Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২৪ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৩ আগস্ট, ২০১৯ ২৩:৪৪

ঢাকার দুই সিটিতে ডজন প্রার্থী আওয়ামী লীগে

রফিকুল ইসলাম রনি

ঢাকার দুই সিটিতে ডজন প্রার্থী আওয়ামী লীগে

আসন্ন তিন সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে দলের ভিতরে-বাইরে। কেউ কেউ বলছেন, তিন সিটির মধ্যে ঢাকা দক্ষিণে প্রার্থী বদল হবে। আবার কেউ বলছেন, পরিবর্তন আসবে চট্টগ্রামে। প্রার্থী বদলের আলোচনায় আছে ঢাকা উত্তর সিটিও। কিন্তু বর্তমানদের বিকল্প প্রার্থী কে হবেন? সে উচ্চতায় কে আছেন, তা কেউ বলছেন না। দলের মনোনয়ন পেতে ইতিমধ্যে ডজনখানেক প্রার্থী মাঠে তৎপরতা চালাচ্ছেন। পুরনোর ওপর আওয়ামী লীগ আস্থা রাখবে নাকি সিটির নেতৃত্বে নতুন মুখ আসবে- সে বিষয়ে চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা। তবে সবকিছু নির্ভর করছে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তের ওপর। সূত্রমতে, চলতি বছরের ডিসেম্বরে ঢাকা দুই সিটি ও মার্চে চট্টগ্রাম সিটিতে ভোট করার প্রস্তুতি নিচ্ছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেবে ধরে নিয়েই ভোটের প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থীদের ব্যাপারে নতুন করে খোঁজখবর নিচ্ছেন দলের হাইকমান্ড। সাংগঠনিক দক্ষতার পাশাপাশি ব্যক্তি-জনপ্রিয়তা দেখা হচ্ছে। প্রার্থী করা হলে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর চেয়ে ভালো ও মন্দ দিক খতিয়ে দেখা হচ্ছে। প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ এই নির্বাচনে গ্রহণযোগ্য প্রার্থী বেছে নেবে আওয়ামী লীগ। সিটি নির্বাচনে জনপ্রিয় ও গ্রহণযোগ্য প্রার্থীকে গুরুত্ব দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘কয়েক মাস পর ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচন। জোর করে ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে শেখ হাসিনা নির্বাচনে জিততে চান না। আমরা জনগণকে খুশি করে জনগণের রায় মেনে নির্বাচিত হতে চাই।’ সিটি করপোরেশনের জনপ্রতিনিধিদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আপনারা কেউ যদি ভাবেন ক্ষমতায় আছি জিতেই যাব, তাহলে ভুল করবেন। আপনাকে জনগণের মন জয় করে, জনগণের ভোটেই নির্বাচিত হতে হবে। সিটি নির্বাচনে আমাদের বিজয়ী হতে হবে।’ রাজধানীবাসীর সেবার মান বৃদ্ধির লক্ষ্যে ২০১১ সালের ২৯ নভেম্বর ঢাকা সিটি করপোরেশনকে উত্তর-দক্ষিণ দুই ভাগে ভাগ করা হয়। এর প্রায় চার বছর পর দুই সিটিতে নির্বাচন হয়। সেই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত দুই মেয়র প্রার্থী আনিসুল হক ও মোহাম্মদ সাঈদ খোকন বিজয়ী হয়ে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। লন্ডনের ওয়েলিংটন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২০১৭ সালের ৩০ নভেম্বর মারা যান ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র আনিসুল হক। চলতি বছরের ২৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকা উত্তর সিটির উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী হিসেবে মেয়র পদে বিজয়ী হন ব্যবসায়ী নেতা মো. আতিকুল ইসলাম। ৭ মার্চ শপথ নেন তিনি। তবে দুই সিটি করপোরেশনের মেয়াদ একসঙ্গে আগামী বছরের মে মাসেই শেষ হবে। স্থানীয় সরকার (সিটি করপোরেশন) আইন অনুযায়ী, পাঁচ বছর মেয়াদ পূর্ণ হওয়ার ১৮০ দিন আগে ভোট করতে হবে। সে হিসাবে ঢাকায় আগামী ডিসেম্বরে ভোট হওয়ার জোর সম্ভাবনা রয়েছে। জানা গেছে, ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে এবারও প্রার্থী হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন বর্তমান মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন। দীর্ঘদিন তিনি নগরপিতা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। সাঈদ খোকনের সাফল্য-ব্যর্থতার পাল্লার সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে তার প্রয়াত পিতা ঢাকার প্রথম নির্বাচিত মেয়র ও মহানগরী আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ হানিফের নাম। সাঈদ খোকন ছাড়াও দলের মনোনয়ন চাইতে পারেন বিভিন্ন পর্যায়ের কমপক্ষে নয়জন নেতা। এদিকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে বর্তমান মেয়র আতিকুল ইসলাম দায়িত্ব পালনের খুব কম সময় পেয়েছেন। আগামীতে তিনি দলীয় মনোনয়ন চাইবেন। দলের প্রার্থী হিসেবে ইতিমধ্যে আলোচনায় এসেছেন সাবেক প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের স্ত্রী রুবানা হক।


আপনার মন্তব্য