Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ১৩ অক্টোবর, ২০১৯ ২০:৪৫

দীপন হত্যার বিচার শুরু

আদালত প্রতিবেদক

দীপন হত্যার বিচার শুরু
প্রকাশক ফয়সল আরেফিন দীপন (ফাইল ছবি)
প্রকাশক ফয়সল আরেফিন দীপন হত্যা মামলায় সেনাবাহিনীর চাকরিচ্যুত মেজর সৈয়দ জিয়াউল হকসহ আট আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। একইসঙ্গে সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য ১৮ নভেম্বর দিন ধার্য করা হয়েছে। রবিবার ঢাকার সন্ত্রাস দমন বিশেষ ট্রাইবুনালের বিচারক মো. মজিবুর রহমান এ আদেশ দেন। ফলে এ মামরার আনুষ্ঠাকি বিচার শুরু হলো। 
 
মামলার আট আসামি হলেন- বরখাস্তকৃত মেজর সৈয়দ জিয়াউল হক জিয়া, আকরাম হোসেন ওরফে হাসিব ওরফে আবির ওরফে আদনান ওরফে আবদুাল্লাহ , মইনুল হাসান শামীম ওরফে সামির ওরফে ইমরান, আবদুর সবুর সামাদ ওরফে সুজন ওরফে রাজু, খাইরুল ইসলাম ওরফে জামিল ওরফে জিসান, আবু সিদ্দিক সোহেল ওরফে সাকিব ওরফে সাজিদ ওরফে শাহাব, মোজাম্মেল হুসাইন ওরফে সায়মন ওরফে শাহরিয়ার ও শেখ আবদুল্লাহ ওরফে জুবায়ের ওরফে জায়েদ ওরফে জাবেদ ওরফে আবু ওমায়ের। 
 
এর আগে, কাঠগড়ায় দাঁড়ানো বাকি ছয় আসামিকে অভিযোগ পড়ে শুনিয়ে বিচারক জিজ্ঞেস করেন- তারা দোষী না নির্দোষ। উত্তরে প্রত্যেকেই নিজেদের নির্দোষ দাবি করে সুবিচার চান। পরে বিচারক ওই ছয় আসামির অব্যাহতির আবেদন খারিজ করে পলাতক দুই আসামিসহ তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন।  
 
মামলা সূত্রে জানা গেছে, ফয়সল আরেফিন দীপনকে ২০১৫ সালের ৩১ অক্টোবর শাহবাগের আজিজ সুপার মার্কেটে জাগৃতি প্রকাশনীর কার্যালয়ে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। একই দিন লালমাটিয়ায় শুদ্ধস্বর প্রকাশনীর কার্যালয়ে ঢুকে এর স্বত্বাধিকারী আহমেদুর রশীদ টুটুল, লেখক রণদীপম বসু ও প্রকৌশলী আবদুর রহমানকে দুর্বৃত্তরা কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যার চেষ্টা করে। 
 
ফয়সল আরেফিন দীপন হত্যাকাণ্ডের পর ওইদিনই তার স্ত্রী রাজিয়া রহমান শাহবাগ থানায় হত্যা মামলা করেন। এ মামলায় গত বছরের ১৫ নভেম্বর ৮ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে পুলিশ। জিয়া ও আকরাম হোসেন পলাতক থাকায় ট্রাইব্যুনাল তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। 
 
বিডি প্রতিদিন/এনায়েত করিম

আপনার মন্তব্য