শিরোনাম
প্রকাশ : ১৮ জানুয়ারি, ২০২০ ১৯:২৪

করতোয়ায় জাহাজ চলবে: নৌ প্রতিমন্ত্রী

পঞ্চগড় প্রতিনিধি

করতোয়ায় জাহাজ চলবে: নৌ প্রতিমন্ত্রী
দেশের উন্নয়নে সরকার সুদূরপ্রসারী পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে বলে জানিয়েছেন নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। তিনি বলেন, যেখানে যা দরকার সরকার সেখানে তাই করবে। ইতিমধ্যে নৌপথগুলো সংস্কার করা হচ্ছে। এর জন্য নদী ও খাল খনন করা হচ্ছে। চতুর্দেশীয় স্থলবন্দর বাংলাবান্ধায় উপদেষ্টা কমিটির দ্বিতীয় সভায় শনিবার তিনি এসব কথা বলেন। খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ১০  হাজার কিলোমিটার নৌপথ ঢেলে সাজানো হচ্ছে। আগামীতে ব্যবসায়-বাণিজ্য সম্প্রসারণের লক্ষ্যে করতোয়া নদীকে জাহাজ চলাচলের উপযোগী হিসেবে গড়ে তোলা হবে। সরকার এ সম্পর্কিত পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। 
তিনি বলেন, ২০২৩ সালের মধ্যে বাংলাবান্ধা রেল লাইন সম্প্রসারিত হবে। বাংলাবান্ধা সরকারের কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ স্থলবন্দর। কারণ এই বন্দর চারটি দেশের সঙ্গে সংযুক্ত। এসময় তিনি ব্যবসায়ী, সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট, শ্রমিক এবং বন্দর সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের মতামত শোনেন। বক্তারা বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরের নানা সমস্যা তুলে ধরেন। ব্যবসায়ী নেতারা বলেন, সম্ভাবনাময় এই স্থলবন্দর আরও সম্প্রসারিত করা দরকার। এছাড়া ওজন মেশিন বাড়াতে হবে। নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করতে হবে। যেখানে সেখানে অপরিকল্পিত অবকাঠামা গড়ে তোলা বন্ধ করাসহ ১০ টি লিখিত প্রস্তাবনা দেয় আমদানি রপ্তানিকারক অ্যাসোসিয়েশন। এসময় বাংলাদেশ স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান তপন কুমার দে বলেন, বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরের অবকাঠামো উন্নয়নের জন্য আরও ৪০ বিঘা জমি অধিগ্রহণ করার পরিকল্পনা হাতে নেওয়া হয়েছে। আরও বক্তব্য রাখেন পঞ্চগড়-১ আসনের সংসদ সদস্য মজাহারুল হক প্রধান, কাস্টম কমিশনার (রংপুর) শওকত আলী সাদী, জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার সাদাত স¤্রাট, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলী, বাংলাবান্ধা ল্যান্ড পোর্টের জিএম হাবিবুর রহমান, বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর আমদানি রপ্তানিকারক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মেহেদী হাসান খান বাবলা, ১ নম্বর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কুদরতি খুদা মিলন, শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আক্তারুল ইসলাম প্রমুখ। 
বিডি প্রতিদিন/আল আমীন

আপনার মন্তব্য