সোমবার, ২৭ মে, ২০২৪ ০০:০০ টা
আলাপন

ইন্ডাস্ট্রির মানুষ অনেক স্বার্থপর

ইন্ডাস্ট্রির মানুষ অনেক স্বার্থপর

ক্লোজআপ ওয়ান তারকা রিংকু। প্রায় দেড় দশকের বেশি সময় ধরে বাউল, মরমী ও সুফি ঘরানার গান গেয়ে শ্রোতাদের মুগ্ধ করেছেন তিনি। কিন্তু চার বছর হতে চলল রিংকু আর গাইছেন না আগের মতো।  চারবার স্ট্রোক করে রিংকু লড়াই করছেন সুস্থ হওয়ার জন্য। আগের মতো গানে ফিরতে চান তিনি। সম্প্রতি রিংকুর গাওয়া ‘জোসনা বিলাস’-এর শুভ মহরত হয়ে গেল। তার সঙ্গে কথা বলেছেন -পান্থ আফজাল

 

বর্তমানে আপনার শারীরিক অবস্থা কেমন?

শারীরিক অবস্থা আগের চেয়ে একটু ভালো। তবে স্বতঃস্ফূর্তভাবে কথা বলতে পারছি না এখন। ভালো চিকিৎসা হলে ভালো হওয়ার সম্ভব হয়তো। আল্লাহ যদি সেই তৌফিক দান করেন। আর গান গাওয়া কিন্তু ডাক্তারের নিষেধ আছে।

 

অসুস্থ হওয়ার পর ইন্ডাস্ট্রির মানুষ কি খোঁজখবর নিয়েছে?

ইন্ডাস্ট্রির কোনো মানুষই পাইনি। ইন্ডাস্ট্রির মানুষ মনে হয় অনেক বেশি স্বার্থপর। আমাকে কাজে লাগে না তাই কেউ আমাকে ফোন দেয়নি। ভালো লাগে না এসব ভেবে। কাছের মানুষ, বন্ধু-বান্ধব কেউ খোঁজখবর নেয় না। তাই অনেক কষ্ট লাগে।

 

ক্লোজআপ ওয়ানের সেই বন্ধুরাও কি খোঁজ নেয়নি?

কেউ নেয়নি, কেউ না।

 

যেসব অডিও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান বা লেবেলকে আপনি লাভের মুখ দেখিয়েছেন তারাও না?

না, কারও কাছ থেকে কখনো কোনো হেল্প পাইনি আমি। একটা ফোনও দেয়নি বা খোঁজও নেয়নি।

 

চার বছর পর আপনার গাওয়া ‘জোসনা বিলাস’ গান প্রকাশ হয়েছে। কেমন লাগছে?

এ পর্যায়ে এসে এভাবে একটা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আমি সবার সামনে আসব সেটা ভাবিনি। আসলে সুন্দর করে কথা বলা সবারই উচিত। আমিও সুন্দর করে কথা বলতে পারতাম এক সময়। এখন চেষ্টা করি কিন্তু পারি না। তো, আমার জন্য দোয়া করবেন যাতে গান গাইতে পারি। যতদিন বাঁচি গান গেয়ে যাব।

 

ফের নতুন গান নিয়ে ফেরার ইচ্ছা আছে কি?

গানের মানুষ গান ছাড়া কিছু ভালো লাগে না। গান গাইতে ইচ্ছে হয় তবে যদি সুস্থ হয়ে গাইতে পারি তবে ভালো; আর অসুস্থ হয়ে গাওয়ার ইচ্ছে নেই।

 

কখনো একা থাকলে গুনগুন করে আপনার প্রিয় কোনো গান করেন?

এখন আমার মেন্টালি এমন একটা অবস্থা যে আমার মাথার মধ্যে গান কাজ করে না।

 

অনেক দিন গান গাইতে পারছেন না। এ বিষয়টা কেমন লাগে?

খারাপ তো লাগেই তাই না? গান ছাড়া কি থাকা যায়। তবুও তো থাকতে হচ্ছে।

 

সবচেয়ে বেশি কোন জায়গাকে মিস করছেন?

স্টেজ। ক্লোজ আপের পর থেকে স্টেজ করেই তো জনপ্রিয় হলাম। আর স্টেজকেই সবচেয়ে বেশি মিস করি।

 

কোনো স্টেজ পারফরমেন্সের স্মৃতি বলবেন কী?

অনেক স্মৃতি মনে পড়ে। যেমন দেশের বাইরের একটা স্টেজে আমি যখন গান করছি তখন লক্ষ্য করলাম, সেখানকার মানুষের চোখ দিয়ে পানি পড়ছে।

সর্বশেষ খবর