শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ৫ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৫ জুন, ২০২১ ০০:০১

৯ বছরের শিকলবন্দী জীবন

জয়পুরহাট প্রতিনিধি

৯ বছরের শিকলবন্দী জীবন
Google News

দরিদ্র কৃষক লুৎফর রহমানের তিন সন্তানের মধ্যে দ্বিতীয় রাসেল মাহমুদ। জন্ম ১৯৮১ সালে। ষষ্ঠ শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া করেছেন রাসেল। এরপর অভাবের সংসারে বড় ভাই উজ্জ্বল হোসেন হাত ধরে নাম লেখান কাঠমিস্ত্রি পেশায়। ১৪ বছর বয়সে পাল্টে যায় রাসেলের জীবন। তখন থেকে তিনি অস্বাভাবিক আচরণ শুরু করেন বলে জানান স্বজনরা। গত ৯ বছর ধরে শিকলবন্দী জীবন কাটাচ্ছেন রাসেল।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, কিশোর বয়সে অস্বাভাবিক আচরণ শুরু করলে রাসেলের চিকিৎসা চলে কবিরাজ দিয়ে। এতে তার আচরণের এতটুকু পরিবর্তন হয়নি। এ সময়ে পরিবারের লোকসহ প্রতিবেশীদের মারধর শুরু করেন। বাধ্য হয়ে পরিবার থেকে রাসেলের হাত-পা বাঁধা পড়ে শিকলে। এরপর ৯ বছর ধরে নিজ বাড়ির বাইরে গাছের সঙ্গে শিকলবন্দী জীবন কাটছে। রাসেল মাহমুদের মা জোসনা বেগম বলেন, মায়ের কাছে এটা যে কত কষ্টের তা কাউকে বোঝানো যাবে না। কীভাবে কি হয়ে গেল বুঝতে পারছি না। ছেলের চিকিৎসা করাতে গিয়ে তারা এখন নিঃস্ব। সরকারিভাবে চিকিৎসা সহায়তা পেলে হয়তো ছেলে সুস্থ হয়ে উঠবে এমন প্রত্যাশা মায়ের। প্রতিবেশী সাইফুল ইসলাম বলেন, উন্নত চিকিৎসা পেলে রাসেল ভালো হতে পারে। কিন্তু চিকিৎসার আর্থিক সামর্থ্য পরিবারের নেই। জেলা সমাজসেবা অধিদফতরের উপপরিচালক ইমাম হাশিম বলেন, রাসেল মাহমুদ প্রতিবন্ধী ভাতাভোগী সদস্য। প্রতি মাসে তিনি ভাতা পান।

এই বিভাগের আরও খবর