শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২৬ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৫ জানুয়ারি, ২০২০ ২৩:৪০

কুমিল্লায় প্রধান বিচারপতি

অ্যাড. আহমেদ আলী আমার শিক্ষক ছিলেন

কুমিল্লা প্রতিনিধি

রাজনীতিবিদ, বিশিষ্ট ভাষা সৈনিক, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক এবং বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর অ্যাডভোকেট আহমেদ আলীর আত্মার মাগফিরাত কামনায় গতকাল তার কুমিল্লা নগরীর বাসায় দোয়ার আয়োজন করা হয়। তার বাগিচাগাঁও স্মৃতি কুটির বাসায় আয়োজিত দোয়ার অনুষ্ঠানে যোগ দেন বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। তিনি   অনুষ্ঠান শেষে শোক বইয়ে মন্তব্যে  লেখেন, ‘জনাব আহমেদ আলী কুমিল্লার একজন খ্যাতিমান আইনজীবী ছিলেন। তিনি আমার শিক্ষক ছিলেন ও আমার পিতার ঘনিষ্ঠ বন্ধু ছিলেন। তিনি মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ছিলেন। গণপরিষদের সদস্য হিসেবে তিনি বাংলাদেশের সংবিধান প্রণয়নের সঙ্গে জড়িত ছিলেন। তার মৃত্যু দেশের জন্য অপূরণীয় ক্ষতি। আমি তার বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করি।’ অনুষ্ঠানে আরও যোগ দেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট সৈয়দ রেজাউর রহমান, তার স্ত্রী গণপরিষদের সাবেক সদস্য মমতাজ বেগম, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুল মতিন খসরু এমপি, আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার এমপি, এবাদুল করিম বুলবুল এমপি, আঞ্জুম সুলতানা সীমা এমপি, জেলা ও দায়রা জজ মো. আতাবুল্লাহ, জেলা প্রশাসক মো. আবুল ফজল মীর ও পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম প্রমুখ। উল্লেখ্য, অ্যাডভোকেট আহমেদ আলী প্রোস্টেট ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে গত ১১ জানুয়ারি রাতে ৯৭ বছর বয়সে রাজধানীর এ্যাপোলো হসপিটালে ইন্তেকাল করেন। ১৯৭০ সালে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের গণপরিষদ নির্বাচনে বৃহত্তর কুমিল্লা-৫ আসনের (বর্তমানে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫) এমএলএ নির্বাচিত হন। যেটা ১৯৭১ সালে এমসিএতে রূপান্তরিত হয়। বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ এ সহচর ১৯৫৩ সালে বৃহত্তর কুমিল্লা জেলা ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ছিলেন। তিনি বাংলাদেশ আইনজীবী সমিতির প্রথম নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান ছিলেন।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর