৩ ডিসেম্বর, ২০২২ ১৬:৫৩

রসিক নির্বাচন; ইভিএম সম্পর্কে জানেন না ৯০ শতাংশ ভোটার

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর

রসিক নির্বাচন; ইভিএম সম্পর্কে জানেন না ৯০ শতাংশ ভোটার

রংপুর সিটি করপোরেশনে সবগুলো কেন্দ্রে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) এর মাধ্যমে ২৭ ডিসেম্বর ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এখন পর্যন্ত ৯০ শতাংশ ভোটার জানে না ইভিএমে কিভাবে ভোট দিতে হবে। ইভিএম সম্পর্কে ভোটারদের অভিজ্ঞতা নেই। ইভিএমে ভোটগ্রহণ কতটা সুষ্ঠু হবে এ নিয়ে অনেকেই সংশয় প্রকাশ করেছেন। 

২৫ নং ওয়ার্ডের ভোটার মাহামুদুল করিম, রুনা লায়লা, ২৪ নং ওয়ার্ডের সামছুজোহাসহ শতাধিক ভোটারের সাথে কথা হলে তারা বলেন, ইভিএমে ভোট কি ভাবে দিতে হয় তা তারা জানেন না। এই পদ্ধতিতে ভোট প্রদান কতটুকু সফল হবে এনিয়ে তারা সংশয় প্রকাশ করে বলেছেন, ইভিএমের মাধ্যমে ভোট কারচুপি সম্ভব। যে প্রতীকে ভোট দিব তা আমার কিনা তা বুঝতে পারব না। নির্বাচন অফিস ভোট গণনা করবে। আমার ভোটটি আসলে আমার মার্কায় পড়েছে কিনা তা  বুঝতে পারব না। সিটি করপোরেশনের মূল শহরের ভোটারদের কিছুটা ইভিএম সম্পর্কে ধারণা থাকলেও বর্ধিত এলাকা হিসেবে পরিচিত শহরতলীর ভোটারদের ইভিএম নিয়ে কোন অভিজ্ঞতা নেই। 

জাতীয় পার্টির মেয়র প্রার্থী মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফাসহ একাধিক মেয়র প্রার্থীও ইভিএময়ে সুষ্ঠু ভোট গ্রহণ নিয়ে সন্দেহ পোষণ করেছেন। তাদের মতে শিক্ষিত মানুষই ইভিএম বোঝেন না। গ্রামের মানুষ কী ভাবে ইভিএমে ভোট দিবেন। তবে নির্বাচন অফিস বলছেন ভোটের আগে ইভিএম ভোট গ্রহণের প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। ভোটার যাতে সহজে বুঝতে পারে এ জন্য যাবতীয় প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। 

ইভিএম নিয়ে সাধারণ ভোটার ও প্রার্থীদের মাঝে সংশয় থাকলেও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তুষার কান্তি মন্ডল বলেন, ইভিএম আধুনিক প্রযুক্তি। এই পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ সহজ। এখানে কারচুপির শঙ্কা নেই। 

নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, রসিক নির্বাচনে প্রায় আড়াই হাজারের মত ইভিএম মেশিনের প্রয়োজন রয়েছে। রংপুর জেলা নির্বাচন কার্যালয়ে থাকা প্রায় এক হাজার ইভিএম সচল করার জন্য ঢাকায় নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছিল। এই মেশিনগুলো সময় ও তারিখসহ বিভিন্ন সমস্যায় ব্যবহার অনুপোযোগী হওয়ায় সচল করার জন্য পাঠানো হলে ঢাকা থেকে সেগুলোর কোয়ালিটি চেকিংক করে রংপুরে পাঠানো হয়েছে। ২০১টি ভোটকেন্দ্রে আড়াই হাজারের মত  ইভিএম প্রয়োজন হবে। সে কারণে সচল এবং ব্যবহার উপযোগী মেশিন আনার জন্য পুরাতন ইভিএমগুলো কাভার্ডভ্যানে করে ঢাকায় পাঠানো হলে ঢাকা থেকে কোয়ালিটে চেকিং হয়ে রংপুরে এসেছে।  ১১০০ মত ইভিএম রংপুর নির্বাচন অফিসের কাছে রয়েছে। বাদবাকি ইভিএম খুব দ্রুত চলে আসবে। 

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ফরহাদ হোসেন বলেন, ইভিএমে ভোট গ্রহণের যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।

বিডি প্রতিদিন/হিমেল 

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর