শিরোনাম
প্রকাশ : ২৮ নভেম্বর, ২০২০ ২১:৫৩
আপডেট : ২৮ নভেম্বর, ২০২০ ২২:০২
প্রিন্ট করুন printer

ইতিহাস বিকৃতিকারীদের স্থান হয় আস্তাকুঁড়ে : আইনমন্ত্রী

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

ইতিহাস বিকৃতিকারীদের স্থান হয় আস্তাকুঁড়ে : আইনমন্ত্রী
আনিসুল হক এমপি

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক এমপি বলেন, ইতিহাস কখনও বিকৃতি করা যায় না। ইতিহাস বিকৃতিকারীদের স্থান হয় আস্তাকুড়ে। স্বাধীনতা ও বঙ্গবন্ধুর ইতিহাস বিকৃতি করতে চেয়েছিলো বিএনপি। তাই জনগণ তাদের ইতিহাসের আস্তাকুঁড়ে ছুড়ে ফেলেছে। 

শনিবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা প্রেসক্লাব দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে ভিডিও কনফারেন্সে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় সরকার ইতিহাস বিকৃতি করছে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের এমন মন্তব্যের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। 

আইনমন্ত্রী আরও বলেন, স্বাধীনতা একদিনে আসে নাই। স্বাধীনতা অনেক কষ্টের ফসল। বিএনপি দেশকে একটি ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করতে চেয়েছিলো। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশকে উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত করেছেন বিশ্ব দরবারে। তিনি সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বলেন, সাংবাদিকতা একটি মহান পেশা, সেহেতু আপনাদের দায়িত্বও মহান। আমরা আশা করি আপনারা বস্তুনিষ্ট সাংবাদিকতা করবেন। সত্য পরিবেশনে কখনো পিছপা হবেন না। আপনারা আপনাদের পেশাকে সম্মান করুন। জনগণকে সত্য তথ্য পরিবেশন করুন। আপনারা আপোষহীন হিসেবে কাজ করুন। 

এসময় বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন ও লেখনীর মাধ্যমে এসব কুচক্রি মহলকে দাঁতভাঙ্গা জবাব দেয়ার আহ্বান জানান আইনমন্ত্রী।

কসবা প্রেসক্লাব সভাপতি মো. সোলেমান খানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুদ উল আলম, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) হাছিবা খান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ আরজু, পৌর মেয়র এমরান উদ্দিন জুয়েল, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. মনির হোসেন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা সিদ্দিকী, পৌর প্যানেল মেয়র মো. আবু জাহের, উপজেলা যুবলীগ সভাপতি এমএ আজিজ, আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো.শফিকুল ইসলাম রঙ্গু, দৈনিক মাতৃছায়া সম্পাদক এম এ সোহেল আহমেদ মৃধা, উপজেলা ছাত্রলীগ আহ্বায়ক আফজাল হোসেন রিমন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।    

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ২০:১৭
প্রিন্ট করুন printer

শেখ হাসিনার গাড়ি বহরে হামলার মামলায় সাবেক এমপি হাবিবসহ ৩৪ জনের জামিন বাতিল

মনিরুল ইসলাম মনি, সাতক্ষীরা

শেখ হাসিনার গাড়ি বহরে হামলার মামলায় সাবেক এমপি হাবিবসহ ৩৪ জনের জামিন বাতিল

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় ২০০২ সালের ৩০ আগস্ট তৎকালিন বিরোধীদলীয় নেতা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হামলার মামলায় সাতক্ষীরা(তালা-কলারোয়া)-১ আসনের সাবেক এমপি সংসদ সদস্য বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা হাবিবুল ইসলাম হাবিবসহ ৩৪ জনের জামিন বাতিল করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে আদালত। ৪ ফেব্রুয়ারি এ মামলার রায় ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন আদালত।

বুধবার বিকালে তাদেরকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। জামিন বাতিল হওয়া অন্যদের মধ্যে রয়েছেন কলারোয়ার দুইবারের সাবেক মেয়র বিএনপি নেতা আক্তারুল ইসলাম, সাতক্ষীরা আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. আব্দুস সাত্তার, সুপ্রিম কোর্টের এ্যাড. আব্দুস সামাদ, তিনজন সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আশরাফ হোসেন, রকিবুল ইসলাম ও রবিউল ইসলাম এবং বিএনপি ও অঙ্গসংগঠন সমূহের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মী। এ মামলায় অভিযুক্ত ৫০ জন আসামির একজন টাইগার খোকন অন্য মামলায় জেলহাজতে আটক রয়েছে। পলাতক রয়েছে সাবেক কাউন্সিলর আব্দুল কাদের বাচ্চুসহ ১৫ জন। সাতক্ষীরার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হুমায়ুন কবির তাদের জামিন বাতিল করেন।

এর আগে আজ ষষ্ঠ দিনের মত রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামিপক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করা হয়। এতে রাষ্ট্রপক্ষে অংশ নেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল এসএম মুনীর, সহকারী এটর্নি জেনারেল শাহীন মৃধা এবং সাতক্ষীরার পিপি এ্যাড. আব্দুল লতিফ। অপরদিকে আসামিপক্ষে অংশ নেন এ্যাড. শাহানারা আক্তার বকুল, এ্যাড. আব্দুল মজিদ, এ্যাড. মিজানুর রহমান পিন্টু, এ্যাড. আব্দুস সেলিম, এ্যাড. তোজাম্মেল হোসেন প্রমুখ।

রাষ্ট্রপক্ষের এসএম মুনীর আদালতে ২০ জন সাক্ষীর জবানবন্দি তুলে ধরে বলেন, সাক্ষীদের বক্তব্যে সকল আসামি দোষী প্রমাণিত হয়েছে। তিনি সাক্ষীদের উদ্ধৃতি দিয়ে আরও বলেন, ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার পর প্রাণে বেঁচে যাওয়া তার দুই কন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানার ওপর বারবার প্রাণনাশ চেষ্টায় হামলার ঘটনা ঘটেছে। কলারোয়ার ঘটনা তারই অংশ বিশেষ উল্লেখ করে তিনি বলেন, সাক্ষীদের বক্তব্যে সব আসামি দোষী প্রমাণিত হয়েছে। ন্যায়বিচার হলে সকল আসামি সর্বোচ্চ শাস্তি পাবেন। 

উল্লেখ্য যে, ২০০২ সালের ৩০ আগস্ট সাতক্ষীরায় ধর্ষণের একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রীকে দেখে মাগুরায় ফিরে যাচ্ছিলেন তৎকালিন বিরোধীদলীয় নেতা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কলারোয়ায় পৌঁছালে তৎকালিন জেলা বিএনপির সভাপতি সাতক্ষীরা-১ আসনের এমপি বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা হাবিবুল ইসলাম হাবিবের নেতৃত্বে একটি বাস রাস্তার মাঝখানে আড় করে ব্যারিকেট দিয়ে শেখ হাসিনার গাড়িবহরে  বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাসীরা সসস্ত্র হামলা চালায়। গাড়ি বহর লক্ষ করে ককটেল, গুলি ও বোমা নিক্ষেপ করে ত্রাস সৃষ্টি করে। এতে তিনি প্রাণে রক্ষা পেলেও তার সফরসঙ্গী জেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক ইঞ্জিনিয়ার শেখ মুজিবুর রহমান, কেন্দ্রীয় যুব মহিলা লীগের নেত্রী আওয়ামী লীগ নেতা ফাতেমা জামান সাথী, আব্দুল মতিন, জোবায়দুল হক রাসেল এবং শহীদুল হক জীবনসহ অনেকেই আহত হন। একইসময় সাতক্ষীরার বেশ কয়েকজন সাংবাদিকও হামলার শিকার হন। এ ঘটনায় কলারোয়া মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোঃ মোসলেমউদ্দিন ২৭ জনকে আসামি করে একটি মামলা করেন। এ মামলা থানায় রেকর্ড না হওয়ায় তিনি নালিশী আদালত সাতক্ষীরায় মামলাটি করেন। পরবর্তীতে এ মামলা খারিজ হয়ে গেলে ২০১৪ সালের ১৫ অক্টোবর ফের মামলাটি পুনরুজ্জীবিত হয়। এসময় তদন্তকারী কর্মকর্তা সাবেক সংসদ সদস্য হাবিবুল ইসলাম হাবিবসহ ৫০ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দেন। 

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ২০:১৭
প্রিন্ট করুন printer

বরিশাল জেলা আইনজীবী সমিতি নির্বাচনে ২৪ জনের মনোনয়নপত্র জমা

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল:

বরিশাল জেলা আইনজীবী সমিতি নির্বাচনে ২৪ জনের মনোনয়নপত্র জমা

বরিশাল জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে ২৪ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। বুধবার মনোনয়নপত্র জমা দেন তারা। 

নির্বাচন উপ-পরিষদের সদস্য সচিব ফিরোজ মাহমুদ খান জানান, আগামী ১১ ফেব্রুয়ারী জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচন। গত ১১ জানুয়ারি ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী ১১ টি পদের বিপরীতে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি সমর্থিত ২৪ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র জমা দেন। এবার সভাপতি পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সৈয়দ গোলাম মাসউদ বাবলু এবং বিএনপি সমর্থিত নাজিম উদ্দিন আহমেদ পান্না মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। সহ-সভাপতির ২টি পদে বিএনপি’র অসীম কুমার বাড়ৈ, মেহেদী হাসান শাহীন ও তারিকুল ইসলাম এবং আওয়ামী লীগের লীলা রানী চক্রবর্তী ও সালাহ উদ্দিন সিপু মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। 

সম্পাদক পদে আওয়ামী লীগের রফিকুল ইসলাম খোকন এবং বিএনপি’র মির্জা রিয়াজ হোসেন ও শেখ হুমায়ুন কবির মাসউদ মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। 

যুগ্ম সম্পাদক বিএনপি’র শাহ আলম ও নিজাম উদ্দিন এবং আওয়ামী লীগের এসএম আতিকুল ইসলাম ও সুমন চন্দ্র হালদার, অর্থ সম্পাদক পদে বিএনপি’র আব্দুল মালেক মিয়া ও আওয়ামী লীগের মিজানুর রহমান মিন্টু, নির্বাহী সদস্যের ৪টি পদে বিএনপি’র কাজী মাহমুদা, শাহিন উদ্দিন, হারুন অর রশিদ ও আ. রহমান চোকদার এবং আওয়ামী লীগের শহিদুল ইসলাম খলিফা, নুরে হাসান, ফিরোজ আলম সিকদার ও এসএম তৌহিদুর রহমান সোহেল মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

বিডি প্রতিদিন/ মজুমদার 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ২০:১৫
প্রিন্ট করুন printer

বরিশালে গ্রামীণ ব্যাংকের ব্যবস্থাপকের কারাদণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল:

বরিশালে গ্রামীণ ব্যাংকের ব্যবস্থাপকের কারাদণ্ড
প্রতীকী ছবি

বরিশালের রায়পাশা-কড়াপুর শাখা গ্রামীণ ব্যাংকের গ্রাহকদের টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দায়ের করা পৃথক ১৪টি মামলায় তৎকালীন শাখা ব্যবস্থাপক দেলোয়ার হাসানকে বিভিন্ন মেয়াদে মোট ৫৩ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সাথে তাকে ৪৯ লাখ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন আদালত। 

এসব মামলায় তৎকালীন শাখা কর্মকর্তা শাহ আলমকে ২৭ বছর কারাদন্ড ও ২৭ লাখ টাকা জমিানা এবং ইব্রাহিম খলিলকে ৩ বছর কারাদণ্ড ও ৩ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। 

অভিযোগ প্রমানিত না হওয়ায় মামলার অপর আসামী রতন প্রভা হালদার, মনিরুল ইসলাম, কামরুন্নাহার, মনিরুজ্জামান, রিপন মিয়া ও ওমর ফারুক সহ মোট ৬জনকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়েছে। বরিশাল বিভাগীয় স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক মো. মহসিনুল হক গত মঙ্গলবার এই দন্ডপ্রাপ্ত ৩ আসামীর অনুপস্থিতিতে এবং খালাসপ্রাপ্ত ৬ জনের উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষণা করেন।

বিডি প্রতিদিন/ মজুমদার 

 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ১৯:৫৮
প্রিন্ট করুন printer

শাহেদের ‍বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি কাল

অনলাইন ডেস্ক

শাহেদের ‍বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি কাল
রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহেদ করিম। ফাইল ছবি

রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহেদ ওরফে শাহেদ করিমের বিরুদ্ধে অস্ত্র ও বিস্ফোরক মামলায় অভিযোগ গঠনের শুনানির জন্য আগামীকাল বৃহস্পতিবার দিন ধার্য করেছেন আদালত। 

বুধবার সকালে সাতক্ষীরা জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমানের আদালতে তাকে হাজির করলে আসামি পক্ষের আইনজীবী শুনানির সময় বাড়ানোর আবেদন করে। পরে আদালত আগামীকাল দিন ধার্য করে আবারো তাকে সাতক্ষীরা কারাগারে পাঠায়।

উল্লেখ্য, গত বছরের ১৫ জুলাই ভোরে সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার শাখরা কোমরপুর এলাকা দিয়ে ভারতে পালানোর চেষ্টা করে শাহেদ করিম। বোরখা পরিহিত শাহেদকে কোমরপুর বেইলি ব্রিজের নিচ থেকে র‌্যাব-৬ এর সদস্যরা তাকে আটক করে। এসময় তার কাছে থাকা একটি অবৈধ পিস্তল, ৩ রাউন্ড গুলি, ২৩৩০ ভারতীয় রুপি, ৩টি ব্যাংকের এটিএম কার্ড ও মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়। 

এ ঘটনায় র‌্যাবের ডিএডি নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে অস্ত্র ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে দেবহাটা থানায়  শাহেদ করিম ও জনৈক বাচ্চু মাঝিকে আসামি করে একটি মামলা করেন। 

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ১৯:৫৩
প্রিন্ট করুন printer

রাজশাহীতে চুক্তিভিত্তিক টমেটো চাষ বাড়ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী

রাজশাহীতে চুক্তিভিত্তিক টমেটো চাষ বাড়ছে

রাজশাহীর গোদাগাড়ীকে বলা টমেটোর রাজ্য। দেশের মধ্যে সবচেয়ে বেশি টমেটো উৎপাদন হয় বরেন্দ্রভূমি খ্যাত এই উপজেলায়। প্রায় দুই দশক ধরে গোদাগাড়ী সদর ও পদ্মার চরে টমেটোর চাষ হচ্ছে। এখানে টমেটো চাষে নীরব বিপ্লব ঘটে গেছে।

রাসায়নিক সার ছাড়াই উৎপাদিত টমেটো জেলার চাহিদা মিটিয়ে ছড়িয়ে পড়ছে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন জেলায়। আর তাদের কণ্টকাকীর্ণ পথকে আরও মসৃণ করেছে প্রাণ গ্রুপ। গোদাগাড়ীর টমেটোর রাজ্যে বাণিজ্যিকভাবে টমেটো সস, জ্যাম-জেলিসহ বিভিন্ন ভোগ্যপণ্য উৎপাদন ও প্রক্রিয়াজাতকরণের জন্য ফ্যাক্টরি স্থাপন করেছে প্রাণ। আর প্রাণের এই কারখানার সঙ্গে চুক্তিভিত্তিক টমেটো চাষে সুদিন ফিরেছে বরেন্দ্র অঞ্চলের কৃষকদের।

রাজশাহী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর জানায়, গোদাগাড়ীর টমেটো এখন জাতীয় অর্থনীতিতে অবদান রাখছে। রাজশাহীতে শীত মৌসুমে টমেটো উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ থাকে সাড়ে ৩ হাজার হেক্টর জমিতে। এর মধ্যে কেবল গোদাগাড়ী উপজেলাতেই ২ হাজার ৯৫০ হেক্টর জমিতে টমেটো চাষ হয়। যেখান থেকে ৭০ হাজার ৮০০ মেট্রিক টন টমেটো উৎপাদন হয়। ফলে আমের পর টমেটো এই অঞ্চলে কৃষি বিপ্লব ঘটিয়েছে বলে দাবি করা হচ্ছে।

প্রাণের বরেন্দ্র ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার সৈয়দ মো. সারোয়ার হোসাইন জানান, এ বছর প্রাণের প্রায় ১০ হাজার চুক্তিভিত্তিক কৃষক ৮৬৭ বিঘা জমিতে টমেটো চাষ করেছেন। চলতি বছর টমেটো সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা ১২ হাজার টন।

এর আগে ২০১৯-২০ সালে প্রাণের ৮ হাজার ৪০০ চুক্তিভিত্তিক কৃষক প্রায় ৮০০ বিঘা জমিতে টমেটো চাষ করেছিলেন এবং টমেটো সংগ্রহের পরিমাণ ছিল ৭ হাজার টন। এছাড়া ২০১৮-১৯ সালে ৭৫০ বিঘা জমি থেকে প্রাণের ৭ হাজার ৫০০ হাজার চুক্তিভিত্তিক চাষির কাছ থেকে টমেটো সংগ্রহের পরিমাণ ছিল প্রায় ৬ হাজার টন। ফলে একদিকে প্রতিবছর চুক্তিভিত্তিক টমেটো চাষে যেমন কৃষক আগ্রহ দেখাচ্ছে, তেমনি প্রাণের চাষিরা প্রতিবছর বিঘা প্রতি ফলনও পাচ্ছেন বলে জানান এই কর্মকর্তা।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর