Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২৩:৪৯

কাউন্সিলের কমিটি চান বিএনপি নেতা-কর্মীরা

কেন্দ্র থেকে তৃণমূল

মাহমুদ আজহার

কাউন্সিলের কমিটি চান বিএনপি নেতা-কর্মীরা

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে গতকাল বিএনপির অঙ্গসংগঠন জাতীয়তাবাদী মৎস্যজীবী দলের ১৫৪ সদস্যবিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। এতে আহ্বায়ক করা হয়েছে রফিকুল ইসলাম মাহতাবকে আর সদস্যসচিব আবদুর রহিমকে। এ নিয়ে ক্ষুব্ধ বিএনপির তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা। এভাবে প্রেস রিলিজের মাধ্যমে কমিটি ঘোষণা করা গণতান্ত্রিক রীতিনীতির পরিপন্থী বলেও মনে করেন তারা। মাঠের নেতারা বলছেন, কমিটি হতে হবে কাউন্সিলের মাধ্যমে নির্বাচিত। চাপিয়ে দেওয়া কমিটি গ্রহণযোগ্য নয়। এ নিয়ে গতকাল সন্ধ্যায় বাংলাদেশ প্রতিদিনের এ প্রতিবেদকের সঙ্গে কথা হয় বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য ও মুক্তিযোদ্ধা দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. আবুল হোসেনের। তিনি বলেন, ‘এভাবে চাপিয়ে দেওয়া কমিটি হতে পারে না। হঠাৎ করেই প্রেস রিলিজের মাধ্যমে কমিটি হলে দলে গণতন্ত্র হুমকির মুখে পড়বে। তৃণমূল নেতা-কর্মীদের মতামত নিয়ে কাউন্সিলের মাধ্যমে কমিটি করা উচিত।’ এ প্রসঙ্গে তৃণমূল বিএনপির আরেক নেতা বলেন, তিন সদস্যের, পাঁচ সদস্যের কিংবা আহ্বায়ক কমিটি দিয়ে মাসের পর মাস বছরের পর বছর চলে যায়। কিন্তু কোনো কমিটি হয় না। কেন্দ্রও কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করে না। এটা একটা আইওয়াশ। এই কমিটিরও দুই-তিন বছর চলে গেলে কোনো কিছুই হবে না।

তবে তা খন্ডন করেন বিএনপির মৎস্যবিষয়ক সম্পাদক লুৎফর রহমান কাজল। তিনি বলেন, ‘এই কমিটি অস্থায়ী। তিন মাসের মধ্যে এই কমিটিকে কাউন্সিল করে নির্বাচন দিতে হবে। তবে কমিটির যারা নেতৃত্বে রয়েছেন, তারা পরে কমিটিতে থাকতে পারবেন না। কাউন্সিলের মাধ্যমে কমিটি দিতে ব্যর্থ হলে আহ্বায়ক কমিটির কার্যকারিতা বাতিল হবে।’

এর আগে সম্প্রতি বিএনপি সমর্থিত চিকিৎসকদের সংগঠন ড্যাব ও প্রকৌশলীদের সংগঠন অ্যাবের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা দেওয়া হয়। এ নিয়েও বিএনপির মাঠপর্যায়ের নেতা-কর্মীদের মধ্যে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়।

সম্প্রতি রাজশাহী বিভাগ ঘুরে আসেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু। তিনি রাজশাহী মহানগর ছাড়াও অন্তত আটটি জেলায় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। এ সময় মাঠপর্যায়ের নেতা-কর্মীরা বিএনপির দায়িত্বশীল এই নেতাকে পরামর্শ দেন, কেন্দ্র থেকে যেন কোনো কমিটিই চাপিয়ে দেওয়া না হয়। ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, থানা, উপজেলা, পৌর, জেলা ও মহানগরে সম্মেলনের মাধ্যমে নির্বাচিত কমিটি গঠন করতে হবে। কোনোভাবেই ‘সুপার ফাইভ’ বা ‘সুপার থ্রি’ কমিটি যেন ঘোষণা না দেওয়া হয়। সাবেক মন্ত্রী বরকত উল্লাহ বুলু বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ‘তৃণমূল নেতা-কর্মীদের সঙ্গে আমিও একমত। সব কমিটি যেন কাউন্সিলের মাধ্যমে নির্বাচিত হয়, সেটিই আমি চাই।’

বরিশাল বিভাগ সফর করছেন বিএনপির আরেক ভাইস চেয়ারম্যান মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন। তিনি বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ‘তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা চান সব পর্যায়ে নির্বাচিত কমিটি। আমিও তাদের মতামতের ভিত্তিতেই ওয়ার্ড, ইউনিয়ন ও থানা কমিটি গঠন করতে দিকনির্দেশনা দিয়েছি। বর্তমান সরকারের দুঃসময় মোকাবিলায় এটিই সঠিক পন্থা বলে আমি মনে করি।’

জানা যায়, সম্প্রতি ঘোষিত কয়েকটি কমিটি ঘোষণার বিষয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যরা জানেন না। গুটিকয় নেতা এ বিষয়ে ওয়াকিবহাল। এ নিয়ে দলের ভিতরে-বাইরেও মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। কেউ কেউ বলছেন, অতীতেও এভাবে ‘পকেট কমিটি’ হয়েছে। আর ওই ‘পকেট’ কমিটিই দীর্ঘ সময় বহাল থেকেছে। এক মাসের সময়সীমা দেওয়া হলেও বছরের পর বছর গড়িয়েছে কিন্তু ওই পকেট কমিটিই রয়ে গেছে। কারও বিরুদ্ধে কোনো শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। স্থায়ী কমিটির এক সদস্য জানান, কমিটিগুলো কে করছে, কোথা থেকে করছে, তা স্থায়ী কমিটির সদস্যরা জানেন না, কিংবা জানানো হয়নি। অতীতেও এমনটি দেখা গেছে। তবে এ প্রসঙ্গে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, ‘মৎস্যজীবী দলের কমিটি ঘোষণা সম্পর্কে আমি কিছুই জানি না। এ নিয়ে আমি কোনো মন্তব্যও করব না।’

মৎস্যজীবী দলের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা : গতকাল জাতীয়তাবাদী মৎস্যজীবী দলের বর্তমান কমিটি বিলুপ্ত করে আহ্বায়ক কমিটি গঠিত হয়েছে। আহ্বায়ক মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম মাহতাব, সদস্যসচিব আবদুর রহিম এবং ২৩ জন যুগ্ম-আহ্বায়ক আর ১২৯ জন সদস্যসহ সর্বমোট ১৫৪ সদস্যবিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। গতকাল বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা বলা হয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর