শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১২ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ জুন, ২০২১ ০০:০৫

ইউপি সদস্য হত্যা

আসামি চেয়ারম্যানসহ ৪৪, গ্রেফতার ২

নোয়াখালী প্রতিনিধি

আসামি চেয়ারম্যানসহ ৪৪, গ্রেফতার ২
Google News

হাতিয়ার চরঈশ্বর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য রবীন্দ্রচন্দ্র দাস (৪২) হত্যায় ওই ইউপির চেয়ারম্যানসহ ৪৪ জনের নামে মামলা হয়েছে। হাতিয়া থানার ওসি আবুল খায়ের জানান, গতকাল দুপুরে রবীন্দ্রের ছেলে বিটেলচন্দ্র দাস বাদী হয়ে মামলাটি করেন। মামলার প্রধান আসামি ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী আশ্রাফুল হক সোহেল (২৮)। ১০ নম্বর আসামি সোহেলের চাচা বর্তমান চেয়ারম্যান আবদুল হালিম আজাদ। মামলার এজাহারে ৪৪ জনের নাম উল্লেখ ছাড়াও অজ্ঞাত আরও ১৫-২০ জনকে আসামি করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ এক ইউপি সদস্যসহ এ পর্যন্ত দুজনকে গ্রেফতার করেছে। তারা হলেন ৬ নম্বর ওয়ার্ডের মৃত নরোত্তম দাসের ছেলে সুমনচন্দ্র দাস (৪০) ও গামছাখালী গ্রামের আনাজল হকের ছেলে আমজাদ (৩৪)। এদিকে ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল হালিম বলেছেন, ‘আমি দুই দিন ধরে ঢাকায় অবস্থান করছি। এ ঘটনায় আমি বা আমার কোনো লোক জড়িত না থাকা সত্ত্বেও ইউপি নির্বাচন সামনে রেখে কেউ ঘোলা পানিতে মাছ             শিকারের জন্য আমাকে, আমার পরিবারের সদস্য ও লোকজনকে আসামি করার জন্য বাদীকে প্রভাবিত করেছে।’ তিনি ঘটনার সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি করেন।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার রাত সোয়া ২টার দিকে বাংলাবাজার থেকে তিনটি মোটরসাইকেলযোগে রবীন্দ্রচন্দ্র দাসসহ সাতজন একসঙ্গে উপজেলা সদর ওছখালীর বাসায় ফিরছিলেন। পথে খাসেরহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে দুর্বৃত্তরা তাদের গতিরোধ করে। তবে রবীন্দ্রকে রেখে বাকিরা চলে যান। পরে দুর্বৃত্তরা তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে সড়কের ওপর ফেলে রেখে যায়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করার কিছুক্ষণের মধ্যে তিনি মারা যান।