২১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১৭:২৩

আখাউড়ায় প্রভাষকের হাতে অধ্যক্ষ লাঞ্ছিত, থানায় অভিযোগ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

আখাউড়ায় প্রভাষকের হাতে অধ্যক্ষ লাঞ্ছিত, থানায় অভিযোগ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় প্রভাষকদের হাতে শহীদ স্মৃতি সরকারি কলেজের অধ্যক্ষকে মারধর ও লাঞ্ছিত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার সন্ধ্যায় ওই কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. আবু জামাল বাদী হয়ে তিন প্রভাষকের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযুক্ত প্রভাষকরা হলেন-হুমায়ন কবির মোল্লা, মো. ফারুক হোসেন ও মো. রফিকুল ইসলাম।

অভিযোগ ও কলেজ সূত্রে জানা গেছে, সোমবার সকালে অধ্যক্ষ মো. আবু জামাল নিজ অফিস কক্ষে বসে ছিলেন। এসময় প্রভাষক হুমায়ুন কবির মোল্লার নির্দেশে প্রভাষক ফারুক হোসেন এবং প্রভাষক রফিকুল ইসলাম কলেজের ক্যাশ ও সার্টিফিকেট রক্ষিত আলমারির চাবি জোর করে অধ্যক্ষের কাছ থেকে নিয়ে যেতে চান। অধ্যক্ষ চাবি দিতে না চাওয়ায় ওই প্রভাষকরা তাকে ধাক্কা মেরে লাঞ্ছিত করে এবং অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে। প্রাণ বাঁচাতে তিনি অফিস কক্ষ থেকে বের হয়ে যেতে চাইলে প্রভাষকেরা তাকে জোর করে অফিসে আটকে রাখে।

উপায় না পেয়ে অধ্যক্ষ বিষয়টি মোবাইল ফোনে কলেজের সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানানোর চেষ্টা করলে ওই প্রভাষকেরা বাধা দেন। পরে হইচই শুনে কলেজের প্রভাষক ওয়াহিদ সারোয়ার, আমজাদ হোসেন, ফয়জুন্নেসা লিজা, আরিফ রাব্বানীসহ অন্যরা এগিয়ে এসে অধ্যক্ষকে রক্ষা করে। এ পরিস্থিতিতে কলেজের অধ্যক্ষ নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করেছেন।

অভিযোগে আরও জানা যায়, অধ্যাপক হুমায়ুন কবির মোল্লা রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে এর আগেও কলেজের অধ্যক্ষসহ কয়েকজন প্রভাষকের সাথে খারাপ আচরণ করেছেন।

কলেজের প্রভাষক ও নির্বাচিত শিক্ষক প্রতিনিধি ফয়জুন্নেসা লিজা বলেন, হুমায়ুন কবির মোল্লা স্থানীয় প্রভাব খাটিয়ে  অধ্যাপকদের সাথে খারাপ আচরণ করেন। আমার সাথেও খারাপ আচরণ করেছেন। আমি ইতিপূর্বে হুমায়ুন কবির মোল্লার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দিয়েছি।

অধ্যক্ষকে লাঞ্ছিত করার ব্যাপারে জানাতে চাইলে অভিযুক্ত প্রভাষক মো. ফারুক হোসেন বলেন, অধ্যক্ষকে বলেছিলাম কলেজে শিক্ষকদের একটি সভা দেওয়ার জন্য। কিন্তু তিনি সভা দিতে আপত্তি করেন। তখন আমি উত্তেজিত হয়ে পড়ি। এনিয়ে উনার সাথে বাকবিতণ্ডা হয়।

আখাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিজানুর রহমান মোবাইল ফোনে বলেন, কলেজের অধ্যক্ষের একটি অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্তপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিডি প্রতিদিন/এমআই

সর্বশেষ খবর