শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৮ অক্টোবর, ২০১৯ ২৩:২৬

জাবিতে উপাচার্যের অপসারণ দাবিতে ধর্মঘট অব্যাহত

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

জাবিতে উপাচার্যের অপসারণ দাবিতে ধর্মঘট অব্যাহত

দুর্নীতির অভিযোগে উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের অপসারণ দাবিতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের একাংশের ডাকা চলমান আন্দোলনে অচলাবস্থা বিরাজ করছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) প্রশাসনিক ও একাডেমিক কার্যক্রম। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত লাগাতার অবরোধ কর্মসূচির দ্বিতীয় দিনে গতকাল ছিল সর্বাত্মক ধর্মঘট। সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত চলে কর্মসূচি। আজও সর্বাত্মক ধর্মঘট অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছে আন্দোলনকারীরা। গতকাল নতুন ও পুরনো প্রশাসনিক ভবন, কলা ও মানবিকী এবং সমাজবিজ্ঞান অনুষদ ভবনের প্রধান ফটকে তালা দেয় আন্দোলনকারীরা। ফলে অবরোধ কার্যক্রমের কারণে উপাচার্যসহ কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অফিসে প্রবেশ করতে পারেননি। বন্ধ ছিল সব ধরনের দাফতরিক কার্যক্রম। অধিকাংশ বিভাগে নির্ধারিত ক্লাস-পরীক্ষাও হয়নি। সরেজমিন দেখা যায়, কলা ও মানবিকী অনুষদ ভবন এবং সমাজবিজ্ঞান অনুষদ ভবনের প্রবেশ ফটকে অবস্থান নিয়ে শিক্ষকদের ভিতরে যেতে দিলেও শিক্ষার্থীদের প্রবেশে বাধা দিয়েছে আন্দোলনকারীরা। তবে উপাচার্যকে সমর্থনকারী কয়েকজন শিক্ষক আন্দোলন         উপেক্ষা করেই ক্লাস নিয়েছেন বলে জানা গেছে। অপরদিকে ধর্মঘটের কারণে ভবনে প্রবেশ করতে না পারায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পাদদেশে একটি অনুশীলনী পরীক্ষা নিয়েছেন ইতিহাস বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক আরিফা সুলতানা। এদিকে চলমান আন্দোলনে প্রশাসনিক ও একাডেমিক কার্যক্রম বন্ধ থাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বার্থ বিঘিœত হচ্ছে জানিয়ে আন্দোলনকারীদের আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা নিরসনের আহ্বান জানিয়েছে উপাচার্যপন্থি শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সম্মিলিত সংগঠন ‘অন্যায়ের বিপক্ষে ও উন্নয়নের পক্ষে জাহাঙ্গীরনগর’। বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগও একই দাবি জানিয়েছে। আন্দোলনকারী পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক জামাল উদ্দিন রুনু বলেন, ‘উপাচার্যের অপসারণ না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাব। আমরা আমাদের যৌক্তিক আন্দোলন অব্যাহত রাখব। বিশেষ স্বার্থবাদী গোষ্ঠী ছাড়া কোনো শিক্ষক-শিক্ষার্থীই চায় না তাদের অভিভাবক (উপাচার্য) দুর্নীতিগ্রস্ত হোক। এ জন্যই উপাচার্যের অপসারণ জরুরি।’ প্রসঙ্গত, জাবিতে চলমান সাড়ে ১৪শ কোটি টাকার অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্প থেকে শাখা ছাত্রলীগকে দুই কোটি টাকা ঈদ সেলামি দেওয়ার অভিযোগ উঠে উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলামের বিরুদ্ধে। এরপর তিন মাস ধরে উপাচার্যের অপসারণের দাবিতে লাগাতার আন্দোলন কর্মসূচি চালিয়ে আসছে ছাত্র ইউনিয়ন, ছাত্রফ্রন্ট, সাংস্কৃতিক জোটসহ বাম, আওয়ামী লীগ ও বিএনপিপন্থি শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সমন্বয়ে গড়ে ওঠা সংগঠন ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’।


আপনার মন্তব্য

close