শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৬ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৫ আগস্ট, ২০১৯ ২৩:১৮

সচিব ব্রাজিল অতিরিক্ত সচিব হজে

আটকে আছে সরাসরি ডেঙ্গু শনাক্তকরণ কিট আমদানির সিদ্ধান্ত, সব ধরনের কর মওকুফ এনবিআরের

রুকনুজ্জামান অঞ্জন

সচিব ব্রাজিল অতিরিক্ত সচিব হজে

সিনিয়র সচিব মফিজুল ইসলাম গেছেন ব্রাজিল সফরে। অতিরিক্ত সচিব (আইআইটি) শাখাওয়াত হোসেন হজে। ফলে এ সপ্তাহে অফিস শুরুর পর গত দুই দিনেও ডেঙ্গু শনাক্তকরণ কিটস সরাসরি আমদানির সিদ্ধান্ত দিতে পারেনি বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। এদিকে মন্ত্রণালয় না পারলেও ডেঙ্গু কিটস, ডেঙ্গু রিজেন্ট এবং কিটস ফর প্লাটিলেট অ্যান্ড প্লাজমা এই তিনটি উপাদান আমদানিতে আগামী ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত সব ধরনের কর মওকুফের সিদ্ধান্ত জানিয়ে গতকাল প্রজ্ঞাপন জারি করেছে এনবিআর।

হাসপাতালগুলোতে ডেঙ্গু শনাক্তকরণ কিটস নেই। জ্বরাক্রান্ত রোগীরা চিকিৎসকের কাছে গেলেও কিটসের অভাবে ডেঙ্গু পরীক্ষা করা সম্ভব হচ্ছে না। ভয়াবহ এই পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রচলিত পদ্ধতির বাইরে ডেঙ্গু কিটসসহ প্রয়োজনীয় উপাদান সরাসরি আমদানির সুযোগ এবং শুল্ক ও কর মওকুফ সুবিধা চেয়ে ১ আগস্ট বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও এনবিআরে চিঠি পাঠানো হয়। এরপর শুক্র ও শনি দুই দিন ছুটিসহ পেরিয়ে গেছে পাঁচ দিন। এখনো চিঠিটি ঘুরছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের এ-টেবিল থেকে ও-টেবিলে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সূত্রগুলো জানায়, সিনিয়র সচিবের টেবিলে চিঠিটি আসার পর তিনি বিদেশ সফরে থাকায়, সচিবের দায়িত্বে থাকা অতিরিক্ত সচিবের টেবিল থেকে এটি আরেক অতিরিক্ত সচিব (আইআইটি) শাখাওয়াত হোসেনের টেবিলে পাঠানো হয়। আমদানি-সংক্রান্ত বিষয়গুলো দেখেন অতিরিক্ত সচিব পদমর্যাদার এই কর্মকর্তা। তবে এই কর্মকর্তাও আছেন হজের ছুটিতে। সূত্রগুলো আরও জানায়, ব্রাজিল সফররত বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিবের দক্ষিণ আফ্রিকা যাওয়ার কথা ছিল। তবে তিনি সেখানে না গিয়ে ঢাকায় ফিরে আসছেন। গতকাল রাতেই তার ঢাকায় ফেরার কথা। তিনি ফিরে এলেই এ-সংক্রান্ত ফাইলটি তোলা হবে। বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে ঔষধ প্রশাসন অধিদফতরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মাহবুবুর রহমান বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ‘আমরা প্রায় এক সপ্তাহ আগে চিঠি পাঠিয়েছি, যাতে করে আমদানিকারকরা ডেঙ্গু কিটসসহ প্রয়োজনীয় উপাদান সরাসরি আমদানির সুযোগ পান। বর্তমানে যে পরিস্থিতি বিরাজ করছে, তাতে বলা যায় ডেঙ্গু সমস্যাটি এখন সবচেয়ে জরুরি এবং সর্বোচ্চ গুরুত্বের দাবি রাখে।’ ‘আপনি যদি ব্যাংকে এলসি খুলে বিদেশ থেকে প্রচলিত পদ্ধতিতে ডেঙ্গু কিটস ও প্রয়োজনীয় উপাদান আমদানির প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করতে যান, তাতে সব মিলিয়ে শিপমেন্ট আসতে প্রায় ছয় সপ্তাহ সময় লাগবে। তত দিনে হয়তো অনেক ক্ষতি হয়ে যাবে।’ ঔষধ প্রশাসন অধিদফতরের মহাপরিচালক জানান, ‘শুধু বাণিজ্য মন্ত্রণালয় নয়, ডেঙ্গু কিট আমদানিতে সব ধরনের ট্যাক্স মওকুফের জন্য এনবিআর এবং আমদানিকৃত কিট দ্রুত ছাড়ের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে কাস্টমসকেও চিঠি দিয়েছি আমরা। দুর্যোগকালীন পরিস্থিতিতে জরুরি প্রয়োজনে সাময়িকভাবে আগামী ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত এই সুবিধার সুপারিশ করেছি।’ এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিবের দায়িত্বে থাকা (অতিরিক্ত সচিব) শফিকুল ইসলাম বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ‘সরাসরি আমদানির সুযোগ সম্পর্কিত চিঠিটি আমাদের কাছে এসেছে গত রবিবার। এই সিদ্ধান্তের সঙ্গে আমদানি নীতির বিষয়টি জড়িত। এটি একটি মেজর সিদ্ধান্ত। আমাদের মন্ত্রী মহোদয় ছিলেন না, সচিব মহোদয় নেই। আশা করছি মঙ্গলবার এ বিষয়ে একটি সিদ্ধান্ত নেওয়া যাবে।’

ডেঙ্গু শনাক্তকরণ কিটস আমদানিতে কর মওকুফ : ঔষধ প্রশাসন অধিদফতরের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ডেঙ্গু কিটস আমদানিতে সাময়িকভাবে সব ধরনের কর মওকুফ করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে প্রতিষ্ঠানটির সদস্য (গ্রেড-১) ও চেয়ারম্যান (রুটিন দায়িত্ব) সুলতান মো. ইকবাল গতকাল ডেঙ্গু টেস্ট কিটস, ডেঙ্গু রিজেন্ট এবং কিটস ফর প্লাটিলেট অ্যান্ড প্লাজমা এই তিনটি উপাদান আমদানির ওপর সব ধরনের কর মওকুফের প্রজ্ঞাপন জারি করেন। ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত এ সুবিধা কার্যকর থাকবে। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ঔষধ প্রশাসন অধিদফতর কর্তৃক অনুমোদিত পরিমাণ পণ্যগুলো আমদানিতে এই সুবিধা কার্যকর হবে। আমদানিকৃত পণ্য মানসম্মত কি না তা ঔষধ প্রশাসন অধিদফতর মনিটরিং করবে।


আপনার মন্তব্য