Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper

শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:১৪

শিশুর সাহসিকতায় বেঁচে গেল ১০ প্রাণ

পাবনা প্রতিনিধি

শিশুর সাহসিকতায় বেঁচে গেল ১০ প্রাণ

সুমন হোসেন। বয়স ১২ বছর। এতটুকু শিশুর উপস্থিত বুদ্ধিমত্তায় বাঁচল দশ প্রাণ। চলনবিলে নৌকা ডুবতে দেখে তাত্ক্ষণিক পানিতে নেমে সুমন একে একে উদ্ধার করে দশজনকে। এই সাহসিকতার জন্য ‘বীর’ উপাধি দিয়ে তাকে পুরস্কৃত করেছেন জেলা প্রশাসক। সুমন পাবনার চলনবিল অধ্যুষিত হান্ডিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র ও হান্ডিয়াল পাইকপাড়া গ্রামের আব্দুস সামাদ-সুফিয়া সম্পতির ছেলে। গত শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে সুমন বিলের মধ্যে ডিঙ্গি নৌকা নিয়ে প্রতিবেশী এক চাচাকে জোলা পাড় করে বাড়ি ফিরছিল। এমন সময় তার পাশেই যাত্রীবোঝাই একটি নৌকা ডুবে যায়। ডুবে যাওয়া যাত্রীদের চিৎকার শুনে সুমন এগিয়ে গিয়ে সবাইকে তার নৌকা ধরতে বলে এবং নৌকা ধরা অবস্থায় তাদের বিলের পাড়ে নিয়ে আসে। প্রাণে বেঁচে যান তারা। পরে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিদেরও উদ্ধার কাজে সহায়তা করে সুমন। সুমন জানায়, তার ছোট নৌকাটি দিয়ে ১০ জনকে উদ্ধার করতে পারায় সে খুশি।

সে আরও জানায়, ঘটনার সময় যাত্রীরা নৌকার মাচার (ছই) উপর দাঁড়িয়ে সেলফি তুলতে গেলে মাচা ভেঙে যায়। এ সময় তারাহুড়ো করে মাচা থেকে নামতে গিয়ে নৌকাটি কাৎ হয়ে ডুবে যায়।

সুমনের বাবা কৃষক আব্দুস সামাদ ছেলের এমন সাহসিকতায় খুশি। বলেন, ‘ছেলে বড় হয়েও যেন এ আদর্শ ধরে রাখতে পারে। যদিও আমরা গরিব, তবে ছেলের এমন কাজ দেখে সব দুঃখ কষ্ট ভুলে গেছি।’ দেশের সব সন্তানই যেন এ ধরনের কাজে এগিয়ে আসে সেটাই প্রত্যাশা তার। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ব্যবসায়ী হুমায়ুন কবির বলেন, ‘শুক্রবার সন্ধ্যায় চলনবিলের পাইকপাড়ায় নৌকা ডুবির ঘটনায় শত শত মানুষ ভিড় করে। এ সময় সবাইকে অবাক করে সুমন ছোট ডিঙ্গি নৌকা নিয়ে উদ্ধার তৎপরতায় ঝাঁপিয়ে পড়ে। তার সহায়তায় একে এক উদ্ধার হয় ১০ যাত্রী। সুমনের এমন সাহসিকতা বড়দের জন্যও দৃষ্টান্ত। ওই এলাকার বাসিন্দা কলেজশিক্ষক জাকির সেলিম বলেন, ‘জীবন বাজি রেখে অন্যকে বাঁচাতে এগিয়ে আসা সুমন সবার জন্য অনুকরণীয় হয়ে থাকবে। হান্ডিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রজ্জাক বলেন, ‘আজকের শিশুই আগামীর ভবিষ্যত, সেটা আবারও প্রমাণ হলো।’ পাবনা জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিন জানান, সুমনের মতো সব শিশু যেন মানবিক কাজে এগিয়ে আসে এটাই তার প্রত্যাশা। প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার সন্ধ্যায় পাবনার চলনবিলে ২২ যাত্রী নিয়ে একটি নৌকা ডুবে যায়। এতে পাঁচজনের প্রাণহানি ঘটে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর