৮ মে, ২০২২ ১৬:০৭

মেহেরপুরে জামাই-শ্বশুর কারাগারে

মেহেরপুর প্রতিনিধি


মেহেরপুরে জামাই-শ্বশুর কারাগারে

মেহেরপুরের গাংনীতে বাল্য বিয়ের অভিযোগে জামাই শশুরের জেল জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। বাল্যবিয়ের অভিযোগে গাংনী থানা পুলিশের একটি দল শনিবার মধ্যেরাতে তাদের আটক করে। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মৌসুমি খানম ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে তাদের ৭ দিনের জেলসহ ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন। 
দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন সাহারবাটি গ্রামের এনামুল হকের ছেলে হেলাল উদ্দীন (৩৫) ও তার শ্বশুর মোহাম্মদপুর গ্রামের পালান মন্ডলের ছেলে সোহরাব হোসেন (৬০)।

গাংনী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতার্ মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, শনিবার মধ্যেরাতে মটমুড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ৯৯৯ এর মাধ্যমে জানতে পারি মোহাম্মদপুর গ্রামের সোহরাব হোসেনের ৭ম শ্রেনীতে পড়ুয়া মেয়ের সাথে সাহারবাটি গ্রামের এনামুল হকের ছেলে হেলালের বাল্য বিয়ে হচ্ছে। খবর পেয়ে তাদের থানায় নেয়া হয়। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে বিচারের মাধ্যমে তাদের জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। 

ভ্রাম্যমান আদালতের নিবার্হী ম্যাজিষ্ট্রেট উপজেলা নিবার্হী অফিসার মৌসুমি খানম বলেন, বাল্য বিবাহের চেষ্টার অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় মটমুড়া ও সাহারবাটি ইউপি চেয়ারম্যান ও পুলিশের সহযোগিতায় হেলাল উদ্দীন ও সোহরাব হোসেনকে ৭ দিনের কারাদন্ড ও ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। পাশাপাশি ঘটক ও ইমামের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে। 
সোহরাব হোসেন বলেন, তার মেয়ে মোহাম্মদপুর আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেনীর ছাত্রী। গরীব মানুষ, নানা সমস্যা থাকার কারনে মেয়ের বিয়ে দেয়া হয়েছে।

বিডি প্রতিদিন/এএ

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর