শিরোনাম
২১ অক্টোবর, ২০২১ ১০:২৫

ইউপি নির্বাচন নিয়ে দ্বিধাবিভক্ত শরীয়তপুরের স্থানীয় আওয়ামী লীগ

শরীয়তপুর প্রতিনিধি

ইউপি নির্বাচন নিয়ে দ্বিধাবিভক্ত শরীয়তপুরের স্থানীয় আওয়ামী লীগ

শরীয়তপুর সদর উপজেলার আংগারিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন নিয়ে বিভক্ত হয়ে পড়েছে ওই ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন জেলা পরিষদদের সাবেক সদস্য ও জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক আসমা আক্তার। এদিকে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মাঠে আছেন বর্তমান চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আনোয়ার হোসেন হাওলাদার।

একই দলের দুই প্রার্থী মাঠে থাকায় বিভ্রান্তিতে পড়েছে নেতাকর্মীরা। মনোনয়ন পরিবর্তনের দাবি তুলেছেন আনোয়ার হাওলাদার সমর্থক আওয়ামী লীগের ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। আসমা আক্তার বিএনপি পরিবারের সন্তান বলে অভিযোগ তুলছেন তারা। এদিকে গত রাতে আনোয়ার হোসেন হাওলাদারের সমর্থক মোয়াজ্জেম সরদারকে কুপিয়ে আহত করেছে সন্ত্রাসীরা। তিনি শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

শরীয়তপুর সদর উপজেলা নির্বাচন অফিসারের কার্যালয় সূত্র জানায়, দ্বিতীয় ধাপে শরীয়তপুর সদর উপজেলার আংগারিয়া ইউনিয়ন পরিষদসহ ১০টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে। আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী হিসেবে জেলা পরিষদের সদস্য আসমা আক্তার মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও বর্তমান চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন হাওলাদার বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এছাড়া ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর মনোনয়ন নিয়ে প্রার্থী হয়েছেন হাফেজ আব্দুল হামিদ মোল্যা।

প্রচার প্রচারণা শুরু না হতেই বিভক্ত হয়ে পড়েছে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। আনোয়ার হোসেন হাওলাদার ও আসমা আক্তারের পক্ষে বিভক্ত হয়ে পড়েছে তারা। একে অপরের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তুলছেন।

আংগারিয়া ইউনিয়নের বাসিন্দাদের অভিযোগ, আংগারিয়া ইউনিয়নের নৌকা প্রার্থী আসমা আক্তারের ভাই এখনো বিএনপির সহ-সভাপতি পদে আছে। এই ইউনিয়নের যারা এক সময় বিএনপি করেছে তারা এখন আওয়ামী লীগ হয়ে মাঠ দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। হামলা করছে ত্যাগী আওয়ামী লীগের নেতাদের ওপর। প্রার্থী মনোনয়ন পরিবর্তনের দাবি জানিয়েছেন তারা। 

জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ও আওয়ামী লীগের প্রার্থী আসমা আক্তার বলেন, আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে বিপক্ষের প্রার্থীর লাকজন। আমি ২০১১ সালে থেকে আমি মহিলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন দায়িত্বে ছিলাম। আমার জনপ্রিয়তায় ভীত হয়ে তারা আবোল তাবোল বলছে। আনোয়ার হোসেন হাওলাদার গত নির্বাচনেও আওয়ামী লীগের বিপক্ষে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করেছে। তিনি কীভাবে নিজেকে আওয়ামী লীগের দাবি করেন?


বিডি প্রতিদিন/ফারজানা

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর