শিরোনাম
প্রকাশ : ১০ আগস্ট, ২০২০ ২০:১৫

বৈরুতে নিহত সন্তানের মরদেহ দ্রুত দেশে আনার দাবি মায়ের

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

বৈরুতে নিহত সন্তানের মরদেহ দ্রুত দেশে আনার দাবি মায়ের
রাশেদ ও তার মা

লেবাননের রাজধানী বৈরুতে ভয়াবহ বিস্ফোরণের পর নিখোঁজ নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার নন্দলালপুর এলাকার যুবক মো. রাশেদের মরদেহ দ্রুত দেশে আনার দাবি জানিয়েছেন পরিবারের লোকজন। ৯ আগস্ট রাশেদের পরিচয় শনাক্ত হয়। এদিন বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে এ তথ্য নিশ্চিত করে জানানো হয়, মৃত ব্যক্তির নাম মোহাম্মদ রাশেদ। তিনি নারায়ণগঞ্জের বাসিন্দা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রাশেদ ফতুল্লার নন্দলালপুর এলাকার হাফিজুর রহমানের ছেলে। রাশেদের মা লুৎফুন্নেছা বলেছেন, ‘এখন আমার তো চাওয়ার কিছু নাই। আমি চাই, দ্রুত যেন আমার বাবাধনের লাশটি দেশে আসে। আমি শুধু কলিজার টুকরার লাশটি চাই।’

দূতাবাসের হেড অব চ্যান্সেরি ও ফার্স্ট সেক্রেটারি আবদুল্লাহ আল মামুন গণমাধ্যমকে বলেন, বাংলাদেশি শ্রমিক মোহাম্মদ রাশেদ বিস্ফোরণের পর থেকে নিখোঁজ ছিলেন। তাকে হারুন হাসপাতালে শনিবার মৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে।

বৈরুতে গত মঙ্গলবার ভয়াবহ দুটি বিস্ফোরণ হয়। ওই ঘটনায় বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ২১ সদস্যসহ ১০৮ প্রবাসী আহত হন। মারা গেছেন পাঁচজন।

আহত বাংলাদেশি প্রবাসীরা দেশটির তিনটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। বিস্ফোরণের ওই ঘটনায় বিভিন্ন দেশের ১৬০ জন নিহতের পাশাপাশি ৬ হাজার মানুষ আহত হয়েছেন।

এ দুর্ঘটনার জন্য দেশটির সাধারণ মানুষ সরকারের অবহেলাকে দায়ী করে রাস্তায় নেমেছেন। তাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন লেবাননের সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত কয়েকজন কর্মকর্তা। তারা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দখলের ঘোষণাও দিয়েছেন।

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ
 

 


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর