Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ১৯ মে, ২০১৯ ১০:২৭

ফের আকাশে ডানা মেলার পথে 'বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স এইট'

অনলাইন ডেস্ক

ফের আকাশে ডানা মেলার পথে 'বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স এইট'
ফাইল ছবি

ফের আকাশে ডানা মেলতে চলেছে ‘অভিশপ্ত’ বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স এইট বিমান। দুর্ঘটনা রোধে বোয়িং বিমানের ফ্লাইট-কন্ট্রোল সফটওয়্যারের আপডেট সম্পূর্ণ হয়েছে। তবে চূড়ান্ত ছাড়পত্র পাওয়ার পরেই ফের আকাশে উড়বে বিমানটি। বিবৃতি দিয়ে এই তথ্য জানিয়েছে মার্কিন বিমান নির্মাতা সংস্থা বোয়িং।

গত ১০ মার্চ ভেঙে পড়ে ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্সের বোয়িং বিমান। তার আগে গত বছরের ২৯ অক্টোবর দুর্ঘটনার কবলে পড়ে লায়ন এয়ারের একটি বোয়িং ৭৩৭ বিমান। দু’টি দুর্ঘটনায় সবমিলিয়ে প্রাণ হারান ৩৪৬ জন। তারপরই ‘অভিশপ্ত’ বিমানগুলির উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে একাধিক দেশ। 

দুর্ঘটনার তদন্তে জানা যায়, দু’টি ক্ষেত্রেই মাটির দিকে মুখ ঝুঁকে পড়ে ম্যাক্স এইট বিমানগুলি। আপ্রাণ চেষ্টা করেও বিমানগুলি নিয়ন্ত্রণে আনতে ব্যর্থ হন পাইলটরা। জানা যায়, ‘অটোমেটেড ম্যানুভরিং ক্যারেক্টাস্টিকস অগমেন্টেশন সিস্টেম’ বা এমসিএএস প্রযুক্তির ব্যর্থতাই বিমান গুলি ভেঙে পড়ার কারণ। 

বৃহস্পতিবার বোয়িংয়ের চেয়ারম্যান, প্রেসিডেন্ট এবং সিইও ডেনিস মুলেনবার্গ জানান, “আমরা সব সময় সুরক্ষাকে অগ্রাধিকার দিয়ে এসেছি। সে কথা মাথায় রেখেই সমস্ত বিমানের সফটওয়্যার আপডেট করেছি আমরা। সফটওয়্যার আপডেটের পর এ পর্যন্ত ২০৭টি বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স বিমানকে ৩৬০ ঘণ্টার বেশি উড়িয়ে পরীক্ষা করা হয়েছে।  

উল্লেখ্য, বোয়িং'র এখন পর্যন্ত যত রকম বিমান তৈরি করেছে, তার মধ্যে এই ৭৩৭ বিমানেরই চাহিদা আর উৎপাদন সবচেয়ে বেশি। জোড়া ইঞ্জিন, কম খরচে পরিচালনা, আর ওজনে হালকা–এই তিন গুণের জন্যই বিশ্বের সমস্ত লো-কস্ট বিমান পরিবহণ সংস্থাগুলির পছন্দ এই ৭৩৭ বিমান। 

দুর্ঘটনাগ্রস্ত বিমান ৭৩৭ ম্যাক্স এইট ওই ৭৩৭ বিমানেরই আধু্‌নিক এবং চতুর্থ প্রজন্মের সংস্করণ। যাকে আপাতত অনির্দিষ্টকালের জন্য বসিয়ে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রায় দশটি দেশ। এদের মধ্যে রয়েছে ইথিওপিয়া, চীন, ইন্দোনেশিয়া, মঙ্গোলিয়া, ভারত, মরক্কো এবং ক্যারিবিয়ান বিমান সংস্থাগুলি।     


বিডি-প্রতিদিন/তাফসীর


আপনার মন্তব্য