Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৩:৪৩

কুমিল্লায় কলেজের সামনে বাজার, ভোগান্তিতে আড়াই হাজার শিক্ষার্থী

মহিউদ্দিন মোল্লা, কুমিল্লা

কুমিল্লায় কলেজের সামনে বাজার, ভোগান্তিতে আড়াই হাজার শিক্ষার্থী

কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার নিমসার জুনাব আলী কলেজের সামনে বাজার বসায় ভোগান্তিতে পড়ছেন কলেজের প্রায় আড়াই হাজার শিক্ষার্থী। এছাড়া মহাসড়কের পাশ দখল করায় যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। চলাচলে ভোগান্তিতে পড়ছেন শিক্ষার্থীরা। অনেক সময় ছাত্রীরা ইভটিজিংয়ের শিকার হচ্ছে।

এ বিষয়ে বিভিন্ন দপ্তরে আবেদন জানিয়ে কোন কাজ হচ্ছে। গত এক দশক ধরে এই সমস্যায় ভুগছেন কলেজের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।

কলেজ সূত্র জানায়, দানবীর জুনাব আলী ১৯৭২সালে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে নিমসার বাজারে কলেজটি প্রতিষ্ঠা করেন। কলেজের সামনের অংশটি সড়ক ও জনপথের হলেও জোর করে একটি প্রভাবশালী মহল কাচা বাজারের আড়ত বসিয়েছে। এতে মহাসড়কে যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। কলেজ গেইটে সারা দিন বিভিন্ন পরিবহন রাখা হচ্ছে। চলাচলে ভোগান্তিতে পড়ছেন শিক্ষার্থীরা। 

স্থানীয় ব্যবসায়ী কামাল হোসেন বলেন,জুনাব আলী কলেজ এই এলাকার ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান। এর সামনে বাজারের কোন জায়গা নেই। কিন্তু এখানে আড়ত বসিয়ে কলেজের পড়ার পরিবেশ নষ্ট করা হচ্ছে। অন্যদিকে মহাসড়কে যানজটের পাশাপাশি দুর্ঘটনা ঘটছে। কলেজের সামনের দোকান গুলো দ্রুত অপসারণ করা প্রয়োজন।

নিমসার জুনাব আলী কলেজের অধ্যক্ষ মোহাম্মদ মামুন মিয়া মজুমদার বলেন,কলেজর সামনে বাজার বসায় কলেজের পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। হৈ-চৈ সারা দিন লেগে রয়েছে। ময়লা আবর্জনা কলেজ মাঠে ফেলা হচ্ছে। কলেজের পড়া-লেখার পরিবেশের জন্য কলেজের সামনের বাজার উচ্ছেদ করা প্রয়োজন। এনিয়ে আমরা জেলা প্রশাসক ,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলীর নিকট আবেদন জানিয়েছি।

বুড়িচং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ইমরুল হাসান বলেন, কলেজের সামনে বাজারের জায়গা নেই। এটি সড়ক ও জনপথ বিভাগের জায়গা। এখানে বাজার বসার কোন সুযোগ নেই। এ বিষয়ে সড়ক ও জনপথ বিভাগ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পারে।

সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী ড. মো. আহাদ উল্লাহ বলেন, মহাসড়কের পাশে বাজার বসার কোন সুযোগ নেই। আমরা মহাসড়কের পাশে বাজারের কিছু অংশ উচ্ছেদ করেছি। বাকী অংশ পর্যায়ক্রমে উচ্ছেদ করা হবে।


বিডি প্রতিদিন/ ওয়াসিফ


আপনার মন্তব্য