Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:১৯

হারলেও প্রাপ্তি কম নয়

মেজবাহ্-উল-হক

হারলেও প্রাপ্তি কম নয়

ব্যাটিং ভালো হয়নি। বোলিং ছিল যাচ্ছেতাই। ফিল্ডিংয়ে একের পর এক মিস। তারপরও হায়দরাবাদ টেস্টে প্রাপ্তি অনেক। বিশ্বের এক নম্বর দল ভারতের সঙ্গে ২০৮ রানে বাংলাদেশ হারলেও পাঁচ দিন লড়াই করেছে। যেখানে  আগের দুই সিরিজে ভারতের মাটিতে ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ডের মতো টেস্টের শক্তিশালী দলগুলো ৩-৪ দিনে অনায়াসে হেরেছে সেখানে কোহলিদের কাঁপিয়ে দিয়েছিল টাইগাররা। এই টেস্টে মাঠে নামার আগে কথার লড়াইয়ে টাইগারদের পাত্তাই দেননি ভারতীয়রা, তারাই এখন মুশফিকের প্রশংসায় পঞ্চমুখ। ম্যাচ শেষে ভারতের অধিনায়ক কোহলি বললেন, ‘দারুণ লড়াই করেছে বাংলাদেশ।’ সাবেক অধিনায়ক রবি শাস্ত্রী বলেন, ‘এই দলটা (বাংলাদেশ) গত কয়েক বছরে অনেক উন্নতি করেছে। হারলেও তারা লড়াই করেছে।’ হায়দরাবাদ টেস্টের প্রথম ইনিংসে সেঞ্চুরি করেছেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। এটি ছিল তার টানা দ্বিতীয় সেঞ্চুরি। তা ছাড়া বাংলাদেশের চতুর্থ ব্যাটসম্যান হিসেবে তিন হাজারী ক্লাবে নাম লিখিয়েছেন মুশফিক। বাংলাদেশের ক্রিকেটের জন্য সবচেয়ে প্রাপ্তি— ভারতকে বুঝিয়ে দেওয়া সম্ভব হয়েছে টাইগাররা এখন টেস্টেও লড়াই করতে জানে! বাংলাদেশের বিরুদ্ধে খেললে নাকি দর্শক হবে না— সে কারণে টেস্ট মর্যাদা পাওয়ার পর গত ১৭ বছরে একবারও টাইগারদের টেস্ট খেলার আমন্ত্রণ জানায়নি প্রতিবেশী দেশটি। অথচ হায়দরাবাদের রাজীব গান্ধী স্টেডিয়ামে টেস্ট ম্যাচটি দেখার জন্য হাজার হাজার দর্শক উপস্থিত হয়েছিলেন। ম্যাচটি আরও জমে উঠত যদি গতকাল শেষ ইনিংসেও খেলতে পারত বাংলাদেশ। টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় ড্র করতে পারেনি টাইগাররা। প্রথম ইনিংসে ৩৮৮ রান করলেও দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশ গুটিয়ে যায় ২৫০ রানেই। বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬৪ রান করেছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। আর কোনো হাফ সেঞ্চুরিও নেই। ভারতের দুই স্পিনার জাদেজা ও অশ্বিন নিয়েছেন চারটি করে উইকেট। দুই উইকেট শিকার করেছেন ইশান্ত শর্মা। অথচ ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের সামনে বাংলাদেশের বোলাররা কোনো প্রতিরোধই গড়তে পারেননি। ফিল্ডিংও ছিল বাজে। তবে দ্বিতীয় ইনিংসে সুবিধা করতে না পারলেও এই টেস্টে লড়াই হয়েছে ব্যাটসম্যানদের সৌজন্যেই। তাই হারের জন্য ব্যাটসম্যানদের দায়ী করেননি বাংলাদেশের অধিনায়ক মুশফিক। তার কাঠগড়ায় বোলার ও ফিল্ডাররা, ‘আমাদের হাতে অনেক সুযোগ এসেছিল। আমরা যদি প্রথম ইনিংসে ভারতকে পাঁচশ বা ছয়শর মধ্যে আটকে দিতে পারতাম তবে চিত্র অন্যরকম হতো।’


আপনার মন্তব্য