শিরোনাম
প্রকাশ : ৬ মার্চ, ২০২১ ১৫:৫০
প্রিন্ট করুন printer

শ্রীমঙ্গলে সড়কের আবর্জনা পরিষ্কার করছে ইয়েস গ্রুপের সদস্যরা

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি

শ্রীমঙ্গলে সড়কের আবর্জনা পরিষ্কার করছে ইয়েস গ্রুপের সদস্যরা

পর্যটন শহর মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে প্রতিদিনই আসছেন পর্যটকরা। তারা ঘুরে বেড়াচ্ছেন উপজেলার বিভিন্ন পর্যটন স্পট। এসময় তৃষ্ণা মিটেতে তারা বোতলজাত পানি পান করছেন। সাথে থাকা শিশুরা খাচ্ছে চিপস বা চানাচুর। আবার সবাই মিলে শেরে নিচ্ছেন দুপুরের আহার। 

কিন্তু পর্যটকদের আবর্জনা ফেলার জন্য এ উপজেলায় কোনো ডাস্টবিন নেই। তাই তারা পানির বোতল, চিপস, চানাচুর বা খাবারের প্যাকেট ফেলে দিচ্ছেন সড়কের পার্শ্বে। এতে বিনষ্ট হচ্ছে এখানকার প্রাকৃতিক পরিবেশ। 

আজ শনিবার শ্রীমঙ্গল উপজেলার ইয়েস গ্রুপের সদস্যরা ‘পরিবেশ ও জীববৈচিত্র রক্ষায় সচেতন হউন’ এ প্রতিপাদ্যকে সাথে নিয়ে পর্যটন স্পট বধ্যভূমি ৭১’র সামনে থেকে শুরু করে লাউয়াছড়া জাতিয় উদ্যানের সড়কের দুপাশের ৬ কিলোমিটার এলাকায় পর্যটকদের ফেলা রাখা আবর্জনা পরিষ্কার করেন।

সচেতন নাগরিক কমিটির (সনাক) এর সহযোগীতায় ইয়েস গ্রুপের এই পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযানের উদ্বোধন করেন শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী অফিসার নজরুল ইসলাম। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা প্রকৌশলী সন্জয় মোহন, সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) সভাপতি দীপেন্দ্র ভট্টাচার্য, টিআইবি এরিয়া ব্যবস্থাপক পারভেজ কৈরী, ইয়েস গ্রুপের আহ্বায়ক জিডিশন প্রধান সুছিয়াং, সনাক সদস্য জলি পাল, কবিতা রানী দেব, শাহ আরিফ আলী নাসিম প্রমুখ। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বলেন, ‘এটি সনাক ও ইয়েস গ্রুপের মহৎ একটি উদ্যোগ। শ্রীমঙ্গলে প্রতিদিন কয়েক হাজার পর্যটক আসে। পর্যটকরা বিভিন্ন জায়গায় রাস্তার পাশে আবর্জনা ফেলে যায় এতে করে পর্যটন এলাকা শ্রীমঙ্গলের পরিবেশ ও সৌন্দর্য নষ্ট হচ্ছে।

তিনি বলেন, খুব দ্রুত সময়ের মধ্য উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বধ্যভূমি থেকে লাউয়াছড়া পর্যন্ত সড়কের পাশে স্থায়ী ডাস্টবিন স্থাপন করা হবে। আর এগুলোর দেখাশোনার দায়িত্বে থাকবে ইয়েস গ্রুপের সদস্যরা। 

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর