শিরোনাম
প্রকাশ : ২৮ মে, ২০২১ ২০:০৪
প্রিন্ট করুন printer

১০২৪টি ব্যবসার জরিপ

৮ মার্কেটেই ভ্যাট দেয় না ৯০৪ প্রতিষ্ঠান

নিজস্ব প্রতিবেদক

৮ মার্কেটেই ভ্যাট দেয় না ৯০৪ প্রতিষ্ঠান
Google News

ভ্যাট গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর রাজধানী ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ ও সাভারের আরও ৮টি মার্কেট জরিপ করে দেখতে পায় ৮৮% দোকান ভ্যাট দেয় না। এই জরিপে ১০২৪টি প্রতিষ্ঠানের ব্যাবসায়িক তথ্য সংগ্রহ করে এই চিত্র পাওয়া যায়।

ভ্যাট গোয়েন্দার তিনটি দল গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানী ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ ও সাভারের ৮টি মার্কেট জরিপ সম্পন্ন করে। আজ শুক্রবার এই জরিপের তথ্য বিশ্লেষণে এই চিত্র ফুটে ওঠে।

গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক তানভীর আহমেদ নারায়ণগঞ্জ, সহকারী পরিচালক মুনাওয়ার মুরসালীন ঢাকায় এবং সহকারী পরিচালক মালেকীন নাসির আকন্দ সাভারের জরিপ কাজে নেতৃত্ব দেয়। তিনটি দলে ৪২ জন গোয়েন্দা কর্মকর্তা অংশ নেয়।

এই মার্কেট ৮টি হলো- নারায়ণগঞ্জের মার্ক টাওয়ার, সমবায় নিউ মার্কেট, সায়েম প্লাজা, আল হাকিম (পপুলার) সেন্টার; সাভারের সিটি সেন্টার; ঢাকার ট্রপিকাল আলাউদ্দীন টাওয়ার উত্তরা, আর এ কে শপিং কমপ্লেক্স উত্তরা এবং সুভাস্তু নজর ভ্যালি, বাড্ডা।

এই জরিপে মোট দোকান পাওয়া যায় ১০২৪টি। এগুলোর মধ্যে মোট ভ্যাট নিবন্ধিত দোকানের সংখ্যা ১২০টি; ভ্যাট দেয় না ৯০৪টি।

জরিপ অনুসারে ভ্যাট নিবন্ধিত ১২০টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে মাসে ৫০০০ টাকার ওপরে ভ্যাট দেয় মাত্র  ৪৫টি। বাকি ৭৫টি ৫০০০ টাকার নিচে ভ্যাট প্রদান করে। অথচ জরিপের ফল অনুসারে এদের অধিকাংশের দোকানভাড়া, কর্মচারীর বেতন, বিদ্যুৎ ও অন্যান্য খরচ ও মুনাফা অনুসারে এই পরিমাণ ভ্যাট সংগতিপূর্ণ নয় মর্মে প্রমাণ মিলেছে।

কোনো কোনো ক্ষেত্রে দেখা গেছে, এদের প্রায় সবাই ক্রেতার কাছ থেকে হতে ভ্যাট আদায় করে। কিন্তু তারা যথাযথভাবে সরকারের কোষাগারে ভ্যাট পরিশোধ করে না।

মাঠপর্যায়ের এই জরিপে আরো দেখা যায়, কোনো কোনো মার্কেট গড়ে উঠেছে দশ বছরের অধিক সময় পূর্বে। মার্কেটের অনেক ব্যবসাও একই সময়ের। নতুন ভ্যাট আইনও বাস্তবায়ন হয়েছে দুই বছর হয়েছে। কিন্তু এই দীর্ঘ সময়েও জরিপে প্রাপ্ত ৮৮% প্রতিষ্ঠান ভ্যাটের আওতায় আসেনি। তবে সুভাস্তু নজর ভ্যালিতে ঢাকা উত্তর কমিশনারেট থেকে গতকাল ৫০০ দোকানকে বাধ্যতামূলক নিবন্ধন দিয়ে তা মার্কেটের নিচে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে।

জরিপ প্রতিবেদন বলছে, মার্কেট থেকে ভ্যাট সংগ্রহে রাজধানীর চেয়ে ঢাকার বাইরের প্রতিষ্ঠানগুলোর ভ্যাট প্রদানে অনীহা বেশি। এসব এলাকায় ভ্যাট আইন পরিপালন অপেক্ষাকৃত কম।  

গত ২৫ মে নরসিংদীর দুটি শীতাতপ মার্কেটের জরিপে দেখা যায়, মার্কেট দুটোর ২৩৭ প্রতিষ্ঠানের কেউই ভ্যাট প্রদান করে না।এই মার্কেটের নাম হলো নরসিংদীর স্টেশন রোড়ের ইনডেক্স প্লাজা ও জামান শপিং কমপ্লেক্স।

ভ্যাট গোয়েন্দার নারায়নগঞ্জ ও সাভার এলাকার ২৭ মের জরিপেও একই চিত্র ফুটে উঠেছে। এই দুই এলাকার ৬টি মার্কেটের ৩৭২টির মধ্যে মাত্র ১৮টি ভ্যাট নিবন্ধন গ্রহণ করেছে। বাকি ৩৫৪টি প্রতিষ্ঠান ভ্যাটের আওতাভুক্ত নয়। যারা নিবন্ধিত তাদের অধিকাংশ আবার যথাযথভাবে ভ্যাট প্রদান করে না।

ভ্যাট আইন অনুসারে যেকোনো ভ্যাটযোগ্য ব্যবসা শুরু করার পূর্বেই নিবন্ধন গ্রহণ করা বাধ্যতামূলক। মার্কেটগুলোতে খুচরা পর্যায়ে অধিকাংশ ক্ষেত্রে ৫% হারে ভ্যাট সংগ্রহ করে প্রতি মাসের ভ্যাট-পরবর্তী মাসের ১৫ তারিখের মধ্যে সরকারি কোষাগারে জমা দিয়ে স্থানীয় ভ্যাট সার্কেলে রিটার্ন জমা দেওয়ার বিধান রয়েছে। প্রতিটি বিক্রিতে ক্রেতাকে নির্দিষ্ট ফর্ম মূসক-৬.৩-এ চালান দিতে হবে।

এনবিআরের নির্দেশে ভ্যাট গোয়েন্দা অধিদপ্তর এই বিশেষ জরিপ করছে। এ লক্ষ্যে ৪টি জরিপদলও গঠন করেছে ভ্যাট গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর। এই ৪টি দল মাঠে নেমে রাজধানী ও রাজধানীর বাইরের মার্কেটগুলোতে এই জরিপ করছে। এই জরিপে বিভিন্ন মার্কেট সমিতি ও ব্যবসায়ীদের সহযোগিতা নিচ্ছে গোয়েন্দা দল।

এনবিআর জানিয়েছে, ভ্যাটযোগ্য ব্যবসাকে করের আওতাভুক্ত করা এবং যথাযথ আইনিপ্রক্রিয়ায় সরকারের রাজস্ব সংগ্রহ বাড়ানোর উদ্দেশ্যেই এই জরিপ।

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত

এই বিভাগের আরও খবর