শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২৯ জুন, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৮ জুন, ২০১৯ ২২:৫৪

ধরা পড়েনি মূল খুনিরা

মিন্নির বাড়িতে পুলিশ, সীমান্তে রেড অ্যালার্ট জারি

রাহাত খান, বরিশাল

ধরা পড়েনি মূল খুনিরা

বরগুনায় প্রকাশ্যে সড়কে স্ত্রীর সামনে নৃশংসভাবে শাহনেওয়াজ রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় মূল খুনিদের কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। তিন দিন পার হয়ে যাওয়ার পরও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া বীভৎস খুনের ভিডিও ফুটেজে থাকা কোনো খুনি গ্রেফতার না হওয়ায় নিহতদের স্বজনসহ এলাকাবাসী ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। গা শিউড়ে ওঠা বহুল আলোচিত এই খুনের ঘটনাটি ঘুরে-ফিরে আলোচিত হচ্ছে সবার মাঝে। তবে পুলিশ বলছে, খুনিদের ধরতে লঞ্চঘাট-বাস টার্মিনালসহ পথে পথে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ। দ্রুত সময়ের মধ্যেই তারা পুলিশের জালে ধরা পড়বে বলে আশা বরগুনার পুলিশ সুপারের। অন্যদিকে, নিহতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির নিরাপত্তায় তাদের বাড়িতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পুলিশ সদর দফতর সূত্র বলছে, বরগুনার রিফাত শরীফকে হত্যার ঘটনার পর হত্যাকাণ্ডের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে তা সরাসরি তদারকি করছে পুলিশ সদর দফতর। খুনিরা যাতে কোনোভাবেই দেশ ছেড়ে পালাতে না পারে সেজন্য দেশের সব বিমান, স্থল এবং সমুদ্রবন্দরে বিশেষ নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতার করতে জেলা পুলিশের পাশাপাশি পিবিআই, সিআইডি, র‌্যাব ও ডিএমপির কাউন্টার টেররিজম ইউনিট তৎপর রয়েছে। একই সঙ্গে খুনিদের ব্যাপারে কোনো তথ্য থাকলে তা পুলিশকে জানাতে অনুরোধ করা হয়েছে। বরিশাল রেঞ্জের ডিআইজি মো. শফিকুল ইসলাম জানান, মামলার আসামিরা যাতে কোথাও পালাতে না পারে সে জন্যই বিভাগের প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে পুলিশের নজরদারি বাড়ানো হয়েছে এবং যানবাহন তল্লাশি করা হচ্ছে। এদিকে রিফাত হত্যার ঘটনায় গতকালও বরগুনায় থমথমে পরিস্থিতি দেখা যায়। নিহতের পরিবারে চলে স্বজন হারানোর মাতম। বীভৎস নৃশংসতার সেই চিত্রই  ঘুরে-ফিরে আলোচিত হচ্ছে সবার মাঝে। মানুষ দিন দিন অমানুষে পরিণত হচ্ছে বলে বলাবলি করছেন সবাই। রিফাত হত্যার বিচারের দাবিতে আজ শনিবার সকালে পৌর শহরের প্রেস ক্লাবের সামনে স্থানীয় এলাকাবাসীর উদ্যোগে এক মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন রিফাতের বন্ধু মঞ্জুরুল আলম জন। মানববন্ধনে বরগুনার বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার হাজার হাজার মানুষ অংশগ্রহণ করবে বলে তিনি জানান। জন বলেন, সিসি ক্যামেরার ফুটেজে খুনিদের স্পষ্ট চেহারা দেখা যাচ্ছে। এর পরও এত বড় একটি চাঞ্চল্যকর হত্যাকাে র প্রধান অভিযুক্তদের গ্রেফতার না করতে পারা পুলিশের ব্যর্থতা। এতে মানুষ স্তম্ভিত এবং হতবাক। তবে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে বরগুনা শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে বলে জানিয়েছেন সদর থানার ওসি আবির মোহাম্মদ হোসেন। জানা গেছে, খুনিদের ধরতে দক্ষিণাঞ্চলের সব লঞ্চঘাট-বাস টার্মিনালসহ গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট এবং আবাসিক হোটেলসহ বিভিন্ন স্থানে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ। তারা বরগুনার কাউকে পেলেই তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন বলে জানান নগরীর নথুল্লাবাদ কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালের দায়িত্বে থাকা বিএমপির এএসআই ফরিদ। রিফাত হত্যকারীদের ধরতেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এরই মধ্যে সন্দেহজনক আসামি হিসেবে বৃহস্পতিবার রাতে বরিশাল নদীবন্দর থেকে মেট্রোপলিটন পুলিশ বরগুনার চার যুবককে আটক করলেও পরে জিজ্ঞাসাবাদে তাদের কোনো সংশ্লিষ্টতা না পেয়ে ওই রাতেই তাদের ছেড়ে দেয়। আটক ৪ যুবকের বাড়ি বেতাগী এবং তারা বরিশাল পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী বলে জানিয়েছেন কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি মো. নুরুল ইসলাম।

মিন্নিদের বাড়িতে পুলিশ : রিফাত খুনের পর থেকে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছিলেন মিন্নির পরিবারের সদস্যরা। এরপর পুলিশের কাছে আবেদন করলে পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন মিন্নির বাবার বাড়িতে পুলিশ মোতায়েন করেন বলে জানিয়েছেন মিন্নির চাচা আবু সালেহ। একজন এসআইয়ের  নেতৃত্বে অস্ত্রধারী তিন কনস্টেবল মিন্নির বাবার বাড়িতে নিয়োজিত আছে বলে জানা গেছে।

তিন আসামির রিমান্ড মঞ্জুর : বরগুনা প্রতিনিধি জানান, বরগুনায় প্রকাশ্য দিবালোকে শাহনেওয়াজ রিফাত (রিফাত শরীফ) নামের এক যুবককে কুপিয়ে হত্যার মামলায় গ্রেফতার করা তিন আসামির মধ্যে চন্দন ও হাসানের ৭ দিন ও নাজমুল হাসানের ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত। গতকাল বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে বরগুনার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. রাসেল এ আদেশ দেন। এর আগে সকাল ১১টার দিকে আসামিদের আদালতে হাজির করে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা হুমায়ন কবির ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। আদালতের বিচারক বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে এজাহারভুক্ত আসামি চন্দন ও মো. হাসানের ৭ দিন করে ও অজ্ঞাতনামা আসামি নাজমুল আহসানের ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বরগুনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) হুমায়ন কবির বলেন, আমরা আদালতের কাছে অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য প্রত্যেক আসামির জন্য ১০ দিন করে রিমান্ডের আবেদন করি। আদালতের বিচারক দুজনের ৭ দিন ও একজনের ৩ দিন রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।

জড়িত সবাই অচিরেই ধরা পড়বে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেছেন, বরগুনায় দিনদুপুরে প্রকাশ্য সড়কে স্ত্রীর সামনে রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় জড়িত মোট ১৩ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। হত্যাকাে  জড়িত তিনজন ধরা পড়েছে। বাকিরা শিগগিরই ধরা পড়বে। এ ছাড়া আসামিদের কেউ যাতে দেশত্যাগ করতে না পারে, সে জন্য দেশের সব বিমানবন্দর, স্থলবন্দর ও নৌবন্দরে সতর্কতা জারির কথাও জানান তিনি। 

গতকাল পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডে পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে ইতিহাস, ঐতিহাসিক ভবন সংরক্ষণ ও পারিপার্শ্বিক উন্নয়ন শীর্ষক প্রকল্পের কাজের উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এসব বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। 

প্রশ্রয়দাতাদেরও গ্রেফতার করতে হবে : বরগুনার রিফাত হত্যাকারীদের রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক আশ্রয়-প্রশ্রয়দাতাদেরও গ্রেফতারের আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোহাম্মদ নাসিম। তিনি বলেন, এই খুনিদের যারা আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়েছে তাদেরও গ্রেফতার করতে হবে। কারণ তাদের আশ্রয় না দিলে তারা এতবড় দুঃসাহস দেখাতে পারত না। একটা যুবককে প্রকাশ্য দিবালোকে কুপিয়ে হত্যা করার মতো তারা সাহস দেখায় কীভাবে? গতকাল রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমির মহড়া কক্ষে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

রিফাতের হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাইলেন ভিপি নুর : বরগুনায় রিফাত শরীফের হত্যাকারীদের অবিলম্বে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন ঢাকা বিশ^বিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুর। গতকাল বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যে রিফাত শরীফ হত্যার বিচারের দাবিতে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ আয়োজিত মানববন্ধনে তিনি এই দাবি জানান।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর