শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৫ এপ্রিল, ২০২১ ২২:৫৮

নারীকে শিকলে বেঁধে নির্যাতন, পুলিশ পাঠাল জেলে

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট

Google News

প্রেমিক বিয়ে করায় রুষ্ট পরকীয়া প্রেমিকা। প্রেমিকের বাড়ি গিয়ে তিনি শুরু করেন চিৎকার-চেঁচামেচি। প্রেমিকার এমন আস্ফালনে বিব্রত প্রেমিক পরিবারের সদস্যরা। শিকল দিয়ে তাকে বেঁধে রাখেন ঘরের খুঁটিতে। পরে খবর দেওয়া হয় পুলিশে। পুলিশ এসে প্রেমিকাকে নিয়ে যায় থানায়। এরপর প্রেমিকের পরিবারের দায়ের করা মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে গত বুধবার তাকে পাঠানো হয় জেলে। ঘটনাটি ঘটেছে সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলার কাজলসার ইউনিয়নের কামালপুর গ্রামে। স্থানীয়রা জানান, কামালপুর গ্রামের নিজাম উদ্দিনের ছেলে জাকারিয়া আহমদের সঙ্গে কয়েক বছর ধরে ওই গ্রামের প্রবাসী আফতাব উদ্দিনের স্ত্রী ফারহানা বেগমের পরকীয়া চলে আসছিল। গত মঙ্গলবার জাকারিয়া বিয়ে করে বউ আনেন ঘরে। এতে রুষ্ট ফারহানা রাত ৮টার দিকে জাকারিয়ার বাড়িতে গিয়ে শোরচিৎকার শুরু করেন। এ সময় জাকারিয়ার পরিবারের লোকজনের সঙ্গে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়। এক পর্যায়ে ফারহানাকে ঘরের খুঁটির সঙ্গে শিকল দিয়ে বেঁধে তালা মেরে রাখা হয়।

খবর পেয়ে থানা পুলিশ আসে এবং ফারহানা বেগমকে উদ্ধার করে নিয়ে যায়। পরে জাকারিয়ার ফুফু বাদী হয়ে ফারহানার বিরুদ্ধে মারধরের অভিযোগ এনে মামলা করেন। এ মামলায় পুলিশ ফারহানাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে।

এদিকে, এ ঘটনায় স্ত্রীকে মারধরের অভিযোগে ফারহানার স্বামী আফতাব উদ্দিন থানায় পাল্টা মামলা করেছেন। মামলায় জাকারিয়াসহ তার পরিবারের কয়েকজনকে আসামি করা হয়েছে। তিনি জানান, তিনি বিদেশে থাকাবস্থায় জাকারিয়া তার স্ত্রীকে বাজারসদাই এনে দিত। এ থেকে সে অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে তুলে মোবাইল ফোনে আপত্তিকর ভিডিও ধারণ করে। পরে এসব ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে অনেক টাকা-পয়সা হাতিয়ে নিয়েছে।

জকিগঞ্জ থানার ওসি মো. আবুল কাসেম জানান, ফারহানার স্বামীর করা মামলার আসামিদের ধরতে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

এই বিভাগের আরও খবর