৩০ আগস্ট, ২০২১ ২০:৫০

কুড়িগ্রামে ৪০ হাজার মানুষ পানিবন্দি

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি:

কুড়িগ্রামে ৪০ হাজার মানুষ পানিবন্দি

কুড়িগ্রামে ফের ধরলা ও ব্রহ্মপুত্রসহ সবগুলো নদনদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। সোমবার বিকেল তিনটায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের রিডিং অনুসারে জানা যায়, ধরলা নদীর সেতু পয়েন্টে পানি বিপদসীমার ৩৫ সে.মি ওপর এবং ব্রহ্মপুত্র নদে চিলমারী পয়েন্টে ২৯ সে.মি ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। ফলে জেলার সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির ফের অবনতি ঘটেছে। এ অবস্থায় নদনদীর তীরের নিম্নাঞ্চলসমূহের প্রায় দুই শতাধিক চর ও দ্বীপচরের প্রায় ৪০ হাজার পানিবন্দি মানুষ রয়েছেন বিপাকে। এসব এলাকার মানুষজন রয়েছেন খাদ্য সংকটে।

অনেকেই নদীর পাশে উঁচু বাধে এসে আশ্রয় নিতে শুরু করেছেন। এসব এলাকার গ্রামীণ সড়ক তলিয়ে যাওয়ায় যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে।কেউ কেউ কলার গাছের ভেলা বানিয়ে নিজ বাড়ি থেকে বাঁধে কিংবা অন্যত্র আসা যাওয়া করছেন। আবার অনেকের বাড়িঘরে পানি উঠায় নৌকাই তাদের একমাত্র ভরসা। সেখানেই থাকা ও রান্নাসহ খাওয়া দাওয়া।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের উপ-পরিচালক মঞ্জুরুল হক জানান, বন্যার পানির কারণে কৃষকদের রোপণকৃত ফসল রোপা আমন ও শাকসবজি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। সবশেষ জেলায় ১৫ হাজার ৫২০ হেক্টর জমির ফসল নিমজ্জিত হয়েছে। এর মধ্যে রোপা আমন ১৫ হাজার ১১৫ হেক্টর, শাকসবজি ২৭০ হেক্টর এবং বীজতলা ৯৫ হেক্টর।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুল ইসলাম জানান, উজানের দিকে বৃষ্টিপাত নেই সেই সাথে উজান থেকে পানিও আসা কমে গেছে এবং ঢালুর দিকে পানি বেশি হওয়ায় বন্যা পরিস্থিতির দ্রুত উন্নতি হওয়ার আশা ব্যক্ত করেন। দু’একদিনের মধ্যেই পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে।

বিডি প্রতিদিন/এ মজুমদার 

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর