শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:১৬

রাস্তার পাশে ময়লার স্তূপ দুর্গন্ধে অতিষ্ঠ পৌরবাসী

বাবুল আখতার রানা, নওগাঁ

রাস্তার পাশে ময়লার স্তূপ দুর্গন্ধে অতিষ্ঠ পৌরবাসী

নওগাঁ শহরের কোমাইগাড়ী বাইপাস-ডিগ্রির মোড় সড়কের পাশে স্তূপ করে রাখা হয়েছে ময়লা। এর দুর্গন্ধে অতিষ্ঠ পথচারীসহ পৌরবাসী। স্থানীয়দের অভিযোগ অপরিকল্পিতভাবে দিনের পর দিন পৌরসভা থেকে ময়লা-আর্বজনা ফেলায় ভোগান্তির শেষ নেই। তাদের ভাষ্য ময়লার গন্ধে দূষিত হচ্ছে পরিবেশ। পথচারীদের চলতে হয় নাক ঢেকে। জানা যায়, ১৯৬৩ সালে গঠিত হয় নওগাঁ পৌরসভা। তখন পৌরসভা বলতে ছিল শহরের পার-নওগাঁ, হাট-নওগাঁ, উকিলপাড়া, মাস্টারপাড়া, চকদেবপাড়া, কালীতলা, ধর্মতলা, কাজীপাড়া ও বাঙ্গাবাড়িয়া। ১৯৮৯ সালে নতুন করে আরজি-নওগাঁ, চকবাড়িয়া, রজাকপুর, বোয়ালিয়া, জগৎসিংহ, বরুনকান্দি, শিবপুর, শেখপুরা, খালিশকুড়ি, ভবানীপুর, সুলতানপুর, কোমাইগাড়ি ও চকরামচন্দ গ্রাম পৌরসভার অন্তর্ভুক্ত করা হয়। প্রায় দুই লক্ষাধিক লোকের এই শহরে অনেক আগে থেকেই পৌর বর্জ্য ছোট যমুনা নদীর তীর রক্ষাবাঁধের রাস্তা ডিগ্রির মোড়-বাইপাস সড়কের পাশে ফেলা হচ্ছে। বর্জ্য ফেলার ওই স্থানের এক পাশে নদী অন্য পাশে আবাসিক এলাকা। এখান থেকে ৫০০ মিটার দক্ষিণে নওগাঁ পলিটেকনিক ও নওগাঁ সরকারি কলেজ। এর অদূরেই নওগাঁ সরকারি মেডিকেল কলেজ। দুর্গন্ধের কারণে সড়কটি দিয়ে চলাচল করতে দুর্ভোগ পোহাতে হয় শিক্ষার্থী-পথচারীদের। কোমাইগাড়ী মহল্লার কয়েকজন বাসিন্দা জানান, অনেক দিন আগে থেকে এখানে ময়লা ফেলার কারণে আশপাশের পরিবেশ একেবারে নষ্ট হয়ে গেছে। কোনো মানুষের পক্ষে স্বাভাবিকভাবে নিঃশ্বাস নিয়ে এ রাস্তা পার হওয়া সম্ভব নয়। স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর এসএম রাশিদুল আলম সাজু বলেন, এ জায়গা ছাড়া পৌরসভার ময়লা ফেলার অন্য কোনো জায়গা নেই। তাই পৌরসভা বাধ্য হয়ে এখানে ময়লা ফেলছে। অল্পদিনের মধ্যে এখানকার ময়লা থেকে জৈব সার তৈরির কারখানা স্থাপন করা হবে। জমির এক মালিক হাই কোর্টে রিট করায় কাজটি শুরু হতে দেরি হচ্ছে। পৌর মেয়র নজমুল হক সনি বলেন, ‘একটি বিদেশি দাতা সংস্থার অর্থায়নে পৌরসভার পয়ঃনিষ্কাশন বর্জ্যর বিজ্ঞানসম্মত ব্যবস্থাপনা, বর্জ্য পরিবহনে আধুনিক ব্যবস্থাপনা ও পরিশোধানাগার নির্মাণ প্রকল্প ইতিমধ্যে অনুমোদন হয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর