Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper

শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৫ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৪ আগস্ট, ২০১৯ ২২:৩১

এখনো ফাঁকা নগরী কাটেনি ঈদ আমেজ

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

এখনো ফাঁকা নগরী কাটেনি ঈদ আমেজ

ছুটির আমেজ কাটেনি নগরীতে। এখনো চারদিক ফাঁকা। ঈদের ছুটির তিন দিন পর গতকাল প্রথম কর্মদিবসে                অফিস, আদালত ও ব্যাংকে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উপস্থিতি ছিল নগণ্য। একই দৃশ্য দেখা গেছে বেসরকারি বা ব্যক্তিগত অফিস ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রেও। চট্টগ্রাম নগরীতে প্রায় ৭০ লাখ মানুষের বসবাস থাকলেও কোরবানির ঈদকে ঘিরে অর্ধেক তথা ৩৫ লাখ বাসিন্দা নিজ নিজ গ্রামের বাড়িতে ঈদ করতে গেছেন বলে ধারণা চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষের। তাই প্রিয়জনদের সঙ্গে ঈদের ছুটি পুরোপুরি উপভোগ করতে সরকারি-বেসরকারি চাকুরেদের অনেকেই বুধ-বৃহস্পতি দুই দিন ছুটি মঞ্জুর করিয়েছেন। এমনিতেই জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আজ ১৫ আগস্ট কিছু কিছু প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। বুধবারের ছুটি মঞ্জুর করিয়ে সরকারি-বেসরকারি চাকুরেরা স্বজনদের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগ করতে নিজ নিজ গ্রামেই রয়ে গেছেন। ফলে ছুটির আমেজ কাটিয়ে পূর্ণ কর্মব্যস্ত নগর হয়ে উঠবে আগামী রোববার থেকে। গতকাল যারা কাজে যোগ দিয়েছেন, তাদের দিনের প্রথম ভাগ কেটেছে ঈদের কোলাকুলি ও কুশল জানাজানিতে। এদিকে তিন দিনের ঈদের ছুটি শেষে কেউ কেউ নগরে ফিরতে শুরু করেছেন। নগরের সব বাস এবং রেলওয়ে স্টেশনে বাড়ি ফেরত মানুষের ভিড় দেখা গেছে। রেলওয়ের পূর্বাঞ্চলের দফতর, জীবনবীমা ভবনসহ বিভিন্ন সরকারি দফতর বুধবার সকাল ৯টায় খোলা হলেও বেলা ১১টার দিকেও অধিকাংশ অফিস-দফতর ফাঁকা দেখা গেছে। রেলওয়ের পূর্বাঞ্চলের ব্যবস্থাপক বোরহান উদ্দিন বলেন, প্রথম কর্মদিবসে উপস্থিতি কম। যারা বাড়তি ছুটি নিয়েছেন তারা রোববার থেকে কাজে যোগ দেবেন। অনেকটা একই রকম কথা বললেন আগ্রাবাদ জীবনবীমা করপোরেশনের কর্মকর্তা আকতার কামাল চৌধুরী। তিনি বলেন, প্রায় প্রতি ঈদের ছুটির শেষে এ রকম ফাঁকা থাকে। অনেকে দূর-দূরান্তের বাড়িতে ঈদ করতে যেতে- আসতেই সময় চলে যায়। তাই তারা বাড়তি ছুটি নিয়ে দুয়েকদিন পরে কাজে যোগ দেন। এবারও তাই ঘটেছে।


আপনার মন্তব্য