শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১ জুন, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩১ মে, ২০১৯ ২৩:৫৯

লজ্জার হারে শুরু পাকিস্তানের

ক্রীড়া প্রতিবেদক

লজ্জার হারে শুরু পাকিস্তানের

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও পাকিস্তানকে নিয়ে আগাম কিছুই বলা অসম্ভব। অথচ বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হওয়ার রেকর্ড রয়েছে দুই দলেরই। ওয়েস্ট ইন্ডিজ দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন। পাকিস্তান একবারের। গতকাল নটিংহ্যামের ট্রেন্ট ব্রিজে মুখোমুখি হয়েছিল          দুই সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন। কিন্তু ম্যাচটি ঠিক জমেনি। ক্যারিবীয় বোলারদের গতি, সুইং ও           বাউন্সে অসহায় ছিলেন পাক ব্যাটসম্যানরা। নটিংহ্যামের ট্রেন্ট ব্রিজে বোলিং শাসিত ১০০ ওভারের ম্যাচের সমাপ্তি হয়েছে মাত্র ৩৫.২ ওভারে। পাকিস্তানকে ৭ উইকেটের বড়                

ব্যবধানে হারাতে ক্যারিবীয়রা খেলেছে মাত্র ১৩.২ ওভার বা ৬৮ বল। বাকি ছিল ২১৮ বল। হাফসেঞ্চুরি করেছেন ‘ইউনিভার্স বস’ ক্রিস গেইল। ম্যাচ সেরা হয়েছেন পাকিস্তানকে গুঁড়িয়ে দেওয়া ফাস্ট ওশানে থমাস। এ নিয়ে টানা ১২ ম্যাচ হারল পাকিস্তান। বিশ্বকাপে পাকিস্তানের শুরুটা কখনোই ভালো হয় না। ১৯৯২ সালের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন পাকিস্তান সেবার প্রথম ম্যাচে বড় ব্যবধানে হেরেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে। ২৭ বছর পর পাকিস্তানের বিশ্বকাপ মিশন শুরু হয়েছে ক্যারিবীয়দের কাছে হেরেই। ক্রিকেট মহাযজ্ঞে পাকিস্তানকে হতাশায় ডুবিয়ে দারুণ শুরু করেছে প্রথম দুই আসরের চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সেবার হারিয়েছিল ১০ উইকেটে। এবার হারাল ৭ উইকেটে। মেলবোর্নে হাফসেঞ্চুরি করেছিলেন ব্রায়ান লারা ও ডেসমন্ড হাইন্স। নটিংহ্যামে ট্রেন্টব্রিজে পাকিস্তানি বোলারদের তুলাধুনা করে ২৯০ ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ৫২ নম্বর হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন ক্রিস গেইল। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নিয়মিত উইকেট হারাতে থাকে পাকিস্তান। বিশেষ করে জেসন হোল্ডার, আন্দ্রে রাসেল ও গ্রেগ থমাসের গতি, বাউন্স ও সুইংয়ের বিপক্ষে নাকাল হয়ে ২১.৪ ওভারে মাত্র ১০৪ রানে গুটিয়ে যায় ৯২ সালের চ্যাম্পিয়নরা। ম্যাচ সেরা ওশানে থমাসের স্পেল ছিল ৫.৪-০-২৭-৪। হোল্ডার ৫ ওভারের ৪২ রানের খরচে নেন ৩ উইকেট। মিতব্যয়ী ছিলেন রাসেল। তার বোলিং স্পেল ছিল চোখধাঁধানো ৩-১-৪-২। পাকিস্তানের পক্ষে সর্বোচ্চ ২২ রান করেন বাবর আজম ও ফকর জামান। ১০৬ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে দুই ক্যারিবীয় ওপেনার শাই হোপ ও গেইল ৩৬ রানের ভিত দেন। হোপ ১১ রানে সাজঘরে ফিরলেও গেইল ৫০ রানের টর্নেডো ইনিংস খেলেন মাত্র ৩৪ বলে ৩ ছক্কা ৬ চারে। শেষ দিকে নিকোলাস পুরান ৩৬ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন ১৯ বলে ৪ চার ও ২ ছক্কায়। ওয়েস্ট ইন্ডিজের পরের ম্যাচ ৬ জুন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে নটিংহ্যামেই। পাকিস্তানের পরের ম্যাচ ৩ জুন, প্রতিপক্ষ স্বাগতিক ইংল্যান্ড।

 


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর