শিরোনাম
শনিবার, ১১ জুন, ২০২২ ০০:০০ টা
বাজেট প্রতিক্রিয়া

আওয়ামী লীগ ও বিএনপির বিপরীতমুখী অবস্থান

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী

ঘোষিত বাজেট নিয়ে বিপরীতমুখী অবস্থানে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি। আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সিটি মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন এই বাজেটকে করোনা-পরবর্তী উন্নয়নের ধারাবাহিকতা ধরে রাখার সহায়ক বাজেট বলে মনে করেন। আর বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু এই বাজেটকে সরকারি দলের নেতাদের পকেট ভর্তির বাজেট বলে অভিহিত করেছেন। গণমাধ্যমে পাঠানো বাজেট-পরবর্তী প্রতিক্রিয়ায় আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সিটি মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, বাজেটে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ, কৃষি খাত, স্বাস্থ্য, মানবসম্পদ, কর্মসংস্থান ও শিক্ষা, পরিবহন ও যোগাযোগ, সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতা সম্প্রসারণ, ক্ষতিগ্রস্ত শিল্প, ব্যবসা-বাণিজ্য পুনরুদ্ধারের বিষয়ে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। আগামী অর্থবছরে সর্বজনীন পেনশন চালুর সিদ্ধান্তটি বাংলাদেশের ইতিহাসে মাইলফলক। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী ও সুযোগ্য নেতৃত্বে এই বাজেটে উন্নয়ন ধারাবাহিকতা ও দেশের মানুষের জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন এবং করোনা মহামারি-পরবর্তী অর্থনৈতিক গতিশীলতা বজায় রেখে ভবিষ্যতের কাক্সিক্ষত জায়গায় দেশ পৌঁছে যাবে। গতকাল সকালে পদ্মা আবাসিক এলাকার নিজ বাড়িতে গণমাধ্যমকে দেওয়া বাজেট-পরবর্তী প্রতিক্রিয়ায় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু বলেছেন, এই বাজেট মূলত সরকারি দলের নেতা-কর্মীদের পকেট ভরানোর বাজেট। এমন কিছু প্রকল্প আছে, যা অর্ধেক টাকায় করা যায়, অথচ দেখা যাচ্ছে বিশাল অঙ্কের বাজেট। বিশেষ করে রাশিয়া ও চীনের সঙ্গে যে চুক্তিগুলো আছে, সেই চুক্তিগুলোর ৫০ ভাগই চুরি হয়। তাই আমি মনে করি এই বাজেটে জনগণের ভাগ্যের কোনো পরিবর্তন হবে না। বাংলাদেশের ৯০ ভাগ মানুষ আরও গরিবই শুধু নয়, নিঃস্ব হবে এবং দুর্ভিক্ষ-হাহাকার সৃষ্টির মধ্য দিয়ে আগামী দিনে দেশ আরও সংকটে পড়বে।

এই বাজেট দিয়ে জনগণকে রক্ষা করার কোনোই সুযোগ রাখা হয়নি।

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর