শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ জানুয়ারি, ২০১৯ ২২:৪৭

কাল সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের সমাবেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

কাল সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের সমাবেশ

একাদশ জাতীয় নির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয় উদযাপনে আগামীকাল রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মহাসমাবেশ করবে আওয়ামী লীগ। দলের হ্যাটট্রিক বিজয়কে স্মরণীয় করে রাখতে সব ধরনের প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে। আওয়ামী লীগের দলীয়  প্রতীক নৌকার আদলে তৈরি করা হয়েছে বিশাল মঞ্চ। মাঠের ভিতরে রাখা হবে ছোট-বড় ৫০-এর অধিক নৌকা ও বৈঠা। মহাসমাবেশটি মহাসমুদ্রে রূপ দিতে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ দলের সহযোগী সংগঠনগুলো ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে। গত ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় সংসদ নির্বাচনে টানা তৃতীয় বারের মতো রেকর্ড জয় পেলেও সারা দেশে বিজয় মিছিল করেনি দলটি। তবে বিজয় আনন্দ থেকে নেতা-কর্মীদের বঞ্চিত করতে চায় না আওয়ামী লীগের হাইকমান্ড। তাই আগামীকাল সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মহাসমাবেশের ঘোষণা করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে দেশবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে ভাষণ দেবেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এদিকে বিজয় মহাসমাবেশকে ঘিরে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী রয়েছে সতর্ক। তারা ইতিমধ্যে একটি রুট নির্ধারণ করে দিয়েছে। জানা গেছে, অতীতের মতো এবারও মহাসমাবেশের মঞ্চ সজ্জার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য মির্জা আজমকে। সিনিয়র নেতাদের পরামর্শে তিনি সব ধরনের প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে নিয়ে এসেছেন। মির্জা আজম বাংলাদেশ প্রতিদিনকে জানিয়েছেন, দলীয় প্রতীক নৌকার আদলে তৈরি করা হয়েছে বিজয় মহাসমাবেশের মঞ্চ। মঞ্চের পাশে রাখা হয়েছে একটি ফটোগ্যালারি। যেখানে সরকারের উন্নয়ন ও অর্জনের চিত্র তুলে ধরা হবে।

এদিকে গতকাল সর্বশেষ প্রস্তুতি পরিদর্শন করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, শনিবারের বিজয় মহাসমাবেশ হবে স্মরণকালের সেরা সমাবেশ। আমরা বিশাল বিজয় পেলেও সেভাবে উদযাপন করিনি। হ্যাটট্রিক বিজয়কে স্মরণীয় করে রাখতে এই বিজয় মহাসমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে।

এতে ঢাকা ছাড়াও পার্শ্ববর্তী জেলার নেতারা অংশ নেবেন।

এদিকে এ অনুষ্ঠান উপলক্ষে ট্রাফিক নির্দেশনা দিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। অনুষ্ঠানস্থলে আসা ব্যক্তিদের কোনো প্রকার হ্যান্ডব্যাগ, ট্রলি ব্যাগ, দাহ্য পদার্থ বা ধারালো কোনো বস্তু বহন না করা এবং কর্তব্যরত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সহযোগিতা করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

গতকাল ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, গাবতলী, মিরপুর রোড হয়ে আসা ব্যক্তিরা সায়েন্সল্যাব-নিউমার্কেট হয়ে নীলক্ষেতে নেমে পায়ে হেঁটে টিএসসি হয়ে বিভিন্ন গেট দিয়ে উদ্যানে প্রবেশ করবেন এবং তাদের বাসগুলো বিশ্ববিদ্যালয়ের মল চত্বর এবং নীলক্ষেত হতে পলাশী পর্যন্ত রাস্তার দুই পাশে এক লাইনে পার্কিং করতে হবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর