শিরোনাম
প্রকাশ : ৬ মার্চ, ২০২১ ০৫:৪৭
প্রিন্ট করুন printer

বিবিসি বাংলার প্রতিবেদন

করোনাভাইরাস: যেসব কারণে গরমকালে সংক্রমণ বাড়তে পারে

অনলাইন ডেস্ক

করোনাভাইরাস: যেসব কারণে গরমকালে সংক্রমণ বাড়তে পারে

বাংলাদেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের দৈনিক শনাক্তের হার গত মাসে ৩০০’র ঘরে নেমে এলেও গত চারদিন ধরে তা ৬০০’র উপরে উঠে গেছে। তবে আসন্ন গরমে ভাইরাসের এই প্রকোপ আরও বাড়বে বলে আশঙ্কা বিশেষজ্ঞদের।

গত এক সপ্তাহ ধরেই সংক্রমণের হার ধীরে ধীরে বাড়তে দেখা যাচ্ছে। করোনার টিকা চলে আসার পর স্বাস্থ্যবিধি মানার ক্ষেত্রে মানুষের শিথিলতা চলে আসায় এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। তবে এখন সতর্ক না হলে টিকা আসার পরেও পরিস্থিতি আবার খারাপ হতে পারে বলে মনে করছেন বিষেশজ্ঞরা।

ধারণা করা হয়েছিল, শীতকালে ভাইরাসের প্রকোপ আরও বাড়বে। কিন্তু বাস্তবে দেখা যায় উল্টো। বাংলাদেশে ইনফ্লুয়েঞ্জায় আক্রান্ত হওয়ার প্রবণতা শীতকালে নয় বরং গরমকালেই বেশি থাকে বলে জানিয়েছেন জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ বে নজির আহমেদ।

করোনাভাইরাস ও ইনফ্লুয়েঞ্জার বৈশিষ্ট্য যেহেতু এক রকম। তাই এবারের গরমেও ভাইরাসের প্রকোপ বাড়তে পারে বলে তিনি আশঙ্কা করছেন।

অন্যদিকে, ইউরোপের দেশগুলোয় শীতকালে করোনাভাইরাসের প্রকোপ বেড়ে যাওয়ার পেছনে হিটার ব্যবহারকে বড় কারণ মনে করা হয়।

কিন্তু বাংলাদেশে শীতকালে যে তাপমাত্রা পড়ে, সেখানে হিটার ব্যবহারের তেমন প্রয়োজন হয় না। তবে গরমকালে এখানে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত যন্ত্র ও ছোট ঘরে ফ্যান চালানোর প্রবণতা রয়েছে।

এসব ক্ষেত্রে একই বাতাস সঞ্চালিত হওয়ায় বাংলাদেশে গরমকালেই সংক্রমণের আশঙ্কা বেশি বলে জানিয়েছেন জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ মোস্তাক হোসেন।

তিনি বলেন, গরমকালে অনেকেই বাসায় বা কর্মস্থলে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত যন্ত্র ব্যবহার করে, ছোট ঘরে বৈদ্যুতিক পাখা ব্যবহার করে। দুটি ক্ষেত্রেই একই বাতাস পুরো জায়গা জুড়ে বারবার সঞ্চালিত হওয়ায় ওই ঘরে কেউ করোনাভাইরাস পজিটিভ থাকলেও অন্যদেরও সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি থাকে।

‘তাই আমাদের দেশে গরমকালেই সংক্রমণ বাড়ার আশঙ্কা বেশি। কারণ আমাদের অল্প জায়গায় বেশি মানুষ থাকে, সবাই শীতলীকরণযন্ত্র ব্যবহার করে’, বলেন তিনি।

এদিকে, জানুয়ারি থেকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ কমে আসা, বিশেষ করে দেশব্যাপী করোনার টিকা দেওয়া শুরু হওয়ায় জনমনে স্বস্তি দেখা দেয়।

সেই জায়গা থেকে মানুষের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মানার ক্ষেত্রে শিথিলতা দেখা যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক নাসিমা সুলতানা।

তিনি জানান, মানুষ এবার ছুটির দিনগুলোয় বিভিন্ন পর্যটন স্থানে ভিড় করেছে, সামাজিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, সভা-সমাবেশে যেতে শুরু করেছে।

সেখানে সামাজিক দূরত্ব তো দূরের কথা, অনেকে মাস্ক ব্যবহার না করছেন না। এসব কারণে সংক্রমণ বাড়তে শুরু করেছে, যা সামনে আরও বাড়বে বলে তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

তিনি জানান, করোনাভাইরাসের টিকা এলেও দেশের বড় সংখ্যক জনগোষ্ঠীকে দুটি ডোজ টিকা না দেওয়া পর্যন্ত ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা থেকেই যায়।

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর