হচ্ছে রিক্সা চালক, পরিবহণ শ্রমিক, সিএনজি টেক্সি ও টেম্পু চালক, দিন মজুর, হোটেল রেস্টুরেন্টের কর্মচারী, ভ্রাম্যমান বিক্রেতা, কমিউনিটি সেন্টারেরর টেবিল বয় অন্যতম। করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকেই এসব শ্রমজীবি মানুষ কার্যত বেকরা। আয় রোজগার বন্ধ থাকায় অনেকে মানবেতন জীবন যাপন করছে। তাই এবার ঈদে নতুন কাপড় ও ঈদের দিনের জন্য সেমাইসহ নানান পদের খাবার কেনা আকাশ কুসুমের মত।  নিম্ন আয়ের মানুষের এমন দূরবস্থার মধ্যে সরকার, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সংগঠন ত্রাণের ব্যবস্থা করলেও তা প্রয়োজনের তুলনায় খুবই নগন্য। প্রতি বছর ঈদের আগে রাজনৈতিক দলের নেতা, ব্যবসায়ী ও নানান সংস্থার পক্ষ থেকে ঈদ উপহার হিসেবে কাপড়, সেমাইসহ নানান পদের উপহার সামগ্রী পাঠানো হতো তাদের জন্য। কিন্তু করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের মধ্যে আমুল পরিবর্তন এসেছে ঈদ উপহারে। বরং ঈদ উপহারের পরিবর্তে নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রীই পাঠানো হচ্ছে সাধারণ লোকজনের কাছে।

নগরীর খুলশী এলাকার রেলওয়ে কলোনী বস্তির বাসিন্দা আবু জাফর বলেন, প্রত্যেক বছর ঈদের আগে ছেলে মেয়ের জন্য নতুন কাপড় ক্রয় করি। করোনার কারণে প্রায় দুই মাস বেকার। তাই এবার সন্তানদের জন্য নতুন কাপড় ক্রয় করতে পারবো না।

বিডি প্রতিদিন/এ মজুমদার


আপনার মন্তব্য