শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৭ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৬ মার্চ, ২০২১ ২৩:২৩

চাঁদপুরে দৃষ্টিনন্দন বঙ্গবন্ধু গেট

নেয়ামত হোসেন, চাঁদপুর

চাঁদপুরে দৃষ্টিনন্দন বঙ্গবন্ধু গেট
Google News

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে চাঁদপুরের প্রবেশদ্বার বাবুরহাটে দৃষ্টিনন্দন ‘বঙ্গবন্ধু গেট’ নির্মাণ করা হয়েছে। আজ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিনে ‘বঙ্গবন্ধু গেট’টি উদ্বোধন করা হবে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভার্চুয়ালি অংশ নেবেন বলে চাঁদপুরবাসীর প্রত্যাশা। জেলা পরিষদের সহকারী প্রকৌশলী ইকবাল হোসেন বলেন, বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্টের অনুমোদন সাপেক্ষে এই গেট নির্মাণ করা হচ্ছে। বঙ্গবন্ধু গেটের নকশা করেছেন স্থপতি ফুয়াদ হাসান তানভীর। জেলা পরিষদের নিজস্ব তহবিল থেকে ৭৫ লাখ টাকা ব্যয়ে এক বছর আগে এর নির্মাণ কাজ শুরু হয়। বর্তমানে গেটটি শেষ পর্যায়ে ধোয়ামোছার কিছু কাজ চলছে। নির্মাণ কাজ শেষ হলে এটি হবে কয়েকটি জেলার মধ্যে আকর্ষণীয় ও সুন্দর একটি গেট। জেলার প্রবেশদ্বারে এ ধরনের গেট জেলার সৌন্দর্য বৃদ্ধিসহ নান্দনিক করে তুলেছে। যা সড়কের দুই পাশ থেকেই দেখতে একই রকম মনে হবে। চাঁদপুর জেলা পরিষদ  চেয়ারম্যান ওচমান গণি পাটওয়ারী বলেন, গেটটি উদ্বোধনের অপেক্ষায় রয়েছে। গেটের দুই পাশে বঙ্গবন্ধুর চারটি ম্যুরাল আছে। এই গেটকে ঘিরে তুলে ধরা হয়েছে ১৯৬৬ সালের ৬ দফার গুরুত্ব। তখনই বাঙালি জাতি বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ হয়। জাতির পিতা তাঁর জীবনের যৌবনে বাঙালির অধিকার আদায় করতে গিয়ে ১৩ বছর কারাগারে অন্তরীণ ছিলেন। যা এই গেটে কারাগারের অবিকল প্রতিচ্ছবি দৃশ্যমানসহ তাঁর পাঁচ সন্তানকে নিয়ে পাঁচটি স্তম্ভ নির্মাণ করা হয়। তুলে ধরা হয়েছে তখনকার অবয়ব। ওপরের ছাদ (আচ্ছাদন) যা মাতৃছায়া। যা দ্বারা বঙ্গমাতা ফজিলাতুন নেছা মুজিবকে তুলে ধরা হয়েছে। জাতির পিতা কারান্তরীণ থাকাকালে বঙ্গমাতা সার্বক্ষণিক যোগাযোগ, নির্দেশনায় কর্মী ও সন্তানদের কাছে আন্দোলনে করণীয় পৌঁছে দেওয়ার দায়িত্ব পালন করেছেন। ওচমান গনি আরও বলেন, জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে এবার ব্যতিক্রম কিছু করার। যা নতুন প্রজন্মসহ সারা দেশের মানুষের কাছে দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। এই গেটটি দেখে বর্তমান ও আগামী প্রজন্ম শিক্ষা গ্রহণ করবে।