শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২৩ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২২ নভেম্বর, ২০১৯ ২৩:১৫

পশ্চিমাঞ্চল ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয়

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী

পশ্চিমাঞ্চল ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয়

রাজশাহী থেকে ছেড়ে যাওয়া ধূমকেতু ট্রেনের সময় ছিল রাত ১১টা ২০ মিনিট। কিন্তু গতকাল রাতে ট্রেনটি ঢাকার উদ্দেশে রওনা হয় রাত ৪টা ১০ মিনিটে। ট্রেনটির এই ৫ ঘণ্টা দেরি হওয়ায় চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়ে যাত্রীরা। শুধু ধূমকেতু ট্রেন নয়, রাজশাহী থেকে ছেড়ে যাওয়া পশ্চিমাঞ্চলের সব ট্রেনই ৪-৫ ঘণ্টা করে শিডিউল বিপর্যয়ে পড়েছে। ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যাওয়া বনলতা, সিল্কসিটি, পদ্মা ও একতা এক্সপ্রেস, খুলনার উদ্দেশে কপোতাক্ষ ও সাগরদাড়ি এক্সপ্রেস, নীলফামারীর উদ্দেশে বরেন্দ্র এক্সপ্রেস, চিলাহাটির তিতুমীর এক্সপ্রেস, গোয়ালন্দঘাটের উদ্দেশে ছেড়ে যাওয়া মধুমতি এক্সপ্রেসসহ  কোনো ট্রেনই নির্ধারিত সময়ে স্টেশনে পৌঁছাচ্ছে না। রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ বলছেন, সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় ট্রেন দুর্ঘটনার পর থেকেই ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয় শুরু হয়েছে। ধূমকেতু ট্রেনের যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ট্রেনের শুধু যাত্রা বিলম্ব নয়, ট্রেনটি ঢাকায়ও নির্ধারিত সময়ে পৌঁছায়নি। সাধারণত ছয় ঘণ্টার মধ্যেই রাজশাহী থেকে ঢাকায় ট্রেন পৌঁছায়। কিন্তু আজকের (গতকাল) এই ধূমকেতু ট্রেনটি পৌঁছাতে সময় লেগেছে ৮ ঘণ্টা। এ বিষয়ে ট্রেনটির পরিচালক কাজী শাহনেওয়াজ জানান, সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় ট্রেন দুর্ঘটনার পর থেকে ট্রেনের   গতি কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। বিভিন্ন লাইনে ট্রেনের গতি বিভিন্ন রকম করা হয়েছে। সর্বোচ্চ গতি নির্ধারণ করা হয়েছে ৬০ কিলোমিটার। অথচ আগে প্রায় ৮০ কিলোমিটার গতিতে ট্রেনগুলো চলাচল করত। এ কারণে ট্রেনগুলো নির্ধারিত সময়ে পৌঁছাতে কিছুটা বিলম্ব হচ্ছে। শিডিউল বিপর্যয় বিষয়ে জানতে চাইলে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের জিএম মিহির কান্তি গুহ জানান, উল্লাপাড়ায় ট্রেন দুর্ঘটনার পর থেকেই সব টেনের কিছুটা শিডিউল বিপর্যয় ঘটে। প্রথমে এই বিপর্যয় এক থেকে দেড় ঘণ্টা ছিল। ধীরে ধীরে এই শিডিউল বিপর্যয় এখন মারাত্মক অবস্থায় পৌঁছেছে। সমস্যা সমাধানে কাজ চলছে। আশা করছি এক সপ্তাহের মধ্যে ট্রেনগুলো স্বাভাবিক শিডিউলে চলাচল করতে পারবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর