শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৪ ডিসেম্বর, ২০২০ ২৩:৩৪

চট্টগ্রামে ফের সক্রিয় মাদক ব্যবসায়ীরা

তবে পুলিশ বলছে, তারা জিরো টলারেন্সে

মুহাম্মদ সেলিম, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামে মাদক মাফিয়াদের বিরুদ্ধে অভিযানে ভাটা পড়েছে। গত কয়েক মাসে পরিচালিত হয়নি কোনো অভিযান। ফলে ফের সক্রিয় হয়ে উঠেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রাণালয় ও বিভিন্ন সংস্থার তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ীরা। এলাকায় ফিরে এসে তারা অপ্রতিরুদ্ধ হয়ে উঠেছে। চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘অতীতের মতো এখনো মাদক নিয়ে পুলিশের অবস্থা জিরো টলারেন্স। শিগগিরই মাদকবিরোধী অভিযান জোরদার করা হবে। তালিকাভুক্ত এবং তালিকার বাইরে থাকা সব মাদক ব্যবসায়ী ও তাদের পৃষ্ঠপোষকদের গ্রেফতারের আওতায় আনা হবে।’ চট্টগ্রাম মেট্রো মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামান বলেন, ‘তালিকায় যাদের নাম রয়েছে তাদের অনেকেই আগের ঠিকানায় অবস্থান করছে না। তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান চালালেও ঠিকানা পরিবর্তনের কারণে তাদের  খোঁজ মিলছে না। তারপরও চেষ্টা রয়েছে তাদের গ্রেফতারের আওতায় আনার।’ জানা যায়, চট্টগ্রাম নগরী ও জেলায় প্রশাসনের বিভিন্ন সংস্থার তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী রয়েছে ১ হাজারের ওপর। তার মধ্যে ৪২৯ জনের নাম রয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের করা মাদক ব্যবসায়ীর তালিকায়। তিন ক্যাটাগরিতে মাদক ব্যবসায়ীদের ওই তালিকা করা হয়। তালিকায় থাকা চট্টগ্রাম জেলার মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে ৭৪ জনের নাম তালিকাভুক্ত হয় মাদক ব্যবসায়ী হিসেবে, ৩৬ জনের নাম তালিকাভুক্ত করা হয় পৃষ্ঠপোষক ও আশ্রয়-প্রশ্রয়দানকারী এবং ১০ জনের নাম তালিকাভুক্ত হয় মাদক ব্যবসায়ী সহায়তাকারী পুলিশ সদস্য হিসেবে। নগরীতে তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী ২৭৯ জন, পৃষ্ঠপোষক ও আশ্রয় প্রশ্রয়দানকারী ১০ জন এবং মাদক ব্যবসায়ী সহায়তাকারী পুলিশ সদস্য ২০ জন। তালিকায় থাকা মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে রয়েছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের চাকরিজীবী, জনপ্রতিনিধি ও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। পৃষ্ঠপোষক ও আশ্রয়-প্রশ্রয়দানকারীদের সবাই রাজনৈতিক দলের প্রভাবশালী নেতা ও জনপ্রতিনিধি। এরই মধ্যে মাদক ব্যবসায়ীদের সহায়তাকারী পুলিশ সদস্যের মধ্যে কয়েকজনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হলেও বাকিরা রয়েছেন বহাল তবিয়তে। তালিকা তৈরির পর তাদের বিরুদ্ধে সাঁড়াশি অভিযান শুরু হলে এলাকা ছাড়া হয় সিংহভাগ মাদক ব্যবসায়ী। বর্তমানে প্রশাসনের শিথিলতার সুযোগে ফের এলাকায় সক্রিয় হয়েছে তারা।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর