১৬ অক্টোবর, ২০২১ ১৭:৩৩

মা ও দুই শিশুর লাশ উদ্ধার; স্বামীর অপকর্মে বাধা দেয়ায় কাল হলো সুমিতার

মুহাম্মদ সেলিম, চট্টগ্রাম

মা ও দুই শিশুর লাশ উদ্ধার; স্বামীর অপকর্মে বাধা দেয়ায় কাল হলো সুমিতার

প্রতিবেশী সোহেল রানাকে ভালোবেসে বিয়ে করেন সুমিতা বেগম। প্রায় ৯ বছরের সংসারে তাদের কোলজুড়ে আসে কন্যা জান্নাত আরা মুন এবং পুত্র শান বাবু। এরইমধ্যে সোহেল রানা একাধিক নারীর সাথে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন। হয়ে পড়েন মাদকাসক্ত। 

স্বামীকে আলোর পথে ফেরাতে গিয়ে শুরু হয় দাম্পত্য কলহ। অপকর্মে বাধা দেয়ায় শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন শুরু হয় সুমিতার উপর। ক্রমাগত নির্যাতন সইতে না পরে বৃহস্পতিবার রাতে দুই সন্তানসহ আত্মহত্যা করেন তিনি। তাদের আত্মহত্যার প্ররোচনা দেয়ার অভিযোগে শুক্রবার রাতেই গ্রেফতার করা হয় সোহেল রানাকে।

সিএমপি’র মুখপাত্র ও উত্তর জোনের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার আরাফাতুল ইসলাম বলেন, ‘স্ত্রী ও দুই সন্তানকে আত্মহত্যার প্ররোচনা দেয়ার অভিযোগে সোহেল রানাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসা কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে। আরো জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য তার রিমান্ড চাওয়া হয়েছে।’

পুলিশ জানায়, হারবাল বিক্রেতা সোহেল রানা অধীনস্থ এক নারী কর্মচারীসহ কয়েকজন নারীর সাথে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন। একই সময় তিনি মাদকাসক্তও হয়ে পড়েন। পরনারী ও মাদকাসক্ত থেকে স্বামীকে ফেরাতে চাইলে শুরু হয় দাম্পত্য কলহ। এনিয়ে সোহেল রানা প্রায় সুমিতাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতো। স্বামীর ক্রমাগত নির্যাতনের ফলে দুই সন্তানকে খুন করে নিজেই আত্মহত্যা করেন।

ইসমাইল কলোনী এসএস টাওয়ারের দারোয়ান মো. ফোরকানের দাবি, সোহেল রানা প্রায় সময় মদপান করে বাসায় ফিরতো। অন্য নারীর সাথেও তার পরকীয়া ছিল এমন কথা চাউর রয়েছে। এসব নিয়ে প্রায় স্বামী স্ত্রীর মধে ঝগড়া হতো।

সুমিতা ও তার দুই সন্তানকে আত্মহত্যার প্ররোচনা দেয়ার অভিযোগে সুমিতার স্বামী সোহেল রানার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। শুক্রবার রাতে সুমিতার নিকট আত্মীয় শামসুল আলম বাদী হয়ে পাঁচলাইশ থানায় মামলাটি দায়ের করেন। 

পাঁচলাইশ থানার ওসি জাহেদুল কবির বলেন, ‘আত্মহত্যার প্ররোচনা দেয়ার অভিযোগে সোহেল রানার বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাকে ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে পাঁচ দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়েছে।’

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার সকালে নগরীর পাঁচলাইশ থানাধীন মোহাম্মদপুরের ইসমাইল কলোনী থেকে তিনজনের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। তারা হলেন, সুমিতা বেগম ও তার দুই সন্তান জান্নাত আরা মুন এবং শান বাবু। পরে নিহতের সুমিতার স্বামী সোহেল রানাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন

সর্বশেষ খবর