শিরোনাম
শুক্রবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০ টা

জন্মদিনে নতুন চমক নিয়ে আসছি

জন্মদিনে নতুন চমক নিয়ে আসছি

শাবনূর

জনপ্রিয় অভিনেত্রী শাবনূরের আজ জন্মদিন। ১৯৭৯ সালের ১৭ ডিসেম্বর যশোর জেলার শার্শা উপজেলার নাভারণে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। পারিবারিক নাম কাজী শারমিন নাহিদ নূপুর। চলচ্চিত্রে পরিচালক এহতেশাম তাঁর নাম রাখেন শাবনূর। শাবনূর শব্দের অর্থ রাতের আলো। জন্মদিনে তাঁর বলা কথা তুলে ধরেছেন- আলাউদ্দীন মাজিদ

 

জীবনটা  সাজাতে হয়

‘আমাদের জীবনটা একটু অন্যরকম। আমাদের কারও না কারও অশান্তি আছে, দুঃখবোধ আছে, আমরা ব্যক্তিগত জীবনে অনেক দুঃখী। অনেক বিপর্যস্ত। জীবন মানে সুখ-দুঃখের লুকোচুরি। চাইলেই সবসময় জীবনকে ইচ্ছামতো সাজানো যায় না। তারপরও বলব আদর্শ, সততা বজায় রেখে মনকে যদি ভালোবাসায় ভরিয়ে তোলা যায়, তাহলে জীবনটা নিজের মতো করে সাজানো যায়। এর জন্য ইচ্ছাশক্তিই প্রধান। ‘পাছে লোকে কিছু বলে’ এই বাজে ভয়টা জীবনে চলার পথে বড় অন্তরায়। জীবনকে স্বাচ্ছন্দ্যে এগিয়ে নিতে সৎ সাহস নিয়ে নির্ভয়ে এগিয়ে যেতে হবে, তাহলে সফলতার দেখা মিলবে। ১৯৯৩ সালে চলচ্চিত্রে অভিষেক হওয়া আমার প্রথম ছবি ‘চাঁদনী রাতে’র ব্যর্থতাই শুধু নয়, দীর্ঘ দেড় যুগের ক্যারিয়ারে যত ঝড়ঝাপটা আমার ওপর এসেছে, যত স্ক্যান্ডাল আমাকে ফেস করতে হয়েছে, পৃথিবীর অন্য কোনো শিল্পীকে বোধ করি অতটা করতে হয়নি। আমার প্রথম ছবির প্রযোজক আজিজ মোহাম্মদ ভাই, নায়ক সালমান শাহ, নায়ক রিয়াজ, ফেরদৌস, এক বিদেশি নাগরিককে আমার সঙ্গে জড়িয়ে মিথ্যা সম্পর্কের গুঞ্জন, সালমানের হত্যা/আত্মহত্যার জন্য অভিযুক্ত হওয়া, একাধিকবার এফডিসির বিভিন্ন সমিতি কর্তৃক ব্যান হওয়া, উফফফ, কি ফেস করতে হয়নি আমাকে। একই সঙ্গে পারিবারিক নানা টানাপোড়েনে অতিষ্ঠ ছিল আমার জীবন। বিশেষ করে স্বামীর সঙ্গে আমার ডিভোর্স, অন্য যে কেউ হলে বোধ হয় পাগল হয়ে যেত। সমস্যা ভুলে থাকার জন্য মাদকের আশ্রয় নিত বা আত্মহত্যা করত। আমি কিন্তু সব নেগেটিভিকে মনের জোরে পাশ কাটিয়ে জীবনটাকে পজিটিভ মেনে গড়ে তুলতে পেরেছি বলে সুখ আমার সঙ্গে বিট্রে করতে পারেনি।

মনটা খারাপ, দেশে আসতে পারলাম না

কথা ছিল এবারের জন্মদিনটা দেশেই পালন করব। কিন্তু শেষ পর্যন্ত বিধিবাম। করোনার নতুন ভাইরাস ওমিক্রন এখন বেশ কয়েকটি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। এতে আর দেশে ফেরার সাহস হলো না, তাই মনটা খারাপ হয়ে গেল। এখন অস্ট্রেলিয়ায়ই পরিবারের সঙ্গে দিনটি কাটাতে হচ্ছে। জন্মদিনে দেশবাসীসহ আমার প্রিয় দর্শক, ভক্ত ও মিডিয়ার সবার দোয়া চাই। যেন কর্মময় জীবন নিয়ে দেশ ও দর্শকদের আরও ভালো কিছু কাজ দিয়ে যেতে পারি।

 

জন্মদিনে আমার উপহার

আমার প্রিয় ভক্তদের জন্য সবসময়ই কিছু দায়িত্ব থেকে যায়। সেই দায়িত্ব থেকে এবার নতুন চমক দিতে চাই। দূরে আছি এটা ঠিক, তবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আমি এখন অনেকটাই নিয়মিত। তাই মনে হয় সবার কাছাকাছিই আছি। সবাইকে নিয়মিত দেখছি। অত্যন্ত আনন্দের সঙ্গে জানাচ্ছি যে, আমার জন্মদিন উপলক্ষে পুনরায় ইউটিউব চ্যানেল খুলে নতুন ভিডিও দর্শক-ভক্তদের উপহার দিতে যাচ্ছি। আশা করি চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করবে।

 

আবার অভিনয় করব

আবার ছবিতে অভিনয় করব। কারণ ব্যক্তিগতভাবে আমরা সবাই খুব দুঃখী। আমি চাই মানুষকে বিনোদন দিতে। আমি এখনো কাজ করতে চাই। আমাকে নিয়ে যদি তেমন গল্পের ছবি বানাতে চান, আমার মতো করে গল্প বলতে চান, তাহলে অবশ্যই আমি সেসব ছবিতে অভিনয় করব।

 

সাইবার আক্রমণের মুখে পড়া দুঃসহ অভিজ্ঞতা আমার

সাইবার আক্রমণের মুখে পড়েছিলাম আমি। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে ভক্তদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখতেই এ মাধ্যমগুলোতে সরব হয়েছিলাম। বেশ কয়েক মাস আগে সামাজিক মাধ্যমে নিজের নানা কর্মকান্ডের ভিডিও নিয়মিত প্রকাশের জন্য ‘শাবনূর’ নামের একটি ইউটিউব চ্যানেলও খুলেছিলাম। প্রকাশ করি বেশ কিছু ভিডিও। কিন্তু ইন্টারনেট দুনিয়ায় এসে শুরুতেই নেতিবাচক অভিজ্ঞতার মুখে পড়লাম। পড়লাম সাইবার আক্রমণের মুখে। হ্যাকারদের কবলে পড়ল আমার ফেসবুক পেজ, ইউটিউব চ্যানেল এবং ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট। সবকিছুই হ্যাকড করে নিয়েছে তারা। কেবল ফেসবুক আইডিটি আমার নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। জন্মদিনে আবারও নতুন একটি ইউটিউব চ্যানেল নিয়ে হাজির হব দর্শক-ভক্তদের সামনে।

 

আর সংসারী হওয়ার ইচ্ছা নেই

আমার আর সংসারী হওয়ার কোনো ইচ্ছা নেই। বিয়ের পর স্বামীর সঙ্গে বনিবনা না হওয়া যে কোনো নারীর জন্য ভয়ংকর অভিজ্ঞতা। এ কারণে বাধ্য হয়েই স্বামীকে ডিভোর্স দিতে হয়েছে আমার। অনেকে মনে করেন, একবার কারও প্রতারণার শিকার হলে আর কোনো পুরুষ মানুষকে বিশ্বাস বা বিয়ে করা যায় না। এটি ভুল ধারণা। ভালো-মন্দ পৃথিবীর সব কিছুতেই আছে। তাই বলে ভালো মানুষ যে আর পাওয়া যাবে না তা কিন্তু নয়। আমার আর বিয়ের ইচ্ছা না থাকার কারণ হচ্ছে একমাত্র পুত্র আইজানকে প্রতিষ্ঠা করা। সত্যিকারের মানুষ হিসেবে গড়ে তোলা। শ্রদ্ধেয় ববিতা আপুও কিন্তু একমাত্র সন্তান অনিককে গড়ে তোলার জন্য প্রচ- সেক্রিফাইস করেছেন এবং তার ভালো ফলও পেয়েছেন। আমিও তাই করতে চাই। আমার যদি সন্তান না থাকত তাহলে হয়তো ভালো মনের একজন মানুষকে জীবনসঙ্গী হিসেবে খুঁজে নিতাম। আজকের আমার জন্মদিনে সবার দোয়া চাই আমার ও আমার সন্তান আইজানের জন্য। ওকে যেন মানুষের মতো মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে পারি, আমরা দুজনই যেন প্রকৃত সুখী হয়ে জীবনের শেষ দিনগুলো মহাসুখে কাটাতে পারি।

সর্বশেষ খবর