শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৬ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৫ আগস্ট, ২০১৯ ২৩:২৭

ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পুলিশের এক এসআই বিরুদ্ধে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দফতরি কাম নৈশপ্রহরীকে মারধর করে কানের পর্দা ফাটানোর অভিযোগ উঠেছে। পরে তাকে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা করেন পুলিশের ওই কর্মকর্তা। এ ব্যাপারে পুলিশ সুপারের কাছে গতকাল লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন নির্যাতনের শিকার ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদরের খাকচাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দফতরি উবায়দুল্লাহ। অভিযুক্ত এসআই জামিরুল তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ মিথ্যা বলে দাবি করেন।

বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এবং স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত শনিবার রাত ১০টার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার খাকচাইল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যান এসআই জামিরুলের নেতৃত্বে ৬ জনের একটি পুলিশ দল। তারা বিদ্যালয়ের দফতরির কক্ষের দরজায় টোকা দেয়। পরে বশির নামে কেউ আছে কিনা জানতে চায়। কেউ নাই বলার পরও তারা উবায়দুল্লাহর পকেটে হাত দেয়। পকেট হাতিয়ে কিছু না পেয়ে আবার বলে বাচ্চু নামে কেউ আছে কিনা। এরপর উবায়দুল্লাকে স্কুলের সব শ্রেণির দরজা খুলতে বলে জামিরুল ও তার সঙ্গীয় পুলিশ দল। কক্ষগুলোতে গিয়ে কাউকে না পেয়ে আবার উবায়দুল্লাহকে নিয়ে তার থাকার কক্ষে আসে। এ সময় তারা পকেট চেক করতে গিয়ে কয়েকটি ইয়াবা ট্যাবেলট কৌশলে ঢুকিয়ে দেয়। এরপরই জামিরুল তাকে বলে তুই ইয়াবা ব্যবসা করছ, আর কোথায় কোথায় ইয়াবা আছে বল। এ সব বলেই তাকে দুই কানে এবং মাথায় এলোপাতাড়ি মারধর করতে থাকে। উবায়দুল্লাহ জানান, তিনি এখন কানে শুনছেন না। তার চিকিৎসক এবিএম মুছা বলেন, ‘উবায়দুল্লাহর কানের আঘাত গুরুতর। পর্দা ফেটে গেছে।’


আপনার মন্তব্য