Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ১৩ অক্টোবর, ২০১৯ ১৯:২৯

রাজশাহীতে যুবলীগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মাছ লুটের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী:

রাজশাহীতে যুবলীগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মাছ লুটের অভিযোগ
রাজশাহীর তানোর উপজেলায় কয়েকজন যুবলীগ নেতার নেতৃত্বে প্রকাশ্যে এক আওয়ামী লীগ নেতার পুকুরের মাছ লুটের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় পুকুরপাড়ের নৈশপ্রহরীর বাড়িও ভাঙচুর করে লুটপাটকারীরা। এছাড়া পুকুরের পাড়ে থাকা বিভিন্ন জাতের গাছ কেটে ফেলা হয়। তাণ্ডব চলে প্রায় ঘণ্টাব্যাপী।  
 
এ ঘটনায় মুন্ডুমালা পৌরসভা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইদুর রহমান ৮ জন যুবলীগ নেতার নাম উল্লেখসহ ৩০-৪০ জন ব্যক্তির বিরুদ্ধে মুন্ডুমালা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে অভিযোগ দায়ের করেছেন। প্রকাশ্য দিবালোকে কয়েক লাখ টাকার মাছ লুট এবং ভাঙচুরের ঘটনায় এলাকায় সাধারণ মানুষের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভ এবং অসন্তোষের সৃষ্টি হয়েছে। 
 
সাইদুর রহমান জানান, বাধাইড় ইউনিয়ন পরিষদের একটি সরকারি পুকুর হরিশপুর জামে মসজিদের নামে ইজারা আছে। পরবর্তীতে মসজিদ পরিচালনা কমিটি পুকুরটি তাকে মাছ চাষের জন্য ইজারা দেন। তিনি মসজিদ কমিটিকে টাকা দিয়ে পুকুরটিতে কয়েক বছর থেকে মাছ চাষ করছেন। কিন্তু কিছুদিন থেকেই তানোর উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক যোবায়ের ইসলামসহ কয়েকজন যুবলীগ নেতা পুকুরটিতে জোরপূর্বক মাছ ধরে নেওয়ার হুমকি দিয়ে আসছিলেন। 
 
মুন্ডুমালা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, ১১ অক্টোবর শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে তানোর উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি আহম্মেদ হোসেন সিজার, আরিফ রায়হান তপন, সাধারণ সম্পাদক যোবায়ের ইসলাম, মুন্ডুমালা পৌরসভা যুবলীগের সভাপতি ও আট নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোস্তাফিজুর রহমানের নেতৃত্বে যুবলীগের ৩০-৪০ জন নেতাকর্মী পুকুর পাড়ে যায়। এরপর পুকুরে জাল নামিয়ে ঘণ্টাব্যাপী মাছ ধরেন। এসময় পুকুর পাড়ে নৈশপ্রহরীর বাড়ি ভাঙচুর করা হয়। কেটে ফেলা হয় বিভিন্ন জাতের গাছ। 
 
ভুক্তভোগী মুন্ডুমালা পৌরসভা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইদুর রহমান বলেন, ‘প্রায় সাত বিঘা (২ দশমিক ৩০ একর) আয়তনের পুকুরটি। মসজিদের কাছ থেকে ইজারা নিয়ে আমি কয়েক বছর থেকে মাছ চাষ করছি। পুকুরে রুই ও কাতলসহ অন্য জাতের বড় বড় মাছ ছিল। মাছের ওজন ছিলো গড়ে ৩ থেকে ৫ কেজি।’ 
 
তিনি বলেন, ‘জাল ফেলে পুকুরের অধিকাংশ মাছ ধরে নিয়েছে। এর ফলে আমার প্রায় ১০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। মুন্ডুমালা পৌরসভা যুবলীগের সভাপতি ও আট নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোস্তাফিজুর রহমানসহ যুবলীগ নেতারা আমার পুকুরটি দখলে নিতে চান। এলাকার সরকারি খাসজমি দখলসহ এদের বিরুদ্ধে নানা অপকর্মের অভিযোগ আছে।’ 
 
তবে কাউন্সিলর মোস্তাফিজুর রহমান অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘পুকুরটি জোরপূর্বক দখলে রাখা হয়েছে। তাই এলাকাবাসী পুকুরটিতে মাছ চাষ করতে চান। তাদের অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতেই আমরা সেখানে যাই। মাছ লুট বা বাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা সঠিক না। এলাকাবাসীর পক্ষে আমরা পুকুরটিতে মাছের পোনা ছেড়েছি।’ 
 
তানোর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খাইরুল ইসলাম বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ঘটনায় আওয়ামী লীগ নেতা সাইদুর রহমান অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। সত্যতা পেলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।
 

বিডি প্রতিদিন/মজুমদার

 
 

আপনার মন্তব্য