শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ২৩:২২

খুলনায় শনাক্তের হার কমলেও বাড়ছে ঝুঁকি

আক্রান্তরা বেশির ভাগই অক্সিজেন সাপোর্টে

সামছুজ্জামান শাহীন, খুলনা

খুলনায় করোনার নমুনা পরীক্ষা ও শনাক্তের হার তুলনামূলক কমেছে। তবে বর্তমানে যারা আক্রান্ত হচ্ছেন তাদের শারীরিক জটিলতা অনেক বেশি বলে দাবি করছেন চিকিৎসকরা। বেশির ভাগ রোগীর জন্য প্রয়োজন হচ্ছে হাই ফ্লো অক্সিজেট সাপোর্ট। পাশাপাশি বাড়ছে মৃত্যু সংখ্যাও। বিশ্লেষকরা বলছেন, সচেতনতা কমে আসায় পরিবারের বয়স্করা করোনায় বেশি আক্রান্ত হচ্ছেন। এদের মধ্যে আগে থেকেই যারা অ্যাজমা, শ্বাসকষ্ট, ডায়াবেটিস, কিডনি বা এ ধরনের রোগে ভুগছেন তারা মুহূর্তে জটিল অবস্থায় চলে যাচ্ছেন। জানা যায়, ১০০ শয্যার খুলনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে গতকাল মাত্র ২৭ জন করোনা রোগী ভর্তি ছিল। তবে এদের মধ্যে ১০ জনকেই আইসিইউতে অক্সিজেন সাপোর্ট দিতে হয়েছে। চিকিৎসকরা বলছেন, আগে চিকিৎসা নেওয়া ৯৫-১০০ জন রোগীর মধ্যে মাত্র ৮-৯ জনকে হাই ফ্লো অক্সিজেন দেওয়া হতো। বাকিরা সাধারণ চিকিৎসায় সুস্থ হয়েছে। তবে এখন ভর্তি থাকা ২৫-৩০ জন রোগীর মধ্যে গড়ে ১০ জনকেই অক্সিজেন সাপোর্ট দিতে হচ্ছে। খুলনা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. মো. আবদুল আহাদ বলেন, খুলনায় শনাক্তের হার কমলেও সিভিআর অ্যাটাক (জটিলতা ঝুঁকি) বাড়ছে। করোনা আক্রান্ত বয়স্করা মূহূর্তেই ঝুঁকিতে চলে যাচ্ছে। তাদের ব্রেন বা শরীরের অঙ্গপ্রত্যঙ্গে অক্সিজেন সরবরাহ দ্রুত কমে যাচ্ছে। ফলে নানান ধরনের উপসর্গ তাদের মধ্যে তৈরি হচ্ছে। সিভিল সার্জন অফিসের তথ্য অনুযায়ী, জেলায় এ পর্যন্ত করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৯৩ জনের। এর মধ্যে গত ৩০ আগস্ট চিকিৎসাধীন মাত্র ৮৪ জন রোগীর মধ্যে ৫ জন ও ৫ সেপ্টেম্বর ৬৫ জন রোগীর মধ্যে ৪ জন মারা যায়। তবে খুলনায় করোনা চিকিৎসা সমন্বয়ক ডা. মেহেদী নেওয়াজ বলেন, বর্তমানে প্রায় ৮৫ ভাগ রোগী হাসপাতালে আসছেন না। তারা বাড়িতে বসেই সেবা নিচ্ছেন। বাকি ১৫ ভাগ রোগী ভর্তি হচ্ছেন। যার মধ্যে ৫ ভাগ রোগীর আইসিইউ সেবা লাগছে। যারা মুমূর্ষু রোগী তারাই হাসপাতালে ভর্তি হওয়ায় আইসিইউ বেড পূর্ণই থাকছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর