Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২১ জুলাই, ২০১৯ ১৯:২০

ছেলেধরা সন্দেহে আতঙ্ক, তিন নারীসহ আটক ১৩

নেত্রকোনা প্রতিনিধি

ছেলেধরা সন্দেহে আতঙ্ক, তিন নারীসহ আটক ১৩

নেত্রকোনায় শিশুর মাথা বহনকারী গণ পিটুনিতে নিহতের ঘটনায় জেলার সর্বত্র বিরাজ করছে আতঙ্ক। বিভিন্নস্থানে সন্দেহজনকদের ধাওয়া করছে জনতা। আটকের পর এদেরকে তুলে দিচ্ছে পুলিশের হাতে। রবিবার দুপুর পর্যন্ত নেত্রকোনা শহরের শহীদ মিনার মোড় থেকে সুমাইয়া (২৫) নামের এক নারীসহ মোট ১৩ জনকে থানায় দেয়া হয়েছে। তার মধ্যে তিনজনই নারী। এদিকে নয়জনকে আদালতের অনুমতি সাপেক্ষে সমাজসেবা অধিদপ্তরের ময়মনসিংহের ত্রিশাল ধলা আশ্রয়কেন্দ্রে দেয়া হয়েছে বলে জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এস এম আশরাফুল আলম। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রবিবার দুপুরে স্থানীয় শহীদ মিনার এলাকায় সুমাইয়া নামের এক নারীর গতিবিধি সন্দেহ হলে আটক করে জনতা। পরে থানায় খবর দিয়ে মডেল থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছলে পুলিশে সোপর্দ করে। সুমাইয়ার বাড়ি জয়পুর হাট জেলায় জানা গেছে। সকাল থেকে তার ওই এলাকায় ঘুরাঘুরিতে সন্দেহ হচ্ছিল স্থানীয়দের। এমনকি জিজ্ঞাসা করলে একেক সময় একেক ঠিকানা জানায়। তার পিতার নাম জানায় ছানাউল। এ এলাকায় আসার উদ্দেশ্য জানতে চাইলে সে সুমন নামের এক ছেলের সাথে সম্পর্ক করে এসেছে বলে জানায়। এদিকে অপর একটি গোয়েন্দা সূত্র জানায়, সে বেশ কিছুদিন ধরে বিভিন্ন স্থানে জায়গা বদল করে অবস্থান নিচ্ছিল। তার পেশা সর্ম্পকেও অনেকের খারাপ ধারণার কথাও বলেন তারা। 

এদিকে, ছেলেধরা আতঙ্ক ঠেকাতে পুলিশের বিভিন্ন উইং কাজ করছে। বারহাট্টা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদা ইয়াসমিনসহ বিভিন্ন উপজেলায় নির্বাহী কর্মকর্তারা সচেতনতা বাড়াতে সড়কে সড়কে মাইকিং করছেন। কেউ যেন মানসিক রোগীদের মারধর না করেন।   

বিডি-প্রতিদিন/মাহবুব


আপনার মন্তব্য