২২ জুন, ২০২২ ২০:০৩

স্কুলছাত্রীকে বিয়ে দিতে রাজি না হওয়ায় মাকে মারধরের অভিযোগ

সিদ্ধিরগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি

স্কুলছাত্রীকে বিয়ে দিতে রাজি না হওয়ায় মাকে মারধরের অভিযোগ

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের ধনুহাজীরোড এলাকায় অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীকে (১৩) বিয়ে না দেওয়ায় এক যুবকের বিরুদ্ধে ওই ছাত্রীর মায়ের ওপর হামলা চালানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। এমনকি ওই ছাত্রীকে বিয়ের জন্য চাপ সৃষ্টি করছে তারা। বিভিন্নভাবে হত্যার হুমকি দিয়ে আসছে। এ ঘটনায় বুধবার সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী ছাত্রী সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি পাইনাদী রেকমত আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেণিতে অধ্যয়নরত। স্কুলে আসা-যাওয়ার সময় রাহাত (২২) নামের এক যুবক তাকে উত্ত্যক্ত করে আসছিল। একপর্যায়ে গত ১৫ জুন তার স্বজনদের নিয়ে মেয়ের বাড়িতে বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে যায় রাহাত। কিন্তু ওই স্কুলছাত্রীর মা তার মেয়ে উপযুক্ত (বিয়ের বয়স) না হওয়ায় বিয়ে দিতে রাজি হননি। এসময় জোরপূর্বক স্কুলছাত্রীকে বাড়ি থেকে টেনেহিঁচড়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে তারা। স্কুল ছাত্রীর মা তাদের থেকে মেয়েকে রক্ষা করার চেষ্টা করলে তাকে মারধর করে রাহাত ও তার সাথে আসা কিশোর গ্যাংয়ের অন্যান্য সদস্য ও তার স্বজনরা।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) বিল্লাল হোসেন জানান, স্কুলছাত্রীর সঙ্গে ওই ছেলের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ছাত্রীর বয়স কম হওয়ায় মেয়ের মা বিয়ে দিয়ে রাজি হয়নি। এ বিষয়ে তদন্ত করতে গিয়েছিলাম। এ বিষয়ে বিরক্ত না করতে বলে এসেছি। এখন যদি আবার বিরক্ত করে, তবে উভয় পক্ষকে ডেকে এনে বিষয়টি সমাধান করে দেওয়া হবে।

স্কুলছাত্রীর বয়স ১৩ নয়, তার বয়স ১৫ উল্লেখ করে অভিযুক্ত রাহাত জানান, আমি তাকে (স্কুলছাত্রী) পছন্দ করি। বিয়ে করতে আমার মা (শাহনাজ) ও মামাকে (হাশেম) নিয়ে তাদের বাসায় গেলে তার মা (স্কুল ছাত্রীর) আমাদের সাথে খারাপ ব্যবহার করে।

এ ব্যাপারে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মশিউর রহমান জানান, এ বিষয়ে একটি অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বিডি প্রতিদিন/এমআই

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর