শিরোনাম
প্রকাশ : ৬ মে, ২০২১ ২১:৩৭
প্রিন্ট করুন printer

কুড়িগ্রামে বাস চলাচল শুরু, মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি :

কুড়িগ্রামে বাস চলাচল শুরু, মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি
Google News

করোনাভাইরাস মোকাবেলায় লকডাউনে সরকারের নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী বৃহস্পতিবার সারা দেশের মতো কুড়িগ্রামেও শুরু হয়েছে জেলার ভেতরে বাস চলাচল। সকাল ৬টা থেকে শুরু করে দিনভর এসব বাস চলাচল করে।

কুড়িগ্রাম থেকে রংপুরগামী বাসগুলো রাজারহাট উপজেলার বড়বাড়ী এলাকার মুজতবি পর্যন্ত কুড়িগ্রামের যাত্রী নিয়ে চলাচল করে। অন্যদিকে, জেলার অভ্যন্তরে কুড়িগ্রাম-নাগেশ্বরী-ভূরুঙ্গামারী ও কুড়িগ্রাম-উলিপুর-চিলমারী রুটে বাস চলাচল করতে দেখা যায়। তবে এসব রুটে বাস চললেও যাত্রীদের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মানতে খুব একটা দেখা যায়নি। অনেকের মুখে ছিল না মাস্ক আবার বাসে যাত্রীদের মধ্যে দেয়া হয়নি হ্যান্ড স্যানিটাইজারসহ ভাইরাস প্রতিরোধক।

চালকদের কেউ কেউ জানান, তাদের মাস্ক পরতে বলা হলেও পরেননি সেখানে করার কী আছে। আবার গাড়ির চালকদের মধ্যে অনেকেই বলেন, আমাদের সুনির্দিষ্ট বাস স্টপেজ না থাকার কারনে বাস চলাচল সমস্যা হয় এবং যাত্রী সংকট রয়েছে। তাই বাস চলাচল করা সম্ভব হবে না বলে জানান।

এ ব্যাপারে সদর থানার অফিসার ইনচার্জ খান মো:শাহরিয়ার জানান, আমরা মালিক, চালক ও হেল্পারদের সচেতন করতে কাজ করছি। তাদের সাথে আলাপ আলোচনা করে যাতে স্বাস্থ্যবিধি লংঘণ করা না হয় সে ব্যাপারে কাজ করা হচ্ছে। এদিকে, সকাল থেকে জেলার কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল থেকে অভ্যন্তরীণ অল্প কয়েকটি বাস ছেড়ে যায়। রংপুরগামী কয়েকটি বাসে দুই সিটে একজন করে যাত্রী বসানো হলেও ভাড়া বর্ধিত হারে আদায়ের অভিযোগ করেন অনেক যাত্রী। অপরদিকে, যাত্রী কম হলে তেলের দামও উঠবে না বলে চালকরা জানান। 

এসব নিয়ন্ত্রণে পুলিশের চেক পোস্ট কয়েকটি জায়গায় বসানো হয়েছে। সেখানে কঠোরভাবে পুলিশ স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাস চলাচলে পর্যবেক্ষণ করছে। 

এদিকে, যাত্রী সংখ্যা কমে যাওয়ায় বাসের সাথে সংশ্লিষ্ট চালক ও হেলপাররা পড়েছেন বিপাকে। যাত্রী কমে যাওয়ায় তেলের দামই উঠবে না বলে জানান। জেলা মোটর মালিক গ্রুপের সভাপতি মো: লুৎফর রহমান বকসী জানান, আমরা সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী বাস চলাচলে স্বাস্থ্যবিধি মেনেই চলতে চাই। এ ব্যাপারে পুলিশ সুপারের সাথে কথা বলেছি যাতে তিস্তা সেতুর পাশে আমাদের অস্থায়ী বাসস্ট্যান্ডের সুযোগ করে দেয়া হয়। কিন্তু কোন সাড়া পাওয়া যায়নি। ফলে সকাল থেকে যাত্রী কম হওয়ায় রংপুরগামী বাস চলাচল বন্ধ রাখা হয়। তাছাড়া যাত্রী থাকলেও রাস্তায় থ্রি হুইলার জেএসসহ অটোরিক্সার কারনে পার্শ্ববর্তী উপজেলাগুলোতে যাত্রীরা ওসব যানবাহণে যাচ্ছেন বেশি।ফলে বাসে চলাচল তেমন নয় বলে জানান তিনি। এ অবস্থায় বাস চলাচল সম্ভব হবে না বলে জানান তিনি। 

এ ব্যাপারে কুড়িগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো: রুহুল আমীন বলেন, জেলায় ৪টি চেক পয়েন্টে যান চলাচলের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। কেউ যাতে জেলার বাইরে বাস চলাচল করে যেতে না পারে এবং স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়টি কোনভাবেই যাতে বিঘ্নিত না হয় সেটি কঠোরভাবে মনিটর করা হচ্ছে।

 

বিডি প্রতিদিন/ ওয়াসিফ

এই বিভাগের আরও খবর