রবিবার, ৯ মে, ২০২১ ০০:০০ টা

স্বপ্ন পূরণের পথে খুলনায় শেখ হাসিনা মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা

স্বপ্ন পূরণের পথে খুলনায় শেখ হাসিনা মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়

ঢাকার বাইরে চট্টগ্রাম রাজশাহী সিলেটে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়গুলো শুধুমাত্র একাডেমিক কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণ করে। এসব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে দীর্ঘদিনেও সংযুক্ত স্বাস্থ্যসেবা চালু হয়নি। ফলে খুলনা শেখ হাসিনা মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়েও একই সঙ্গে শিক্ষা, গবেষণা চিকিৎসা সেবা চালু নিয়ে শঙ্কা ছিল। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ডা. মোহাম্মাদ মাহবুবুর রহমান বলেছেন, এখানে একাডেমিক কার্যক্রমের সঙ্গে সঙ্গে ৫০০ শয্যার হাসপাতালের পরিকল্পনা রয়েছে। যেখানে দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের উন্নত চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করা যাবে। এতে আশার আলো দেখছে এ অঞ্চলের স্বাস্থ্যসেবা বঞ্চিত সাধারণ মানুষ।

জানা যায়, শেখ হাসিনা মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়নে উপাচার্য গত দুই দিনে খুলনা সিটি মেয়র, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব, বিভাগীয় কমিশনার ও জেলাপ্রশাসকের সঙ্গে বৈঠক করেন। এ ছাড়া তিনি লবণচরা থানা এলাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অবকাঠামো নির্মাণের সম্ভাব্য জায়গা পরিদর্শন করেন। সিটি মেয়র তালুকদার আবদুল খালেক বলেন, ‘মেডিকেল শিক্ষায় গবেষণা ও উচ্চশিক্ষায় শেখ হাসিনা মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। আমরা চাই একাডেমিক কার্যক্রমের পাশাপাশি একই সঙ্গে গবেষণা ও চিকিৎসা সেবা চালু হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যসহ সংশ্লিষ্টরা আন্তরিক থাকলে সবকিছুই সম্ভব।’

জানা যায়, ২০১৯ সালে জেলা প্রশাসক সম্মেলনে খুলনার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন খুলনায় ‘শেখ হাসিনা মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়’ স্থাপনের প্রস্তাব দেন। এর ধারাবাহিকতায় মন্ত্রিসভার বৈঠকে ‘শেখ হাসিনা মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা আইন ২০২০’ নীতিগত অনুমোদন হয়। যাচাই বাছাই শেষে গত ১ ফেব্রুয়ারি সংসদে তা বিল আকারে পাস হয়।

এদিকে খুলনা মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. মেহেদী নেওয়াজ বলেন, ‘ঢাকা বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো আমরা চাই এখানে বিশাল একটা হাসপাতাল হবে। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকে ভরে যাবে। এ অঞ্চলের মানুষের কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হবে। যেখানে বিভিন্ন রোগ নিয়ে গবেষণা হবে। কিন্তু দেশের চট্টগ্রাম রাজশাহী সিলেটের উদাহরণ তা বলে না। এখনো শুধুমাত্র একাডেমিক কারিকুলাম সেখানে পরিচালিত হয়। আমরা এটা চাই না। খুলনা মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে একাডেমিক কার্যক্রম ও স্বাস্থ্য সেবা একই সঙ্গে শুরু হলে আমাদের প্রত্যাশা পূরণ হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর