শিরোনাম
প্রকাশ : ১৩ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০৩
আপডেট : ১৩ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:২২
প্রিন্ট করুন printer

ভোট নিয়ে ছিনিমিনি হলে ওবায়দুল কাদেরকেই দায়িত্ব নিতে হবে: কাদের মির্জা

নোয়াখালী প্রতিনিধি

ভোট নিয়ে ছিনিমিনি হলে ওবায়দুল কাদেরকেই দায়িত্ব নিতে হবে: কাদের মির্জা
আবদুর কাদের মির্জা (ফাইল ছবি)

১৬ জানুয়ারি অনুষ্ঠেয় পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী আবদুল কাদের মির্জা ‘ব্যক্তিত্বহীনদের দিয়ে দেশে কল্যাণকর পরিবর্তন আনা সম্ভব নয়’ মন্তব্য করে বলেছেন, কোলবালিশ দেশের উপকারে আসে না; তার জন্য লাগে ভালো নেতা। আমার এসব উচিৎ কথায় আমাদের বড় বড় নেতারা আঁতকে ওঠেন। এটা কী ধরনের রাজনীতি!  কাদের মির্জা মঙ্গলবার সকালে  পৌর নির্বাচন উপলক্ষে ৮ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন আয়োজিত কর্মিসভায় বক্তৃতা করছিলেন।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগে শেখ হাসিনা আর রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ সাহেব ছাড়া আর ভালো নেতা কে কে আছেন? হ্যাঁ, আরও কয়েকজন ভালো নেতা আছেন। ভালো নেতা না থাকলে কি চলে! তবে, ওনারা দুজন সবচেয়ে ভালো। শেখ হাসিনা দেশের জন্য যা করছেন তার তুলনা নেই, কিন্তু দুর্নীতিবাজ হারামিরা ধ্বংস করে দিচ্ছে ওনার সব অর্জন।

কাদের মির্জা বলেন, নিজ দলের লোকজনের সমালোচনা করছি শুনে বিএনপি ভাইয়েরা আবার খুশি হইয়েন না। উনারা আরও নষ্ট। খালোদা জিয়া ঘরে ঢুকে গেছেন। প্রচার করা হচ্ছে তারেক জিয়া না কি দেশের পরিবর্তন আনবেন। কিন্তু আনবেন কীভাবে? উনি তো অপরাধীদের সর্দার! তাহলে আর লোক কোথায়! জামায়াত? জামায়াতে ইসলামের নাসের সাহেব সেদিন বললেন, ‘ভাগিনা, আমাদের দল তো সরকার গঠনের মতো অবস্থায় নেই। জামায়াতে ইসলামকে আরও ৫০ বছর কোলবালিশ হয়ে থাকতে হবে।

আসন্ন নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য যারা ষড়যন্ত্র করছে তাদের সম্পর্কে সাবধান থাকার আহ্বান জানিয়ে কাদের মির্জা বলেন, ওরা হয়তো বিএনপির একজনকে মেরে দেবে, আওয়ামী লীগের একজনকেও মেরে দেবে। এভাবে একটা গোলযোগ সৃষ্টির চেষ্টা করবে। তাই আপনারা চোখ-কান খোলা রাখবেন। কাদের মির্জা কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, হত্যা, বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ এসব করে ভোট নিয়ে ছিনিমিনি খেলতে দেওয়া হবে না। এই পৌরসভায় সুষ্ঠু নির্বাচনের দায়িত্ব নিতে হবে এলাকার মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাহেবকে। উনি আমার বড় ভাই হলেও সাফ কথা বলছি, প্রধান দায় কিন্তু এমপি হিসেবে উনার। ইলেকশন কমিশনার শাহাদাত সাহেবেরও দায়িত্ব আছে। ডিসি, এসপি, নির্বাচন অফিসার তাদেরও তো আছেই। 

কাদের মির্জা মনে করেন, তার স্পষ্ট ভাষণের বিরুদ্ধে পাল্টা বক্তব্য দিতে গিয়ে বড় বড় নেতারা অযৌক্তিক কথাবার্তা বলছেন। তিনি বলেন, দুদকের আসামি নজরুল ইসলাম বাবু মন্তব্য করেন, আমি নাকি এলাকার মাঠ গরম করার জন্য ‘ওরকম’ বলি। তারপর আছেন মাহবুব-উল আলম হানিফ। উনি মন্তব্য করেন, (আমার) দায়িত্বশীলতার যথেষ্ঠ ঘাটতি আছে। তার কাছে কি জানতে পারি, কুষ্টিয়ায় যে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভেঙে ফেলল আপনি তখন কী দায়িত্ব পালন করলেন? কিছু বললেই সমালোচকরা বলেন, কেন্দ্রীয় নেতাদের বিরুদ্ধে বলেছি। বলিনি। ২/৩ দিন বলিনি। আজ থেকে আবার শুরু করলাম। আমার বিরুদ্ধে বললে আমিও বলব। বললে কি করবে? জেলে দেবে, বহিষ্কার করবে, মেরে ফেলবে- প্রশ্ন করে তিনি শ্রোতাদের উদ্দেশে বলেন, ‘মেরেই যদি ফেলে আপনারা আমার জানাজায় আসবেন।’

 

বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১১:৪৭
প্রিন্ট করুন printer

পদ্মা থেকে জেলের মরদেহ উদ্ধার

অনলাইন ডেস্ক

পদ্মা থেকে জেলের মরদেহ উদ্ধার

রাজশাহীর চারঘাটের ইউসুফপুরে ডুব দিয়ে মাছ ধরতে গিয়ে এক জেলের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে মাছ ধরতে ডুব দেওয়ার পর সে আর ওঠেনি। নিহত জেলের নাম আবু তালেব মিঠু (৪৫)। তিনি উপজেলার ইউসুফপুর কারিগর পাড়া গ্রামের বাসিন্দা।

শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল পদ্মা নদী থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে।

রাজশাহীর চারঘাট ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার মোজাম্মেল হক জানান, আবু তালেব মিঠু পেশায় একজন জেলে। শুক্রবার দুপুরে তিনি পদ্মা নদীতে মাছ ধরতে যান। নদীতে জাল ফেলার পর তিনি ডুব দেন। কিন্তু আর উঠে আসতে পারেননি। রাজশাহী সদর ফায়ার সার্ভিস থেকে নুরুন্নবীর নেতৃত্বে চার সদস্যের ওই ডুবুরি দল প্রায় এক ঘণ্টা তল্লাশি চালিয়ে পদ্মা নদী থেকে তালেবের মরদেহ উদ্ধার করে। পরে পরিবারের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করা হয়।

রাজশাহীর চারঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর আলম জানান, ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল নিহতের মরদেহ উদ্ধার করেছে।

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দী


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১২:০০
প্রিন্ট করুন printer

লাকসামে মেলায় ছুরিকাঘাতে ৩ যুবক আহত

লাকসাম প্রতিনিধি:

লাকসামে মেলায় ছুরিকাঘাতে ৩ যুবক আহত

কুমিল্লার লাকসামের কালিয়াপুর ওরশকে কেন্দ্র করে বসা মেলায় দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ৩ যুবক ছুরিকাঘাতে আহত হয়েছেন। গুরুতর আহত অবস্থায় একজনকে কুমিল্লা হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, কালিয়াপুর দরবার শরীফের ওরশকে কেন্দ্র করে আশপাশের এলাকায় মেলা বসে। করোনা পরিস্থিতিকে উপেক্ষা করে মেলায় শত শত দোকান বসে। এতে হাজার হাজার লোকের সমাবেশ ঘটে। সন্ধ্যায় কয়েকজন যুবক মেলায় গিয়ে বাঁশি কিনে বাজাতে গেলে পাশ্ববর্তী ইসলামপুর এলাকার কামালের ছেলে বায়েজিদ, আবু তাহেরের ছেলে আজ ইসরাফিল ও মেলার দোকানি সাদেকসহ ১০/১২ জন যুবক তাদের উপর অতর্কিত হামলা করে। 

এক পর্যায়ে হামিরাবাগ এলাকার মেম্বার বেলায়েতের ছেলে আব্দুর রহমান (২০), তাজুল ইসলামের ছেলে ইউসুফ (১৯) ও একই এলাকার ইসমাইল হোসেন হৃদয়কে (১৮) ছুরিকাঘাতসহ আরও কয়েকজনকে আহত করা হয়। গুরুতর আহত আব্দুর রহমানকে প্রথমে লাকসামে পরে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়। বাকি আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। 

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রামের লোকজন জড়ো হতে শোনা গেছে। বর্তমানে পরিস্থিতি থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। মেলা অব্যাহত থাকলে যেকোনো সময় অপ্রীতিকর ঘটনার আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী। এ বিষয়ে লাকসাম থানার ওসি নিজাম উদ্দিন জানান, অনুমোদন ছাড়াই এ মেলা বসানো হয়েছে। ঘটনা শুনে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

 

বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ সিফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১১:১৬
আপডেট : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১১:৪৬
প্রিন্ট করুন printer

৫ রোহিঙ্গা মাঝি অপহরণ মামলার প্রধান আসামি গ্রেফতার

টেকনাফ প্রতিনিধি

৫ রোহিঙ্গা মাঝি অপহরণ মামলার প্রধান আসামি গ্রেফতার

কক্সবাজারের টেকনাফে ৫ রোহিঙ্গা মাঝি অপহরণ মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করেছে এপিবিএন পুলিশ সদস্যরা। ১৬ আর্মড পুলিশ ব্যাটলিয়নের সদস্যরা টেকনাফের হোয়াইক্যং কেরুনতলী এলাকায় অভিযান চালিয়ে বহুল আলোচিত রোহিঙ্গা মাঝি অপহরণকারী চক্রের মূলহোতা মামুন বাহিনীর প্রধান মোঃ মামুনুর রশিদ মামুন (২৫)-কে গ্রেফতার করে। 

রোহিঙ্গা উগ্রপন্থী গ্রুপের সদস্যরা গ্রেফতার মামুন গংকে ভাড়াটে হিসেবে ব্যবহার করে বিশেষ সভায় যাওয়া উনছিপ্রাং রইক্ষ্যং ক্যাম্পের ৫জন ব্লক মাঝিকে অপহরণ করে বেধড়ক মারধর ও নিমর্ম নির্যাতন চালায়। যা নিয়ে পুরো জেলায় শোরগোল পড়ে যায়। পরে আইন শৃংখলা বাহিনীর পৃথক যৌথ অভিযানে অপহৃত রোহিঙ্গা মাঝিদের উদ্ধার করা হয়।

১৬ আর্মড পুলিশ ব্যাটলিয়নের অধিনায়ক এসপি মোঃ তারিকুল ইসলাম তারিক জানান, গত শুক্রবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ২১নং চাকমারকূল ক্যাম্পের ওমানী সাইড এলাকায় এপিবিএন পুলিশ ক্যাম্পের কমান্ডার এএসপি মোঃ আশিকুর রহমানের নেতৃত্বে এপিবিএন পুলিশের অফিসার ও ফোর্স অভিযান চালিয়ে মামুনুর রশিদকে গ্রেফতার করা হয়। তার বিরুদ্ধে টেকনাফ মডেল থানায় দায়েরকৃত মামলায় তাকে আদালতে প্রেরণের জন্য টেকনাফ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

 

বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ সিফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৯:১৩
প্রিন্ট করুন printer

তোড়জোড়ে দেড় বছর পার, তবুও অপসারণ হয়নি ময়লার ভাগাড়!

সিলেট প্রতিনিধি

তোড়জোড়ে দেড় বছর পার, তবুও অপসারণ হয়নি ময়লার ভাগাড়!

সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলা পরিষদ সড়কের প্রবেশমূখে জমে থাকে ময়লার স্তুপ। ছড়াচ্ছে উৎকট দুর্গন্ধ। দেড় বছর পূর্বে এ ময়লা অপসারণে সংশ্লিষ্টগণ তোড়জোড় শুরু করলেও, অপসারণ হয়নি ময়লার ভাগাড়। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনেই এই পরিবেশ দূষণে বিপর্যস্থ হয়ে পড়েছে শিক্ষার্থীরা ও এলাকাবাসী।

সরেজমিন দেখা যায়, উপজেলার নতুন বাজার গোলচত্বর থেকে খোদ উপজেলা পরিষদ সড়কের প্রবেশমুখে হাজী মফিজ আলী বালিকা স্কুল এন্ড কলেজের মূল গেইটের সামনের খোলা অংশটিতে জমে আছে ময়লার ভাগাড়। এই ময়লা-আবর্জনার দূর্গন্ধে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে কোমলমতি শিক্ষার্থী, অভিভাবক, পথচারীসহ, এলাকাবাসীকে। পাশাপাশি, তাদেরকে পড়তে হচ্ছে মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকিতে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, স্থানীয় কতিপয় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, বাসা-বাড়ির ময়লা, নিয়মিতই এখানে ফেলা হয়। যারা ময়লা ফেলেন, তাদেরকে উপজেলা প্রশাসন ও কলেজ কর্তৃপক্ষ নিষেধ করলেও কর্ণপাত করেনি কেউ। তারা জানান, দেড় বছরেও ময়লা ফেলার বিকল্প কোন স্থান পাইনি আমরা।

শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে বলেন, 'বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়ার পথে ময়লা-আবর্জনার দুর্গন্ধে দম বন্ধ হয়ে আসার উপক্রম হয়। বাতাসের মাধ্যমে এই দুর্গন্ধ বিদ্যালয় ক্যাম্পাসেও চলে আসে। যার কারণে বিদ্যালয় অধ্যায়ণকালে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়।'

হাজী মফিজ আলী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ নেহারুন নেছা বলেন, 'এটা দীর্ঘদিনের সমস্যা। একটু বৃষ্টি হলেই সেখানে অতিরিক্ত দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয়। এই দূর্গন্ধের কারণে শিক্ষার্থীদের নানাবিধ রোগে আক্রান্ত হবারও ঝুঁকি রয়েছে।'

বিশ্বনাথ সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছয়ফুল হক বলেন, ' নবগঠিত বিশ্বনাথ পৌরসভারপরবর্তী সভায় ময়লা অপসারণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার কথা রয়েছে।'

এছাড়াও, বিশ্বনাথ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও পৌর প্রশাসক বর্ণালী পাল বলেন, আমি সর্বোচ্চ চেষ্টা  করেছি আপসারণের। স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে আমরা উদ্যোগও নিয়ে ছিলাম। পরবর্তীতে ‘করোনা’র কারণে সে অনুযায়ী এগুতে পারিনি। বর্তমানে এটা পৌরসভার অন্তর্ভূক্ত হয়েছে। বরাদ্দ আসলেই নিয়মানুযায়ী এ ময়লা অপসারণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।'

 


বিডি প্রতিদিন / অন্তরা কবির 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৮:৫৭
আপডেট : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১০:৪৯
প্রিন্ট করুন printer

ট্রাকচাপায় ২ শ্রমিক নিহত

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

ট্রাকচাপায় ২ শ্রমিক নিহত

সাতক্ষীরায় মাটি বহনকারি ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে দুই ইটভাটা শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার ভোর সাড়ে তিনটার দিকে শহরের অদূরে তালতলা বিজিবি ব্যাটেলিয়ন হেড কোয়াটারের সামনে এ দুর্ঘটনাটি ঘটে।

নিহতরা হলেন, সদর উপজেলার বকচরা গ্রামের সামাদ সরদারের ছেলে মনিরুল ইসলাম (৩৩) ও একই গ্রামের ইসরাফ সরদারের ছেলে মোহাম্মদ আলী (৪২)।

বকচরা গ্রামের কাছিরউদ্দিন লস্কর জানান, মনিরুল ইসলাম, মোহাম্মদ আলী ও তিনিসহ সাতজন শ্রমিক শনিবার ভোর সাড়ে তিনটার দিকে  বাড়ি থেকে বাইসাইকেল যোগে বিনেরপোতায় লিয়াকত আলীর বি.বি.ব্রিকস নামক ইটভাটায় কাজ করতে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে সাতক্ষীরা-খুলনা মহসড়কের বিজিবি ব্যাটালিয়ন হেডকোয়াটারের সামনে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি মাটি বহনকারি ট্রাক মনিরুল ও মোহাম্মদ আলীকে চাপা দেয়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাদের সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেয়ে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মোঃ বুরহানউদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, তাদের মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর