শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৯ এপ্রিল, ২০১৯ ২২:৫৫

টাঙ্গাইলে অপহরণের পর পাকিস্তানি তরুণী ধর্ষিত

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

টাঙ্গাইলে অপহরণের পর পাকিস্তানি তরুণী ধর্ষিত

মায়ের সঙ্গে বাংলাদেশে বেড়াতে এসে অপহৃত হয়ে ধর্ষণের শিকার হয়েছে এক পাকিস্তানি কিশোরী। গত ১৬ এপ্রিল টাঙ্গাইলের গোপালপুরে এ ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, ধর্ষিত কিশোরী পাকিস্তানের নিউ করাচির সুপার হাইওয়েজ রোডের নাগরিক ও স্থানীয় একটি স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্রী। পাঁচ মাস আগে পাকিস্তানি নাগরিক মা ছয় মাসের ভিসায় কন্যাকে সঙ্গে নিয়ে উত্তর গোপালপুর গ্রামের বাসিন্দা (সম্পর্কে ভাসুর) আবদুল ওয়াদুদের বাড়িতে ওঠেন। এরপর থেকেই আরেক ভাসুর আবুল হোসেনের বখাটে ছেলে আল আমিন ওই কিশোরীকে উত্ত্যক্ত করতে থাকে। এ অবস্থায় ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে আসায় আল আমিন গত ১৬ এপ্রিল রাতে একদল সন্ত্রাসীর সহযোগিতায় কিশোরীকে অপহরণ করে। পরে তাকে আটকে রেখে ধর্ষণ করে। পরদিন কিশোরীর মা আল আমিনসহ তিনজনকে আসামি করে গোপালপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও গোপালপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আসলাম উদ্দিন জানান, বৃহস্পতিবার টাঙ্গাইল শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ধর্ষিতার মেডিকেল পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। কিন্তু ধর্ষিতা বাংলায় কথা বলতে না পারায় এবং দোভাষী না পাওয়ায় বেশ সমস্যা হচ্ছে। গতকাল গোপালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাসান আল মামুন জানান, গোপালপুরে পাকিস্তানি এক কিশোরীকে অপহরণের পর ধর্ষণ মামলায় ধর্ষকের মাকে গ্রেফতার ও অপহৃত পাকিস্তানি কিশোরীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। থানায় মামলা দায়েরের পরপরই অভিযান চালিয়ে ঘটনার প্রধান আসামি আল আমিনের মাকে গ্রেফতার করা হয়। তবে ধর্ষক আল আমিন পলাতক।

মানববন্ধন : টাঙ্গাইলে স্বামীকে আটকে রেখে স্ত্রীকে গণধর্ষণ মামলার আসামিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে গতকাল মানববন্ধন করা হয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর