২৮ আগস্ট, ২০২২ ১৭:৫৫

শ্রীমঙ্গলে কাজে ফিরেছেন চা শ্রমিকরা

শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি

শ্রীমঙ্গলে কাজে ফিরেছেন চা শ্রমিকরা

শ্রীমঙ্গলে কাজে ফিরেছেন চা শ্রমিকরা

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলায় কাজে ফিরেছেন চা শ্রমিকরা। এতে বাগানে ফিরেছে প্রাণচাঞ্চল্য। রবিবার উপজেলার ৩৯টি চা বাগানেই পুরোদমে কাজ শুরু করেছেন শ্রমিকরা। মজুরি ১৭০ টাকা নির্ধারণ করে দেওয়ায় খুশি তারা। শ্রমিকরা জানান, প্রধানমন্ত্রীর এই সিদ্ধান্তকে সম্মান জানাতে তারা কাজে ফিরেছন।

প্রতিদিনের মতো সকাল আটটায় তারা কাজে বের হয়েছেন। সারাদিন তারা পাতা তুলেছেন। বিকেলে সেই পাতা ওজন দিয়ে পাঠানো হয়েছে চা কারখানায়।

ভূড়ভুড়িয়া চা বাগানের শ্রমিক সঞ্চিতা রিকিয়াশন বলেন, প্রধানমন্ত্রী আমাদের মজুরি ১২০ থেকে বাড়িয়ে ১৭০ টাকা করে দিয়েছেন। আমরা খুশি। আমরা প্রধানমন্ত্রীর প্রতি যে আস্থা ও বিশ্বাস রেখেছিলাম, তিনি আমাদের সেই বিশ্বাস রেখেছেন।

ভাড়াউড়া চা বাগানের উষা রাণী হাজরা বলেন, প্রধানমন্ত্রী আমাদের কথা শুনেছেন। আমরাও কথা রেখেছি। কাজে যোগ দিয়েছে।

দৈনিক মজুরি ১২০ টাকা বাড়িয়ে ৩০০ টাকা করার দবিতে গত ১৩ আগস্ট থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘট শুরু করেছিলেন চা শ্রমিকরা। এতে অচলাবস্থা দেখা দিয়েছিল দেশের চা শিল্পে। এই সংকট সমাধানে গত ১২ দিনে শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার ও ঢাকায় বাগান মালিক ও শ্রমিক পক্ষকে নিয়ে সরকারের কয়েক দফা বৈঠক হয়। কিন্তু বৈঠকে কোনো সমঝোতা না হওয়ায় সাধারণ চা শ্রমিকরা প্রধানমন্ত্রীর মুখের দিকে চেয়ে থাকে। তাদের দাবি ছিল প্রধানমন্ত্রী যা মজুরি নির্ধারণ করে দেবেন, সেটাই তারা মেনে নেবেন।

শনিবার রাতে প্রধানমন্ত্রী চা বাগান মালিকদের সঙ্গে বৈঠক করে চা শ্রমিকদের দৈনিক মজুরি ১৭০ টাকা নির্ধারণ করে দেন। এছাড়া আনুপাতিক হারে শ্রমিকদের অন্যান্য সুযোগ সুবিধা বাড়বে। প্রধানমন্ত্রী শ্রমিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহার করে কাজে যোগ দেওয়ার অনুরোধ করেন।

বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) নৃপেণ পাল বলেন, প্রধানমন্ত্রীর এই ঘোষণার পর রাতেই আমরা অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট প্রত্যাহার করেছি। শ্রমিকরা প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তে সন্তুষ্ট। আজ সবাই কাজে যোগ দিয়েছে।

বিডি প্রতিদিন/এমআই

এই রকম আরও টপিক

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর