শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২৯ জুন, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৮ জুন, ২০১৯ ২৩:০৩

অসময়ে চেনা রূপে দক্ষিণ আফ্রিকা

ক্রীড়া প্রতিবেদক

অসময়ে চেনা রূপে দক্ষিণ আফ্রিকা

দিমুথ কারুণারত্ন, ল্যাসিথ মালিঙ্গাদের সেমিফাইনাল খেলার স্বপ্নটাকে ডারহ্যামের বাতাসে ভাসিয়ে দিলেন হাশিম আমলা ও ফাফ ডু প্লেসিস। সেরা চারে জায়গা নিতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জিততেই হতো শ্রীলঙ্কাকে। কিন্তু জিততেই হবে এমন আকাশসম চাপের সঙ্গে পেড়ে উঠেনি দলটি। ফল ৯ উইকেটের বড় হার। এই হারে ধূলিসাৎ হয়েছে সেমিফাইনালের স্বপ্ন। দক্ষিণ আফ্রিকার বিশ্বকাপ শেষ হয়েছে আগেই। তাই আনুষ্ঠানিকতার ম্যাচগুলোতে নিজেদের প্রমাণের তাগিদ ছিল। সেই কাজটিই করেছে প্রোটিয়ারা। সেই কাজে যোগ্য নেতৃত্ব দেন আমলা ও ডু প্লেসিস দুরন্ত ব্যাটিং করে। লঙ্কান বোলারদের সাধারণ মানে নামিয়ে আসরে দক্ষিণ আফ্রিকা দ্বিতীয় জয় তুলে নেয় ৭৬ বল হাতে রেখে। দলটির শেষ ম্যাচ বিশ্বচ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৬ জুলাই। দলটির পয়েন্ট ৮ ম্যাচে ৫। এই হারে শ্রীলঙ্কার পয়েন্ট ৭ ম্যাচে ৬। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও ভারতের বিপক্ষে জিতলেও  সেমিফাইনাল খেলা অসম্ভব দ্বীপরাষ্ট্রের। বিশ্বকাপে গতকালই প্রথম ম্যাচ খেলেছেন ডুয়াইন প্রিটোরিয়াস। ডারহ্যামের চেস্টার-লি বোলিং সহায়ক উইকেটে দুরন্ত বোলিং করে সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন শ্রীলঙ্কাকে মাত্র ২০৩ রানে বেঁধে ফেলেন। ১০ ওভারের স্পেলে ২৫ রানের খরচে ৩ উইকেট নিয়ে ম্যাচ সেরা হয়েছেন প্রিটোরিয়াস। তার গতি, বাউন্স ও সুইংয়ের বিপক্ষে দ্বীপরাষ্ট্রের কোনো ব্যাটসম্যানই পঞ্চাশের কোনো ইনিংস খেলতে পারেননি। সর্বোচ্চ ৩০ রান করে করেছেন কুশল পেরেরা ও ফার্নান্দো। এছাড়া ২৪ ধনঞ্জয় ডি সিলভা, জীবন মেন্ডিস ২৩, থিসারা পেরেরা ২১ রান করেন। ম্যাচসেরা প্রিটোরিয়াস ছাড়া ৩ উইকেট নেন মরিস এবং ২ উইকেট নেন রাবাদা। ২০৪ রানের টার্গেটে ৩১ রানে সাজঘরে ফিরে যান কুইন্টন ডি কক। এরপর দ্বিতীয় উইকেটে ১৭৫ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়েন আমলা ও অধিনায়ক ডু প্লেসিস। আমলা অপরাজিত থাকেন ৮০ রানে।

 ১০৫ বলের ইনিংসটিতে ছিল ৫টি বাউন্ডারি। ফাফ ডু প্লেসিস অপরাজিত ছিলেন ৯৬ রানে। নার্ভাস নাইনটিজের ইনিংসটি সাজানো ছিল ১০৩ বলে ১০ চার ও এক ছক্কায়।   


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর